০৬:০১ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঐক্য পরিষদ আলোচনার পাশাপাশি রাজপথের আন্দোলন অব্যাহত রাখবে

  • অফিস ডেক্স।।
  • প্রকাশিত সময় : ০৮:৪৪:২৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৩
  • ২৯ পড়েছেন

###    সরকারি দলের বিগত নির্বাচনী ইশতেহারে প্রতিশ্রুত সংখ্যালঘু স্বার্থবান্ধব ৭ দফা অঙ্গিকার বাস্তবায়নে সরকারের সাথে আলোচনার পাশাপাশি রাজপথের আন্দোলনও অব্যাহত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ। আজ ঐক্য পরিষদের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন ঐক্য পরিষদের অন্যতম সভাপতি অধ্যাপক ড. নিম চন্দ্র ভৌমিক। গত ১২এপ্রিল প্রধানমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাত করেন হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের ৯ সদস্যের প্রতিনিধিদল। ওই সাক্ষাতে সরকারি দলের বিগত নির্বাচনী ইশতেহারে প্রতিশ্রুত ধর্মীয় ও জাতিগত সংখ্যালঘু স্বার্থবান্ধব ৭ দফা অঙ্গিকার পূরণে প্রধানমন্ত্রীর সরাসরি ভূমিকা গ্রহণের আহ্বান জানানো হয়। সরকারি দলের নির্বাচনী ইশতেহারে এ সংক্রান্ত অঙ্গিকারগুলোর মধ্যে ছিলো অর্পিত সম্পত্তি প্রত্যর্পন আইনের যথাযথ প্রয়োগ ও বাস্তবায়ন, সংখ্যালঘু সুরক্ষা আইন প্রণয়ন ও সংখ্যালঘু বিষয়ক জাতীয় কমিশন গঠন, দেবোত্তর সম্পত্তি সংরক্ষণ আইন প্রণয়ন, বৈষম্য বিলোপ আইন প্রণয়ন, পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তিচুক্তির পূর্ণ বাস্তবায়ন ও পার্বত্য ভূমি কমিশন যথাযথ কার্যকরীকরণ এবং সমতলের আদিবাসীদের জন্য পৃথক ভূমি কমিশন গঠন। ঐক্য পরিষদের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাতকারী নেতৃবৃন্দ ওই সাক্ষাতের আলোচনার বিষয়বস্তু তুলে ধরেন। এই প্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী তার নির্বাচনী ইশতেহারে দেওয়া প্রতিশ্রুতিসমূহ দ্রুত বাস্তবায়নে এগিয়ে আসবেন বলে বৈঠকে আশা প্রকাশ করা হয়। বৈঠকে দাবি আদায়ে সরকারের সাথে আলোচনার পাশাপাশি রাজপথের আন্দোলনও অব্যাহত রাখার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। বৈঠকে আন্দোলনের চূড়ান্ত কর্মসূচিতে যাওয়ার আগে আগামী মে ও জুন মাসে কেন্দ্রীয় কমিটির বর্ধিত সভা, ৮টি বিভাগীয় প্রতিনিধি সভা আয়োজনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এছাড়াও সমমনা সুশীল সমাজ, মানবাধিকার সংগঠন, সাংস্কৃতিক ও নারী সংগঠন এবং বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গের সাথে চলমান আন্দোলন কর্মসূচি নিয়ে মতবিনিময় সভা, বাংলাদেশে অবস্থানরত বিদেশি কূটনীতিক ও মিশন প্রধানদের সাথে মতবিনিময় সভা, গণতন্ত্র ও মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের সকল রাজনৈতিক দলের সাথে মতবিনিময় সভা, গণমাধ্যমের সম্পাদক ও প্রতিনিধিদের সাথে মতবিনিময় সভা, ঐক্য পরিষদের সকল সাংগঠনিক টিম এবং অঙ্গ সংগঠনসমূহের সাথে মতবিনিময় সভা, ধর্মীয় ও জাতিগত সংখ্যালঘু ও আদিবাসী জনগোষ্ঠীর ঐক্যমোর্চার প্রতিনিধিদের সাথে মতবিনিময় সভা আয়োজনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। ঐক্য পরিষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মনীন্দ্র কুমার নাথের সঞ্চালনায় কার্যনির্বাহী কমিটির বৈঠকে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের অন্যতম সভাপতি নির্মল রোজারিও, প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজল দেবনাথ, মিলন কান্তি দত্ত, জয়ন্তী রায়, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. তাপস কুমার পাল, এ্যাড. কিশোর রঞ্জন মণ্ডল, সাংগঠনিক সম্পাদক সুখেন্দু শেখর বৈদ্য, সাগর হালদার, এ্যাড. দীপংকর ঘোষ, পদ্মাবতী দেবী, তিলক গোস্বামী, কেন্দ্রীয় নেতা মিহির রঞ্জন হাওলাদার, প্রাণতোষ আচার্য্য শিবু, এ্যাড. অপূর্ব ভট্টাচার্য্য, এ্যাড. তপু গোপাল ঘোষ, রজত সুর রাজু, নারায়ণ সাহা অপু, তপন কুমার চক্রবর্ত্তী, উজ্জ্বল দত্ত, সঞ্জয় কুমার দাস, বিপুল ঘোষ শংকর, অভিজিত ভট্টাচার্য্য, বলরাম বাহাদুর, অধ্যাপক সুমনা গুপ্তা, মানিক লাল ঘোষ, শান্তিরঞ্জন দাস, সুবীর চন্দ্র দত্ত, গৌতম মজুমদার, বাপ্পাদিত্য বসু, অরূপ কুমার কুণ্ডু, জেমস সুব্রত হাজরা, সুবীর সাহা মনা প্রমুখ। ##

