০৬:১৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সাড়ে ৩৬কোটি টাকা আত্নসাত ও পাচারের অভিযোগ :

ওজোপাডিকোর সাবেক এমডি সফিকউদ্দিনসহ ৩জনের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

###

খুলনায় অবস্থিত ওয়েস্টেজোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির (ওজোপাডিকো) ৩৬ কোটি ২৭ লাখ টাকা আত্মসাত এবং বিদেশে পাচারের অভিযোগে সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক শফিক উদ্দিন, কোম্পানি সচিব আবদুল মোতালেবসহ ৩জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন(দুদক)। মামলায় চীনের প্রতিষ্ঠান হেক্সিংয় ইলেট্রিক্যাল লিমিটেডের কর্মকর্তা ইয়ে ওয়ন জুনকেও আসামি করা হয়েছে। বুধবার বিকেলে দুদকের খুলনা সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক তরুণ কান্তি ঘোষ বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেন। বাংলাদেশ স্মার্ট ইলেক্ট্রিক্যাল কোম্পানি (বেসকো) নামে একটি কারকানা চালুর সময় পরস্পর যোগসাজসে অনিয়ম ও  দূর্নীতির মাধ্যমে এ বিুপল পরিমান টাকা আত্নসাত করার অভিযোগ করা হয়। বৃহষ্পতিবার সকালে দুদক খুলনার পরিচালক মো: মঞ্জুর মোর্শেদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মামলার এজাহারে সূত্রে জানা গেছে, ওয়েস্টেজোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি(ওজোপাডিকো) ও চীনের প্রতিষ্ঠান হেক্সিং ইলেট্রিক্যাল লিমিটেড ২০১৯ বাংলাদেশ স্মার্ট ইলেক্ট্রিক্যাল কোম্পানি (বেসকো) নামে খুলনায় একটি প্রিপেইড মিটার তৈরীর কারখানা চালু করে। এই কোম্পনিতে পদাধিকারবলে শফিক উদ্দিন ব্যবস্থাপনা পরিচালক, আবদুল মোতালেব পরিচালক(অর্থ) ডেপুটি ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও চীনা নাগরিক ইয়ে ওয়েন জুন হেক্সিং ইলেট্রিক্যাল লিমিটেডের পক্ষে উপব্যবস্থাপনা পরিচালক ছিলেন। মামলার বাদী অভিযোগ করা হয়, মামলার আসামীরা যোগসাজসে ক্ষমতার অপব্যবহার ও দুর্নীতির মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের প্রশিক্ষণ না দিয়ে হেক্সিং ইলেট্রিক্যাল কোম্পানির নামে ১৮ লাখ ৬৫ হাজার ৭৮৭ টাকা, রিপেয়ার ট্রেনিং বাবদ ৬ লাখ ৯৯ হাজার ৬৭০, মিটার ওয়ারেন্ট্রি বাবদ ৭ কোটি ২১ লাখ ৩২ হাজার ২৩৪ টাকা, প্রজেক্ট ম্যানেজমেন্ট ও ট্যাকনিক্যাল সাপোর্টের নামে ১ কোটি ২৯ লাখ ৯৭ হাজার ৩৫০ টাকা, প্রশিক্ষণের বিভিন্ন এলসি বাবদ ২৫ লাখ ৪৮ হাজার ৫’শ টাকাসহ বিভিন্ন খরচ দেখিয়ে ৩৩ কোটি ৪০ লাখ ২৪ হাজার ৩৭৯টাকা আত্মসাত করেন। বেসকো পরিচালনায় থাকা এই তিন ব্যক্তি পরস্পর যোগসাজশে ৩৩ কোটি ৪০ লাখ টাকা আত্নসাত ও প্রায় ২ কোটি ৯৭ লাখ টাকা পাচারের চেষ্টা করার অভিযোগ আনা হয়েছে।

দুদকের খুলনা সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক তরুণ কান্তি ঘোষ জানান, ওজোপাডিকোর সাবেক এমডি সফিকউদ্দিনসহ তিন আসামী ক্ষমতার অপব্যবহার, অনিয়ম-দূর্নীতির মাধ্যমে বিপুল পরিমান অর্থ আত্নসাত করেছেন। একই সাথে তারা সরকারি প্রায় তিন কোটি টাকা বিদেশে পাচারের চেষ্টা করেছেন। এ ঘটনার অনুসন্ধান শেষে প্রাথমিক সত্যতা পাওয়ায় উর্ধ্বতন কতৃর্পক্ষের অনুমতি সাপেক্ষে মামলা দায়ের করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে দন্ডবিধির ৪০৯/১০৯ ধারাসহ ১৯৪৭ সনের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারা, মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইন, ২০১২ এর ৪(২) ধারায় মামলা হয়েছে বলেও তিনি জানান।##

