০৫:০৩ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আলোকিত মানুষ ছাড়া উন্নত রাষ্ট্র গঠন সম্ভব নয় : বিভাগীয় কমিশনার

###    খুলনা বিভাগের ৩৭ টি উপজেলায় পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বিভাগীয় ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন সেকেন্ডারি এডুকেশন ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রাম(এসইডিপি)-এর অন্তর্ভুক্ত স্ট্রেংদেনিং রিডিং হ্যাবিট অ্যান্ড রিডিং স্কিলস অ্যামাং সেকেন্ডারি স্টুডেন্টস স্কিম-এর আওতায় এ ওরিয়েন্টেশন কর্মশালার আয়োজন করা হয়। বৃহষ্পতিবার সকাল ১০টায় অনুষ্ঠিত কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিভাগীয় কমিশনার জনাব মোঃ জিল্লুর রহমান চৌধুরী। খুলনা জেলার জেলা প্রশাসক জনাব খন্দকার ইয়াসির আরেফীনের সভাপতিত্বে কর্মশালায় প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ও সাবেক সচিব আমিনুল ইসলাম ভুইয়া। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মাধ্যমিক উইং-এর পরিচালক ও স্কিম পরিচালক প্রফেসর মোহাম্মদ বেলাল হোসাইন। কর্মশালায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচির কো-টিম লিডার শামীম আল মামুন। এছাড়াও মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা খুলনা অঞ্চলের আঞ্চলিক পরিচালক প্রফেসর শেখ হারুনুর রশীদ এবং উপপরিচালক এ,এস,এম আব্দুল খালেক উপস্থিত ছিলেন।

কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিভাগীয় কমিশনার মোঃ জিল্লুর রহমান চৌধুরী বলেন, ২০৪১ সালে বাংলাদেশকে উন্নত রাষ্ট্র হিসেবে গড়ে তুলতে হলে আলোকিত মানুষ ছাড়া তা সম্ভব নয়। আর আলোকিত মানুষের জন্য আজকের এই পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচির মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা রাষ্ট্রীয় দর্শন, মানবিকতা, মূল্যবোধ এবং স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানতে পারবে। যা উন্নত রাষ্ট্র বাস্তবায়নে মূখ্য ভুমিকা রাখবে।

স্বাগত বক্তব্যে শামীম আল মামুন কর্মশালা আয়োজনে সার্বিক সহযোগিতা প্রদানের জন্য বিভাগীয় কমিশনার এবং জেলা প্রশাসককে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান। উপজেলা পর্যায়ে পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচি বাস্তবায়নে তিনি উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারবৃন্দের সর্বোচ্চ সহযোগিতা কামনা করেন।বিশেষ অতিথি প্রফেসর মোহাম্মদ বেলাল হোসাইন বলেন, মাধ্যমিক পর্যায়ে শিক্ষার্থীদের দক্ষ জনশক্তি হিসেবে গড়ে তোলার জন্য পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচি একটি সময়োপযোগী কার্যক্রম। তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশকে সঠিকভাবে নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য ভবিষ্যত প্রজন্ম তৈরিতে পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

সভাপতি খুলনার জেলা প্রশাসক খন্দকার ইয়াসির আরেফীন বলেন, ২০৪১ সালে আমরা অর্থনৈতিকভাবে এগিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি নৈতিকভাবেও এগিয়ে যেতে চাই। সেজন্য পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচি শুধু ৩০০ উপজেলায় নয় সারাদেশের সকল উপজেলা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বাস্তবায়ন প্রয়োজন। খুলনার সিএসএস আভা সেন্টারে বিভাগের ১০টি জেলার জেলা শিক্ষা অফিসার, কর্মসূচিভুক্ত ৩৭টি উপজেলার উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারগণ এই ওরিয়েন্টেশন কর্মশালায় অংশগ্রহণ করেন। ##

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

Dainik Madhumati

জনপ্রিয়

দেবহাটা রিপোর্টার্স ক্লাবের বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত 