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

Dainik adhumati

জনপ্রিয়

গলাচিপায় অবৈধ দোকান উচ্ছেদের মাধ্যমে রাস্তা উন্মুক্ত করায় প্রসংশিত মেয়র

ঐক্য পরিষদ আলোচনার পাশাপাশি রাজপথের আন্দোলন অব্যাহত রাখবে

প্রকাশিত সময় : ০৮:৪৪:২৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৩

###    সরকারি দলের বিগত নির্বাচনী ইশতেহারে প্রতিশ্রুত সংখ্যালঘু স্বার্থবান্ধব ৭ দফা অঙ্গিকার বাস্তবায়নে সরকারের সাথে আলোচনার পাশাপাশি রাজপথের আন্দোলনও অব্যাহত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ। আজ ঐক্য পরিষদের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন ঐক্য পরিষদের অন্যতম সভাপতি অধ্যাপক ড. নিম চন্দ্র ভৌমিক। গত ১২এপ্রিল প্রধানমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাত করেন হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের ৯ সদস্যের প্রতিনিধিদল। ওই সাক্ষাতে সরকারি দলের বিগত নির্বাচনী ইশতেহারে প্রতিশ্রুত ধর্মীয় ও জাতিগত সংখ্যালঘু স্বার্থবান্ধব ৭ দফা অঙ্গিকার পূরণে প্রধানমন্ত্রীর সরাসরি ভূমিকা গ্রহণের আহ্বান জানানো হয়। সরকারি দলের নির্বাচনী ইশতেহারে এ সংক্রান্ত অঙ্গিকারগুলোর মধ্যে ছিলো অর্পিত সম্পত্তি প্রত্যর্পন আইনের যথাযথ প্রয়োগ ও বাস্তবায়ন, সংখ্যালঘু সুরক্ষা আইন প্রণয়ন ও সংখ্যালঘু বিষয়ক জাতীয় কমিশন গঠন, দেবোত্তর সম্পত্তি সংরক্ষণ আইন প্রণয়ন, বৈষম্য বিলোপ আইন প্রণয়ন, পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তিচুক্তির পূর্ণ বাস্তবায়ন ও পার্বত্য ভূমি কমিশন যথাযথ কার্যকরীকরণ এবং সমতলের আদিবাসীদের জন্য পৃথক ভূমি কমিশন গঠন। ঐক্য পরিষদের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাতকারী নেতৃবৃন্দ ওই সাক্ষাতের আলোচনার বিষয়বস্তু তুলে ধরেন। এই প্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী তার নির্বাচনী ইশতেহারে দেওয়া প্রতিশ্রুতিসমূহ দ্রুত বাস্তবায়নে এগিয়ে আসবেন বলে বৈঠকে আশা প্রকাশ করা হয়। বৈঠকে দাবি আদায়ে সরকারের সাথে আলোচনার পাশাপাশি রাজপথের আন্দোলনও অব্যাহত