১০:৫৯ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বর্ধিত সভায় তালুকদার আব্দুল খালেক

অবাধ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি রাখতে হবে

  • অফিস ডেক্স।।
  • প্রকাশিত সময় : ০৫:৫১:৪২ অপরাহ্ন, শনিবার, ৮ এপ্রিল ২০২৩
  • ৪৬ পড়েছেন

###       খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সিটি মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক বলেছেন, নির্বাচনে বিজয় অর্জন করার পূর্ব শর্ত হলো সংগঠনকে শক্তিশালী করা। সংগঠন শক্তিশালী হলে কোন অপশক্তি আমাদের ধারে কাছে আসতে পারবে না। আর সংগঠন দুর্বল হলে কোন অবস্থাতেই কাঙ্খিত লক্ষে পৌছানো যাবে না। তিনি বলেন, আগামী সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন জাতীয় সংসদ নির্বাচনের এসিড টেস্ট। এই নির্বাচনে বিজয় অর্জন করতে পারলে জাতীয় সংসদ নির্বাচন আমাদের জন্য অনেক সহজ হয়ে যাবে। তিনি আরো বলেন, বিএনপি-জামায়াতকে সাথে নিয়ে নির্বাচন ভ-ুল করার নানা ষড়যন্ত্রে মেতে উঠেছে। তাদের এই সকল অপরাজনীতি ও ষড়যন্ত্রের রাজনীতি বন্ধ করতে হলে দরকার ঐক্যবদ্ধ সংগঠন। আর ঐক্যবদ্ধ সংগঠন মানেই হচ্ছে শক্তিশালী সংগঠন। এই পর্যন্ত যত গণতান্ত্রিক আন্দোলন সংগ্রাম হয়েছে সে সকল আন্দোলনে বিজয় অর্জনের মুল শক্তি ছিলো দেশব্যাপী সংগঠন সুসংগঠিত ও শক্তিশালী থাকা। যে কারণে বঙ্গবন্ধুকে কারাগারে বন্দি রাখতে পারে নি। তিনি দলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, ঈদের আগেই সকল সেন্টার কমিটি মহানগরে জমা দিতে হবে। অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি রাখতে হবে। কেউ নির্বাচন নিয়ে ষড়যন্ত্র করলে তাকে দাঁতভাঙ্গা জবাব দিয়ে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় নির্বাচনকে এগিয়ে নিতে হবে।

শনিবার ( ৮ এপ্রিল) বেলা ১১টায় খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের জরুরি বর্ধিত সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সভায় এম ডি এ বাবুল রানার পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন, মহানগর আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি কাজি আমিনুল হক, বেগ লিয়াকত আলী, বীর মুক্তিযোদ্ধা নুর ইসলাম বন্দ, এ্যাড. আইয়ুব আলী শেখ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. আশরাফুল ইসলাম, প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক কাউন্সিলর জেড এ মাহমুদ ডন, সদর থানা আওয়ামী লীগ সভাপতি এ্যাড. মো. সাইফুল ইসলাম, সোনাডাঙ্গা থানা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক তসলিম আহমেদ আশা, ১৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি মোরশেদ আহমেদ মনি। এসময়ে উপস্থিত ছিলেন, সাবেক সংসদ সদস্য ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মিজানুর রহমান মিজান। আওয়ামী লীগ নেতা মল্লিক আবিদ হোসেন কবির, বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ শহিদুল ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন মিন্টু, বীর মুক্তিযোদ্ধা শ্যামল সিংহ রায়, এ্যাড. রজব আলী সরদার, অধ্যক্ষ শহিদুল হক মিন্টু, জামাল উদ্দিন বাচ্চু, শেখ মো. ফারুক আহমেদ, অধ্যা. আলমগীর কবির, প্যানেল মেয়র আলী আকবর টিপু, মো. শাহাজাদা, মো. মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ, প্যানেল মেয়র আমিনুল ইসলাম মুন্না, কাউন্সিলর শামছুজ্জামান মিয়া স্বপন, এ্যাড. অলোকা নন্দা দাস, বীর মুক্তিযোদ্ধা মাকসুদ আলম খাজা, শেখ ফারুক হাসান হিটলু, কামরুল ইসলাম বাবলু, বিরেন্দ্র নাথ ঘোষ, হাফেজ মো. শামীম, মো. মফিদুল ইসলাম টুটুল, শেখ নুর মোহাম্মদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা স. ম রেজওয়ান, মাহাবুবুল আলম বাবলু মোল্লা, শেখ আবিদ হোসেন, এস এম আনিসুর রহমান, তরিকুল আলম খান, এ্যাড. সুলতানা রহমান শিল্পী, মো. মোতালেব মিয়া, রনজিত কুমার ঘোষ, এ্যাড. একেএম শাহজাহান কচি, মো. সফিকুর রহমান পলাশ, এম এ নাসিম, অধ্যা. আব্দুল মুকুল, শেখ শাহাজালাল হোসেন সুজন, এ্যাড. শামীম আহমেদ, এস এম আসাদুজ্জামান রাসেল’সহ ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি সাধারণ সম্পাদকগণ উপস্থিত ছিলেন।
সভায় তালুদার আব্দুল খালেককে আসন্ন নির্বাচনে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত হয়। আগামী ২/৩ দিনের মধ্যে দলীয় মনোনয়ন সংগ্রহ করতে ঢাকায় যাওয়ারও সিদ্ধান্ত হয়। সভায় সেন্টার কমিটি গঠন করে ঈদের আগে দপ্তরে জমা দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়।##

