০৬:০৭ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ৫ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

খুলনায় একশ ৭১ শ্রমিককে প্রায় ৮৯ লাখ টাকা আর্থিক সহায়তার চেক বিতরন

###    খুলনা সদর, সোনাডাঙ্গা, রূপসা, বাটিয়াঘাটা, পাইকগাছা ও তেরখাদা উপজেলাসহ খুলনা বিভাগের অন্যান্য জেলায় মোট একশ ৭১ শ্রমিককে ৮৮ লাখ ৬০ হাজার টাকার আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। সোমবার বিকেলে খুলনা বিভাগীয় শ্রম দপ্তর প্রাঙ্গণে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অধীন বাংলাদেশ শ্রমিক কল্যাণ ফাউন্ডেশন তহবিল থেকে চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে জেলার প্রাতিষ্ঠানিক-অপ্রাতিষ্ঠানিক সেক্টরের শ্রমিক ও কর্মচারী এবং তাঁদের পরিবারের সদস্যদের চিকিৎসা ও সন্তানের উচ্চশিক্ষার জন্য পরিবারের হাতে আর্থিক সহায়তার চেক তুলে দেন। অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক এবং খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য সেখ সালাহউদ্দিন জুয়েল। প্রধান অতিথির বক্তৃতায় শ্রম প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শ্রমবান্ধব সরকার। কোন শ্রমিক অসহায় থাকবে না। তারই ধারবাহিকতায় শ্রমিকের জীবনযাত্রার মান উন্নয়ন এবং তাদের অধিকার ও কল্যাণ নিশ্চিতে নানাবিধ কার্যক্রম গ্রহণ করে যাচ্ছে। বর্তমানে এই তহবিলে সাতশত কোটি টাকা গচ্ছিত রয়েছে। এ পর্যন্ত প্রায় ২০ হাজার অসহায় শ্রমিকদের মাঝে ৯২ কোটি টাকার অধিক অনুদান প্রদান করা হয়েছে। শ্রম প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শ্রমজীবী ও কৃষকের বন্ধু ছিলেন। বঙ্গবন্ধু আজীবন শ্রমিকদের কল্যাণে কাজ করে গেছেন। বঙ্গবন্ধুই প্রথমে শ্রমিক কল্যাণ ফাউন্ডেশন তহবিল গঠন করেছিলেন। খুলনার বন্ধকৃত পাটকলগুলো চালু করার পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে। ২০৪১ সালের মধ্যে দেশ হবে উন্নত-সমৃদ্ধ স্মার্ট বাংলাদেশ। শ্রম মন্ত্রণালয়ের অধীন শ্রমিক কল্যাণ তহবিল থেকে শ্রমিকদের আরো বেশি বেশি সহায়তা প্রদান করা হবে বলে তিনি শ্রমিকদের আশ্বাস দেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন খুলনার জেলা প্রশাসক খন্দকার ইয়াসির আরেফীন ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমডিএ বাবুল রানা। খুলনা বিভাগীয় শ্রম দপ্তরের পরিচালক মোঃ মিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মহানগর শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক রণজিৎ কুমার ঘোষ অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন।

এসময় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) পুলক কুমার মন্ডল, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (এলএ) আতিকুল ইসলাম, বিজেএ’র চেয়ারম্যান শেখ সৈয়দ আলী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। সভায় জানানো হয়, শ্রমজীবী মানুষের কল্যাণে এ পর্যন্ত খুলনা বিভাগে ১০ কোটি টাকা এবং জেলায় প্রায় আট কোটি টাকার অনুদানের চেক বিতরণ করা হয়েছে। চেক প্রদান অনুষ্ঠানে খুলনা সদরে ৬০ জন, সোনাডাঙ্গা থানার ৫০ জন, রূপসা উপজেলার ২৯ জন, বটিয়াঘাটায় সাতজন, পাইকগাছায় দুইজন, তেরখাদা উপজেলার একজন এবং খুলনার অন্যান্য জেলায় ২১ জনসহ মোট একশত ৭১ জন শ্রমিকের মাঝে সহায়তার চেক প্রদান করা হয়। ##