আলোকিত মানুষ ছাড়া উন্নত রাষ্ট্র গঠন সম্ভব নয় : বিভাগীয় কমিশনার

প্রকাশিত সময় : ১২:৪৮:৫০ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ ডিসেম্বর ২০২২

###    খুলনা বিভাগের ৩৭ টি উপজেলায় পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বিভাগীয় ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন সেকেন্ডারি এডুকেশন ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রাম(এসইডিপি)-এর অন্তর্ভুক্ত স্ট্রেংদেনিং রিডিং হ্যাবিট অ্যান্ড রিডিং স্কিলস অ্যামাং সেকেন্ডারি স্টুডেন্টস স্কিম-এর আওতায় এ ওরিয়েন্টেশন কর্মশালার আয়োজন করা হয়। বৃহষ্পতিবার সকাল ১০টায় অনুষ্ঠিত কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিভাগীয় কমিশনার জনাব মোঃ জিল্লুর রহমান চৌধুরী। খুলনা জেলার জেলা প্রশাসক জনাব খন্দকার ইয়াসির আরেফীনের সভাপতিত্বে কর্মশালায় প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ও সাবেক সচিব আমিনুল ইসলাম ভুইয়া। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মাধ্যমিক উইং-এর পরিচালক ও স্কিম পরিচালক প্রফেসর মোহাম্মদ বেলাল হোসাইন। কর্মশালায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচির কো-টিম লিডার শামীম আল মামুন। এছাড়াও মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা খুলনা অঞ্চলের আঞ্চলিক পরিচালক প্রফেসর শেখ হারুনুর রশীদ এবং উপপরিচালক এ,এস,এম আব্দুল খালেক উপস্থিত ছিলেন।

কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিভাগীয় কমিশনার মোঃ জিল্লুর রহমান চৌধুরী বলেন, ২০৪১ সালে বাংলাদেশকে উন্নত রাষ্ট্র হিসেবে গড়ে তুলতে হলে আলোকিত মানুষ ছাড়া তা সম্ভব নয়। আর আলোকিত মানুষের জন্য আজকের এই পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচির মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা রাষ্ট্রীয় দর্শন, মানবিকতা, মূল্যবোধ এবং স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানতে পারবে। যা উন্নত রাষ্ট্র বাস্তবায়নে মূখ্য ভুমিকা রাখবে।

স্বাগত বক্তব্যে শামীম আল মামুন কর্মশালা আয়োজনে সার্বিক সহযোগিতা প্রদানের জন্য বিভাগীয় কমিশনার এবং জেলা প্রশাসককে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান। উপজেলা পর্যায়ে পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচি বাস্তবায়নে তিনি উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারবৃন্দের সর্বোচ্চ সহযোগিতা কামনা করেন।বিশেষ অতিথি প্রফেসর মোহাম্মদ বেলাল হোসাইন বলেন, মাধ্যমিক পর্যায়ে শিক্ষার্থীদের দক্ষ জনশক্তি হিসেবে গড়ে তোলার জন্য পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচি একটি সময়োপযোগী কার্যক্রম। তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশকে সঠিকভাবে নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য ভবিষ্যত প্রজন্ম তৈরিতে পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

সভাপতি খুলনার জেলা প্রশাসক খন্দকার ইয়াসির আরেফীন বলেন, ২০৪১ সালে আমরা অর্থনৈতিকভাবে এগিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি নৈতিকভাবেও এগিয়ে যেতে চাই। সেজন্য পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচি শুধু ৩০০ উপজেলায় নয় সারাদেশের সকল উপজেলা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বাস্তবায়ন প্রয়োজন। খুলনার সিএসএস আভা সেন্টারে বিভাগের ১০টি জেলার জেলা শিক্ষা অফিসার, কর্মসূচিভুক্ত ৩৭টি উপজেলার উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারগণ এই ওরিয়েন্টেশন কর্মশালায় অংশগ্রহণ করেন। ##