রাখার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। বৈঠকে আন্দোলনের চূড়ান্ত কর্মসূচিতে যাওয়ার আগে আগামী মে ও জুন মাসে কেন্দ্রীয় কমিটির বর্ধিত সভা, ৮টি বিভাগীয় প্রতিনিধি সভা আয়োজনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এছাড়াও সমমনা সুশীল সমাজ, মানবাধিকার সংগঠন, সাংস্কৃতিক ও নারী সংগঠন এবং বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গের সাথে চলমান আন্দোলন কর্মসূচি নিয়ে মতবিনিময় সভা, বাংলাদেশে অবস্থানরত বিদেশি কূটনীতিক ও মিশন প্রধানদের সাথে মতবিনিময় সভা, গণতন্ত্র ও মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের সকল রাজনৈতিক দলের সাথে মতবিনিময় সভা, গণমাধ্যমের সম্পাদক ও প্রতিনিধিদের সাথে মতবিনিময় সভা, ঐক্য পরিষদের সকল সাংগঠনিক টিম এবং অঙ্গ সংগঠনসমূহের সাথে মতবিনিময় সভা, ধর্মীয় ও জাতিগত সংখ্যালঘু ও আদিবাসী জনগোষ্ঠীর ঐক্যমোর্চার প্রতিনিধিদের সাথে মতবিনিময় সভা আয়োজনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। ঐক্য পরিষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মনীন্দ্র কুমার নাথের সঞ্চালনায় কার্যনির্বাহী কমিটির বৈঠকে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের অন্যতম সভাপতি নির্মল রোজারিও, প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজল দেবনাথ, মিলন কান্তি দত্ত, জয়ন্তী রায়, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. তাপস কুমার পাল, এ্যাড. কিশোর রঞ্জন মণ্ডল, সাংগঠনিক সম্পাদক সুখেন্দু শেখর বৈদ্য, সাগর হালদার, এ্যাড. দীপংকর ঘোষ, পদ্মাবতী দেবী, তিলক গোস্বামী, কেন্দ্রীয় নেতা মিহির রঞ্জন হাওলাদার, প্রাণতোষ আচার্য্য শিবু, এ্যাড. অপূর্ব ভট্টাচার্য্য, এ্যাড. তপু গোপাল ঘোষ, রজত সুর রাজু, নারায়ণ সাহা অপু, তপন কুমার চক্রবর্ত্তী, উজ্জ্বল দত্ত, সঞ্জয় কুমার দাস, বিপুল ঘোষ শংকর, অভিজিত ভট্টাচার্য্য, বলরাম বাহাদুর, অধ্যাপক সুমনা গুপ্তা, মানিক লাল ঘোষ, শান্তিরঞ্জন দাস, সুবীর চন্দ্র দত্ত, গৌতম মজুমদার, বাপ্পাদিত্য বসু, অরূপ কুমার কুণ্ডু, জেমস সুব্রত হাজরা, সুবীর সাহা মনা প্রমুখ। ##