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

Dainik adhumati

জনপ্রিয়

দশমিনায় পরীক্ষায় অসৎ উপায় অবলম্বন করায় দুই শিক্ষার্থী বহিস্কার

সাড়ে ৩৬কোটি টাকা আত্নসাত ও পাচারের অভিযোগ :

ওজোপাডিকোর সাবেক এমডি সফিকউদ্দিনসহ ৩জনের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

প্রকাশিত সময় : ০২:১৪:৫৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১ জুন ২০২৩

###

খুলনায় অবস্থিত ওয়েস্টেজোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির (ওজোপাডিকো) ৩৬ কোটি ২৭ লাখ টাকা আত্মসাত এবং বিদেশে পাচারের অভিযোগে সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক শফিক উদ্দিন, কোম্পানি সচিব আবদুল মোতালেবসহ ৩জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন(দুদক)। মামলায় চীনের প্রতিষ্ঠান হেক্সিংয় ইলেট্রিক্যাল লিমিটেডের কর্মকর্তা ইয়ে ওয়ন জুনকেও আসামি করা হয়েছে। বুধবার বিকেলে দুদকের খুলনা সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক তরুণ কান্তি ঘোষ বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেন। বাংলাদেশ স্মার্ট ইলেক্ট্রিক্যাল কোম্পানি (বেসকো) নামে একটি কারকানা চালুর সময় পরস্পর যোগসাজসে অনিয়ম ও  দূর্নীতির মাধ্যমে এ বিুপল পরিমান টাকা আত্নসাত করার অভিযোগ করা হয়। বৃহষ্পতিবার সকালে দুদক খুলনার পরিচালক মো: মঞ্জুর মোর্শেদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মামলার এজাহারে সূত্রে জানা গেছে, ওয়েস্টেজোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি(ওজোপাডিকো) ও চীনের প্রতিষ্ঠান হেক্সিং ইলেট্রিক্যাল লিমিটেড ২০১৯ বাংলাদেশ স্মার্ট ইলেক্ট্রিক্যাল কোম্পানি (বেসকো) নামে খুলনায় একটি প্রিপেইড মিটার তৈরীর কারখানা চালু করে। এই কোম্পনিতে পদাধিকারবলে শফিক উদ্দিন ব্যবস্থাপনা পরিচালক, আবদুল মোতালেব পরিচালক(অর্থ) ডেপুটি ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও চীনা নাগরিক ইয়ে ওয়েন জুন হেক্সিং ইলেট্রিক্যাল লিমিটেডের পক্ষে উপব্যবস্থাপনা পরিচালক ছিলেন। মামলার বাদী অভিযোগ করা হয়, মামলার আসামীরা যোগসাজসে ক্ষমতার অপব্যবহার ও দুর্নীতির মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের প্রশিক্ষণ না দিয়ে হেক্সিং ইলেট্রিক্যাল কোম্পানির নামে ১৮ লাখ ৬৫ হাজার ৭৮৭ টাকা, রিপেয়ার ট্রেনিং বাবদ ৬ লাখ ৯৯ হাজার ৬৭০, মিটার ওয়ারেন্ট্রি বাবদ ৭ কোটি ২১ লাখ ৩২ হাজার ২৩৪ টাকা, প্রজেক্ট ম্যানেজমেন্ট ও ট্যাকনিক্যাল সাপোর্টের নামে ১ কোটি ২৯ লাখ ৯৭ হাজার ৩৫০ টাকা, প্রশিক্ষণের বিভিন্ন এলসি বাবদ ২৫ লাখ ৪৮ হাজার ৫’শ টাকাসহ বিভিন্ন খরচ দেখিয়ে ৩৩ কোটি ৪০ লাখ ২৪ হাজার ৩৭৯টাকা আত্মসাত করেন। বেসকো পরিচালনায় থাকা এই তিন ব্যক্তি পরস্পর যোগসাজশে ৩৩ কোটি ৪০ লাখ টাকা আত্নসাত ও প্রায় ২ কোটি ৯৭ লাখ টাকা পাচারের চেষ্টা করার অভিযোগ আনা হয়েছে।

দুদকের খুলনা সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক তরুণ কান্তি ঘোষ জানান, ওজোপাডিকোর সাবেক এমডি সফিকউদ্দিনসহ তিন আসামী ক্ষমতার অপব্যবহার, অনিয়ম-দূর্নীতির মাধ্যমে বিপুল পরিমান অর্থ আত্নসাত করেছেন। একই সাথে তারা সরকারি প্রায় তিন কোটি টাকা বিদেশে পাচারের চেষ্টা করেছেন। এ ঘটনার অনুসন্ধান শেষে প্রাথমিক সত্যতা পাওয়ায় উর্ধ্বতন কতৃর্পক্ষের অনুমতি সাপেক্ষে মামলা দায়ের করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে দন্ডবিধির ৪০৯/১০৯ ধারাসহ ১৯৪৭ সনের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারা, মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইন, ২০১২ এর ৪(২) ধারায় মামলা হয়েছে বলেও তিনি জানান।##