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

Dainik adhumati

জনপ্রিয়

খুলনায় একশ ৭১ শ্রমিককে প্রায় ৮৯ লাখ টাকা আর্থিক সহায়তার চেক বিতরন

প্রকাশিত সময় : ০৯:০০:৫৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

###    খুলনা সদর, সোনাডাঙ্গা, রূপসা, বাটিয়াঘাটা, পাইকগাছা ও তেরখাদা উপজেলাসহ খুলনা বিভাগের অন্যান্য জেলায় মোট একশ ৭১ শ্রমিককে ৮৮ লাখ ৬০ হাজার টাকার আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। সোমবার বিকেলে খুলনা বিভাগীয় শ্রম দপ্তর প্রাঙ্গণে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অধীন বাংলাদেশ শ্রমিক কল্যাণ ফাউন্ডেশন তহবিল থেকে চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে জেলার প্রাতিষ্ঠানিক-অপ্রাতিষ্ঠানিক সেক্টরের শ্রমিক ও কর্মচারী এবং তাঁদের পরিবারের সদস্যদের চিকিৎসা ও সন্তানের উচ্চশিক্ষার জন্য পরিবারের হাতে আর্থিক সহায়তার চেক তুলে দেন। অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক এবং খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য সেখ সালাহউদ্দিন জুয়েল। প্রধান অতিথির বক্তৃতায় শ্রম প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শ্রমবান্ধব সরকার। কোন শ্রমিক অসহায় থাকবে না। তারই ধারবাহিকতায় শ্রমিকের জীবনযাত্রার মান উন্নয়ন এবং তাদের অধিকার ও কল্যাণ নিশ্চিতে নানাবিধ কার্যক্রম গ্রহণ করে যাচ্ছে। বর্তমানে এই তহবিলে সাতশত কোটি টাকা গচ্ছিত রয়েছে। এ পর্যন্ত প্রায় ২০ হাজার অসহায় শ্রমিকদের মাঝে ৯২ কোটি টাকার অধিক অনুদান প্রদান করা হয়েছে। শ্রম প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শ্রমজীবী ও কৃষকের বন্ধু ছিলেন। বঙ্গবন্ধু আজীবন শ্রমিকদের কল্যাণে কাজ করে গেছেন। বঙ্গবন্ধুই প্রথমে শ্রমিক কল্যাণ ফাউন্ডেশন তহবিল গঠন করেছিলেন। খুলনার বন্ধকৃত পাটকলগুলো চালু করার পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে। ২০৪১ সালের মধ্যে দেশ হবে উন্নত-সমৃদ্ধ স্মার্ট বাংলাদেশ। শ্রম মন্ত্রণালয়ের অধীন শ্রমিক কল্যাণ তহবিল থেকে শ্রমিকদের আরো বেশি বেশি সহায়তা প্রদান করা হবে বলে তিনি শ্রমিকদের আশ্বাস দেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন খুলনার জেলা প্রশাসক খন্দকার ইয়াসির আরেফীন ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমডিএ বাবুল রানা। খুলনা বিভাগীয় শ্রম দপ্তরের পরিচালক মোঃ মিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মহানগর শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক রণজিৎ কুমার ঘোষ অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন।

এসময় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) পুলক কুমার মন্ডল, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (এলএ) আতিকুল ইসলাম, বিজেএ’র চেয়ারম্যান শেখ সৈয়দ আলী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। সভায় জানানো হয়, শ্রমজীবী মানুষের কল্যাণে এ পর্যন্ত খুলনা বিভাগে ১০ কোটি টাকা এবং জেলায় প্রায় আট কোটি টাকার অনুদানের চেক বিতরণ করা হয়েছে। চেক প্রদান অনুষ্ঠানে খুলনা সদরে ৬০ জন, সোনাডাঙ্গা থানার ৫০ জন, রূপসা উপজেলার ২৯ জন, বটিয়াঘাটায় সাতজন, পাইকগাছায় দুইজন, তেরখাদা উপজেলার একজন এবং খুলনার অন্যান্য জেলায় ২১ জনসহ মোট একশত ৭১ জন শ্রমিকের মাঝে সহায়তার চেক প্রদান করা হয়। ##