০৭:১৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

অফিসে বোমা পাওয়া যায়, সেখানে তন্নতন্ন করে তল্লাশি স্বাভাবিক

  • সংবাদদাতা
  • প্রকাশিত সময় : ০৭:৩১:২৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০২২
  • ৩৩ পড়েছেন

বিএনপির নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তল্লাশি করার বিষয়ে তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, যে অফিসে তাজা বোমা পাওয়া যায়, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সে অফিসে তন্নতন্ন করে তল্লাশি করবে এটা খুবই স্বাভাবিক। বোমার সঙ্গে সেখানে গ্রেডন বা অন্য কোনো মারণাস্ত্র আছে কিনা তা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে দেখতে হবে এটা স্বাভাবিক।

মঙ্গলবার (১৩ ডিসেম্বর) সচিবালয়ে ‘বঙ্গবন্ধুর তিন প্রজন্মের রাজনীতি’ শীর্ষক গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে এ কথা বলেন তথ্যমন্ত্রী।

বোমা জিয়াউর রহমান নাকি খালেদা জিয়ার ফটোর বাক্সের মধ্যে আছে সেটি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে দেখতে হবে জানিয়ে হাছান মাহমুদ বলেন, জিয়াউর রহমানের স্কাল্পচারের (ভাস্কর্য) আয়না ভাঙা দেখিয়ে বলছে যেভাবে তছনছ করে…, তো জিয়াউর রহমানের স্কাল্পচারের যে ফাউন্ডেশন সেটার পেছনে কোনোকিছু লুকিয়ে রেখেছে কিনা সেটা দেখতে হলে তো আয়না ভাঙতেই হবে। এছাড়া তো কোনো উপায় নেই। সুতরাং আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তদন্তের স্বার্থে সেখানে তল্লাশি চালিয়েছে।

তিনি আরও বলেন, তল্লাশিকে তারা অতিরঞ্জিত বলছেন। আসলে ১০ ডিসেম্বর তারা ফ্লপ করেছে। ১০ ডিসেম্বর যে হাকডাক দিয়ে তারা সমাবেশের ডাক দিয়েছিল, সেটার তুলনায় কিছুই করতে পারিনি। ১০ লাখ মানুষের সমাবেশ করবে বলে বড়জোর ৫০ হাজারের মানুষের একটা সমাবেশ করেছে। তাও একটি গরুর হাটের ময়দানে। সে কারণে তারা মুখরক্ষার জন্য নানা ধরনের অভিযোগের চেষ্টা করছেন।

সম্প্রতি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে বিভিন্ন দূতাবাসে দেওয়া চিঠির বিষয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে তথ্যমন্ত্রী বলেন, দূতাবাসে গিয়ে বিএনপির পক্ষ থেকে অতিরঞ্জিত নানা বিষয় উপস্থাপন করা হয়। তাদের প্রমোট করা হয় যাতে তারা আমাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে নাক গলান। তাদের সঠিক তথ্য সরবরাহ করার স্বার্থে ফরেন মিনিস্ট্রি থেকে সে তথ্যগুলো জানানো হয়েছে।

আর এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, এখন ইউরোপে আমানতের ওপর ব্যাংকের সুদের হার এক শতাংশ। মূল্যস্ফীতি কোনো কোনো দেশে ১০ শতাংশ, ৮ শতাংশ, ১১ শতাংশ। ৭০ শতাংশও আছে। তাহলে কি সেখানেও ব্যাংকের সুদের হার ১০, ২০ বা ৮০ শতাংশ করতে হবে। শুধু ব্যাংকের আমানতের সুদ হার কখনো মূল্যস্ফীতির সঙ্গে তুলনা করে কোনো রিপোর্ট করা হলে, তাহলে সেটা মিস লিডিং রিপোর্ট। এতে মানুষকে বিভ্রান্ত করা হয়। আমি মনেকরি, এ ধরনের বিভ্রান্তিকর রিপোর্ট করা সমীচীন নয়।

