১০:৩০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

কুয়াকাটায় রাখাইনদের সাংগ্রাইন উৎসব উৎযাপিত

###    পটুয়াখালীর কুয়াকাটার কেরানী পাড়ায় রাখাইন সম্প্রদায়ের নববর্ষ উৎযাপন উপলক্ষ্যে পালিত হচ্ছে ঐতিহ্যবাহী সাংগ্রাইন উৎসব। ১৮ এপ্রিল মঙ্গলবার থেকে তিন দিনব্যাপী এই উৎসবে রাখাইন তরুন তরুনীরা জলখেলা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পালন করে প্রতিদিন দুপুর ১ টা থেকে বিকাল ৫ টা পর্যন্ত চলবে এই অনুষ্ঠান। সাংগ্রাইন এর তাৎপর্য হলো বিদায়ী বর্ষে সমস্ত দুঃখ কষ্ট গ্লানি ধুয়ে মুছে বিদায় জানিয়ে নতুন বছরকে স্বাগত জানানো। এর তাৎপর্য অনুসারে কতিপয় ধর্মীয় রীতিনীতি পালনপূর্বক রাখাইনরা এ উৎসব উদযাপন করে থাকে। তিন দিনব্যাপী সাংগ্রাইন এর প্রথম দিনে নিজ নিজ পাড়ার স্থানীয় রাখাইনরা সংশ্লিষ্ট বিহারের বৌদ্ধ প্রতিকৃতির স্নান সম্পন্ন করেন। বিহারের বৌদ্ধ ভিক্ষু ও উপবাসীদেরকে আহার দান, দ্বীপ ও ধুপ প্রজ্জলন এবং প্রার্থনা সভার আয়োজন করে। বুদ্ধস্নানের পর ছোটরা জল নিয়ে প্রবীনদের ঘরে ঘরে গিয়ে তাদেরকে স্নানের মাধ্যমে শ্রদ্ধা নিবেদন করে। এর পর শুরু হয় শিশু-কিশোর, তরুন-তরুনী ও সর্বস্তরের রাখাইনদের জলখেলা ও নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা। তৎকালীন জলখেলা ও নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা চলতো মাসব্যাপী। কালের বিবর্তনে নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠান হারিয়ে গেলেও রাখাইনরা জলখেলা অনুষ্ঠানটিকে ধরে রেখেছে। সেই সাথে উৎসবকে আরও আনন্দমুখর করার জন্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসমুহ  সম্পৃক্ত করা হয়েছে। বর্তমানে রাখাইন অধ্যুষিত এলাকা সমূহে জনসংখ্যা কমে যাওয়ায় এবং আর্থিক সমর্থ না থাকায় সে সকল পাড়ায় আনুষ্ঠানিকভাবে সাংগ্রাইন উদযাপিত হচ্ছে। রাখাইনরা জানায়, সরকারি বা বেসরকারি অনুদান পেলে প্রতি বছর নিয়মিত ঐতিহ্যবাহী সাংগ্রাইন উৎসব উদযাপন সম্ভব। এই উদ্ভোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন পটুয়াখালী ৪ আসনের এম পি মহিবুর রহমান, বিশেষ অতিথি কুয়াকাটা পৌর মেয়র আনোয়ার হাওলাদার, সাবেক মেয়র মোঃ বারেক মোল্লা, মোঃ হাসনাইন পারভেজ পুলিশ পরিদর্শক ট্যুরিষ্ট পুলিশ কুয়াকাটা জোন, মহিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল খায়ের ও পুলিশ পরিদর্শক মনিরুল হক ডাবলু ও বিভিন্ন মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ। সবশেষে রাখাইন সম্প্রদায়ের তরুন-তরুনীরা শত শত দর্শকদের সামনে তাদের কৃষ্টি, কালচার, সংগীত পরিবেশনা, জল খেলা ও ঐতিহ্য তুলে ধরেন তারা।##
Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

Dainik adhumati

জনপ্রিয়

বাকেরগঞ্জে কৃষি ব্যাংকের গ্রাহকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা

