০৬:১১ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

গোপনীয় আইনে সু চির তিন বছরের কারাদণ্ড

  • মধুমতি ডেস্ক :
  • প্রকাশিত সময় : ০৭:২৭:৩৪ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২
  • ৫৮ পড়েছেন

মিয়ানমারের একটি জান্তা আদালত ক্ষমতাচ্যুত নেত্রী অং সান সু চিকে রাষ্ট্রীয় গোপনীয়তা আইনে তিন বছরের সাজা দিয়েছে। মামলা সম্পর্কে জ্ঞাত একটি সূত্র আজ বৃহস্পতিবার এ কথা জানায়। নাম প্রকাশ না করার শর্তে সূত্রটি এএফপিকে জানায়, সু চি এবং অস্ট্রেলিয়ান শন টার্নেল উভয়কে রাষ্ট্রীয় গোপনীয়তা আইনের অধীনে ‘তিন বছরের কারাদণ্ড’ দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) মিয়ানমারের একটি আদালত তাদের এই কারাদণ্ড দেন।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, তিন বছর করে তাদের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে একটি সরকারি গোপনীয়তা আইন লঙ্ঘনের অভিযোগ আনা হয়েছিল। যার সর্বোচ্চ সাজা ১৪ বছরের কারাদণ্ড। আদালতে সু চি ও শন টার্নেল নিজেদের নির্দোষ বলে দাবি করেন।

গত বছর সামরিক অভ্যুত্থানের পর সুচিসহ তার বেশ কয়েকজন অর্থনৈতিক উপদেষ্টা, রাজনীতিক, আইনপ্রণেতা, কূটনীতিক ও সাংবাদিকদের গ্রেপ্তার করে জান্তা সরকার। এরপর সু চির বিরুদ্ধে একের পর এক অভিযোগ এনে সামরিক সরকার মামলা করে।

ইতোমধ্যে সু চি বিভিন্ন মামলায় মোট ১৭ বছরের কারাদণ্ড পেয়েছেন। এর বেশির ভাগ মামলা ছিল দুর্নীতির। সু চি তার বিরুদ্ধে সব মামলার অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে আসছেন।

সূত্র : রয়টার্স।

 

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

dainik madhumati

জনপ্রিয়

মোল্লাহাটে বিয়ের জন্য মেয়েকে পছন্দ না করায় ছেলের ভগ্নিপতিকে হত্যা, আহত ১০

গোপনীয় আইনে সু চির তিন বছরের কারাদণ্ড

প্রকাশিত সময় : ০৭:২৭:৩৪ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২

মিয়ানমারের একটি জান্তা আদালত ক্ষমতাচ্যুত নেত্রী অং সান সু চিকে রাষ্ট্রীয় গোপনীয়তা আইনে তিন বছরের সাজা দিয়েছে। মামলা সম্পর্কে জ্ঞাত একটি সূত্র আজ বৃহস্পতিবার এ কথা জানায়। নাম প্রকাশ না করার শর্তে সূত্রটি এএফপিকে জানায়, সু চি এবং অস্ট্রেলিয়ান শন টার্নেল উভয়কে রাষ্ট্রীয় গোপনীয়তা আইনের অধীনে ‘তিন বছরের কারাদণ্ড’ দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) মিয়ানমারের একটি আদালত তাদের এই কারাদণ্ড দেন।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, তিন বছর করে তাদের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে একটি সরকারি গোপনীয়তা আইন লঙ্ঘনের অভিযোগ আনা হয়েছিল। যার সর্বোচ্চ সাজা ১৪ বছরের কারাদণ্ড। আদালতে সু চি ও শন টার্নেল নিজেদের নির্দোষ বলে দাবি করেন।

গত বছর সামরিক অভ্যুত্থানের পর সুচিসহ তার বেশ কয়েকজন অর্থনৈতিক উপদেষ্টা, রাজনীতিক, আইনপ্রণেতা, কূটনীতিক ও সাংবাদিকদের গ্রেপ্তার করে জান্তা সরকার। এরপর সু চির বিরুদ্ধে একের পর এক অভিযোগ এনে সামরিক সরকার মামলা করে।

ইতোমধ্যে সু চি বিভিন্ন মামলায় মোট ১৭ বছরের কারাদণ্ড পেয়েছেন। এর বেশির ভাগ মামলা ছিল দুর্নীতির। সু চি তার বিরুদ্ধে সব মামলার অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে আসছেন।

সূত্র : রয়টার্স।