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

Dainik adhumati

বর্ধিত সভায় তালুকদার আব্দুল খালেক

অবাধ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি রাখতে হবে

প্রকাশিত সময় : ০৫:৫১:৪২ অপরাহ্ন, শনিবার, ৮ এপ্রিল ২০২৩

###       খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সিটি মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক বলেছেন, নির্বাচনে বিজয় অর্জন করার পূর্ব শর্ত হলো সংগঠনকে শক্তিশালী করা। সংগঠন শক্তিশালী হলে কোন অপশক্তি আমাদের ধারে কাছে আসতে পারবে না। আর সংগঠন দুর্বল হলে কোন অবস্থাতেই কাঙ্খিত লক্ষে পৌছানো যাবে না। তিনি বলেন, আগামী সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন জাতীয় সংসদ নির্বাচনের এসিড টেস্ট। এই নির্বাচনে বিজয় অর্জন করতে পারলে জাতীয় সংসদ নির্বাচন আমাদের জন্য অনেক সহজ হয়ে যাবে। তিনি আরো বলেন, বিএনপি-জামায়াতকে সাথে নিয়ে নির্বাচন ভ-ুল করার নানা ষড়যন্ত্রে মেতে উঠেছে। তাদের এই সকল অপরাজনীতি ও ষড়যন্ত্রের রাজনীতি বন্ধ করতে হলে দরকার ঐক্যবদ্ধ সংগঠন। আর ঐক্যবদ্ধ সংগঠন মানেই হচ্ছে শক্তিশালী সংগঠন। এই পর্যন্ত যত গণতান্ত্রিক আন্দোলন সংগ্রাম হয়েছে সে সকল আন্দোলনে বিজয় অর্জনের মুল শক্তি ছিলো দেশব্যাপী সংগঠন সুসংগঠিত ও শক্তিশালী থাকা। যে কারণে বঙ্গবন্ধুকে কারাগারে বন্দি রাখতে পারে নি। তিনি দলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, ঈদের আগেই সকল সেন্টার কমিটি মহানগরে জমা দিতে হবে। অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি রাখতে হবে। কেউ নির্বাচন নিয়ে ষড়যন্ত্র করলে তাকে দাঁতভাঙ্গা জবাব দিয়ে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় নির্বাচনকে এগিয়ে নিতে হবে।

শনিবার ( ৮ এপ্রিল) বেলা ১১টায় খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের জরুরি বর্ধিত সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সভায় এম ডি এ বাবুল রানার পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন, মহানগর আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি কাজি আমিনুল হক, বেগ লিয়াকত আলী, বীর মুক্তিযোদ্ধা নুর ইসলাম বন্দ, এ্যাড. আইয়ুব আলী শেখ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. আশরাফুল ইসলাম, প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক কাউন্সিলর জেড এ মাহমুদ ডন, সদর থানা আওয়ামী লীগ সভাপতি এ্যাড. মো. সাইফুল ইসলাম, সোনাডাঙ্গা থানা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক তসলিম আহমেদ আশা, ১৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি মোরশেদ আহমেদ মনি। এসময়ে উপস্থিত ছিলেন, সাবেক সংসদ সদস্য ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মিজানুর রহমান মিজান। আওয়ামী লীগ নেতা মল্লিক আবিদ হোসেন কবির, বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ শহিদুল ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন মিন্টু, বীর মুক্তিযোদ্ধা শ্যামল সিংহ রায়, এ্যাড. রজব আলী সরদার, অধ্যক্ষ শহিদুল হক মিন্টু, জামাল উদ্দিন বাচ্চু, শেখ মো. ফারুক আহমেদ, অধ্যা. আলমগীর কবির, প্যানেল মেয়র আলী আকবর টিপু, মো. শাহাজাদা, মো. মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ, প্যানেল মেয়র আমিনুল ইসলাম মুন্না, কাউন্সিলর শামছুজ্জামান মিয়া স্বপন, এ্যাড. অলোকা নন্দা দাস, বীর মুক্তিযোদ্ধা মাকসুদ আলম খাজা, শেখ ফারুক হাসান হিটলু, কামরুল ইসলাম বাবলু, বিরেন্দ্র নাথ ঘোষ, হাফেজ মো. শামীম, মো. মফিদুল ইসলাম টুটুল, শেখ নুর মোহাম্মদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা স. ম রেজওয়ান, মাহাবুবুল আলম বাবলু মোল্লা, শেখ আবিদ হোসেন, এস এম আনিসুর রহমান, তরিকুল আলম খান, এ্যাড. সুলতানা রহমান শিল্পী, মো. মোতালেব মিয়া, রনজিত কুমার ঘোষ, এ্যাড. একেএম শাহজাহান কচি, মো. সফিকুর রহমান পলাশ, এম এ নাসিম, অধ্যা. আব্দুল মুকুল, শেখ শাহাজালাল হোসেন সুজন, এ্যাড. শামীম আহমেদ, এস এম আসাদুজ্জামান রাসেল’সহ ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি সাধারণ সম্পাদকগণ উপস্থিত ছিলেন।
সভায় তালুদার আব্দুল খালেককে আসন্ন নির্বাচনে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত হয়। আগামী ২/৩ দিনের মধ্যে দলীয় মনোনয়ন সংগ্রহ করতে ঢাকায় যাওয়ারও সিদ্ধান্ত হয়। সভায় সেন্টার কমিটি গঠন করে ঈদের আগে দপ্তরে জমা দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়।##