কুয়াকাটায় রাখাইনদের সাংগ্রাইন উৎসব উৎযাপিত

প্রকাশিত সময় : ০১:৫৭:২২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৩
###    পটুয়াখালীর কুয়াকাটার কেরানী পাড়ায় রাখাইন সম্প্রদায়ের নববর্ষ উৎযাপন উপলক্ষ্যে পালিত হচ্ছে ঐতিহ্যবাহী সাংগ্রাইন উৎসব। ১৮ এপ্রিল মঙ্গলবার থেকে তিন দিনব্যাপী এই উৎসবে রাখাইন তরুন তরুনীরা জলখেলা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পালন করে প্রতিদিন দুপুর ১ টা থেকে বিকাল ৫ টা পর্যন্ত চলবে এই অনুষ্ঠান। সাংগ্রাইন এর তাৎপর্য হলো বিদায়ী বর্ষে সমস্ত দুঃখ কষ্ট গ্লানি ধুয়ে মুছে বিদায় জানিয়ে নতুন বছরকে স্বাগত জানানো। এর তাৎপর্য অনুসারে কতিপয় ধর্মীয় রীতিনীতি পালনপূর্বক রাখাইনরা এ উৎসব উদযাপন করে থাকে। তিন দিনব্যাপী সাংগ্রাইন এর প্রথম দিনে নিজ নিজ পাড়ার স্থানীয় রাখাইনরা সংশ্লিষ্ট বিহারের বৌদ্ধ প্রতিকৃতির স্নান সম্পন্ন করেন। বিহারের বৌদ্ধ ভিক্ষু ও উপবাসীদেরকে আহার দান, দ্বীপ ও ধুপ প্রজ্জলন এবং প্রার্থনা সভার আয়োজন করে। বুদ্ধস্নানের পর ছোটরা জল নিয়ে প্রবীনদের ঘরে ঘরে গিয়ে তাদেরকে স্নানের মাধ্যমে শ্রদ্ধা নিবেদন করে। এর পর শুরু হয় শিশু-কিশোর, তরুন-তরুনী ও সর্বস্তরের রাখাইনদের জলখেলা ও নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা। তৎকালীন জলখেলা ও নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা চলতো মাসব্যাপী। কালের বিবর্তনে নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠান হারিয়ে গেলেও রাখাইনরা জলখেলা অনুষ্ঠানটিকে ধরে রেখেছে। সেই সাথে উৎসবকে আরও আনন্দমুখর করার জন্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসমুহ  সম্পৃক্ত করা হয়েছে। বর্তমানে রাখাইন অধ্যুষিত এলাকা সমূহে জনসংখ্যা কমে যাওয়ায় এবং আর্থিক সমর্থ না থাকায় সে সকল পাড়ায় আনুষ্ঠানিকভাবে সাংগ্রাইন উদযাপিত হচ্ছে। রাখাইনরা জানায়, সরকারি বা বেসরকারি অনুদান পেলে প্রতি বছর নিয়মিত ঐতিহ্যবাহী সাংগ্রাইন উৎসব উদযাপন সম্ভব। এই উদ্ভোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন পটুয়াখালী ৪ আসনের এম পি মহিবুর রহমান, বিশেষ অতিথি কুয়াকাটা পৌর মেয়র আনোয়ার হাওলাদার, সাবেক মেয়র মোঃ বারেক মোল্লা, মোঃ হাসনাইন পারভেজ পুলিশ পরিদর্শক ট্যুরিষ্ট পুলিশ কুয়াকাটা জোন, মহিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল খায়ের ও পুলিশ পরিদর্শক মনিরুল হক ডাবলু ও বিভিন্ন মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ। সবশেষে রাখাইন সম্প্রদায়ের তরুন-তরুনীরা শত শত দর্শকদের সামনে তাদের কৃষ্টি, কালচার, সংগীত পরিবেশনা, জল খেলা ও ঐতিহ্য তুলে ধরেন তারা।##