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

dainik madhumati

জনপ্রিয়

মোল্লাহাটে বিয়ের জন্য মেয়েকে পছন্দ না করায় ছেলের ভগ্নিপতিকে হত্যা, আহত ১০

অফিসে বোমা পাওয়া যায়, সেখানে তন্নতন্ন করে তল্লাশি স্বাভাবিক

প্রকাশিত সময় : ০৭:৩১:২৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০২২

বিএনপির নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তল্লাশি করার বিষয়ে তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, যে অফিসে তাজা বোমা পাওয়া যায়, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সে অফিসে তন্নতন্ন করে তল্লাশি করবে এটা খুবই স্বাভাবিক। বোমার সঙ্গে সেখানে গ্রেডন বা অন্য কোনো মারণাস্ত্র আছে কিনা তা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে দেখতে হবে এটা স্বাভাবিক।

মঙ্গলবার (১৩ ডিসেম্বর) সচিবালয়ে ‘বঙ্গবন্ধুর তিন প্রজন্মের রাজনীতি’ শীর্ষক গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে এ কথা বলেন তথ্যমন্ত্রী।

বোমা জিয়াউর রহমান নাকি খালেদা জিয়ার ফটোর বাক্সের মধ্যে আছে সেটি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে দেখতে হবে জানিয়ে হাছান মাহমুদ বলেন, জিয়াউর রহমানের স্কাল্পচারের (ভাস্কর্য) আয়না ভাঙা দেখিয়ে বলছে যেভাবে তছনছ করে…, তো জিয়াউর রহমানের স্কাল্পচারের যে ফাউন্ডেশন সেটার পেছনে কোনোকিছু লুকিয়ে রেখেছে কিনা সেটা দেখতে হলে তো আয়না ভাঙতেই হবে। এছাড়া তো কোনো উপায় নেই। সুতরাং আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তদন্তের স্বার্থে সেখানে তল্লাশি চালিয়েছে।

তিনি আরও বলেন, তল্লাশিকে তারা অতিরঞ্জিত বলছেন। আসলে ১০ ডিসেম্বর তারা ফ্লপ করেছে। ১০ ডিসেম্বর যে হাকডাক দিয়ে তারা সমাবেশের ডাক দিয়েছিল, সেটার তুলনায় কিছুই করতে পারিনি। ১০ লাখ মানুষের সমাবেশ করবে বলে বড়জোর ৫০ হাজারের মানুষের একটা সমাবেশ করেছে। তাও একটি গরুর হাটের ময়দানে। সে কারণে তারা মুখরক্ষার জন্য নানা ধরনের অভিযোগের চেষ্টা করছেন।

সম্প্রতি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে বিভিন্ন দূতাবাসে দেওয়া চিঠির বিষয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে তথ্যমন্ত্রী বলেন, দূতাবাসে গিয়ে বিএনপির পক্ষ থেকে অতিরঞ্জিত নানা বিষয় উপস্থাপন করা হয়। তাদের প্রমোট করা হয় যাতে তারা আমাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে নাক গলান। তাদের সঠিক তথ্য সরবরাহ করার স্বার্থে ফরেন মিনিস্ট্রি থেকে সে তথ্যগুলো জানানো হয়েছে।

আর এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, এখন ইউরোপে আমানতের ওপর ব্যাংকের সুদের হার এক শতাংশ। মূল্যস্ফীতি কোনো কোনো দেশে ১০ শতাংশ, ৮ শতাংশ, ১১ শতাংশ। ৭০ শতাংশও আছে। তাহলে কি সেখানেও ব্যাংকের সুদের হার ১০, ২০ বা ৮০ শতাংশ করতে হবে। শুধু ব্যাংকের আমানতের সুদ হার কখনো মূল্যস্ফীতির সঙ্গে তুলনা করে কোনো রিপোর্ট করা হলে, তাহলে সেটা মিস লিডিং রিপোর্ট। এতে মানুষকে বিভ্রান্ত করা হয়। আমি মনেকরি, এ ধরনের বিভ্রান্তিকর রিপোর্ট করা সমীচীন নয়।