০৪:৪৯ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গোপালগঞ্জে ঢাকা-খুলনা মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ

  • সংবাদদাতা
  • প্রকাশিত সময় : ০৪:৩০:১২ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৭ অগাস্ট ২০২২
  • ৩৭ পড়েছেন

গোপালগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় ফরহাদ শেখ নামে এক ব্যবসায়ী নিহতের ঘটনায় মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে গ্রামবাসী।

শনিবার (২৭ আগস্ট) বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার গোপীনাথপুর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় এ অবরোধ করা হয়।

এ সময় রাস্তার উভয় পাশে বিভিন্ন ধরনের যানবাহন আটকা পড়ে। বিক্ষোভে শুকতাইল গ্রামের শত শত গ্রামবাসী মহাসড়কে আগুন জ্বালিয়ে অবরোধ করে। এ সময় তারা মহাসড়ক সম্প্রসারণ ও রাস্তার উভয় পাশের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের দাবী জানান।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে অবরোধ তুলে দেওয়ার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়। পরে জেলা প্রশাসনের প্রতিনিধি হিসেবে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মহসীন উদ্দিনের আশ্বাসের ভিত্তিতে দুপুর ১২ টার দিকে অবরোধ তুলে নেয় গ্রামবাসী। পরে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক হয়।

নিহতের বড় ভাই ও শুকতাইল ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আবেদ আলী শেখ বলেছেন, বিভিন্ন প্রয়োজনে প্রতিদিন অন্তত ৫ হাজার মানুষ গোপীনাখপুর বাসস্ট্যান্ড এলাকা দিয়ে রাস্তা পারাপার হন। মহাসড়কের উভয়পাশে দোকানপাট থাকায় পথচারীরা প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছেন। তাই এ বাজার এলাকায় মহাসড়ক ও বিকল্প পারাপারের ব্যবস্থা করলে দুর্ঘটনা কমে আসবে। প্রশাসনের আশ্বাসে আমরা দুই দিনের আল্টিমেটাম দিয়ে অবরোধ তুলে নিয়েছি।

গোপালগঞ্জের গোপীনাথপুর পুলিশ ফাঁড়ি‌র পরিদর্শক মো. সাব্বির রহমান বলেন, ২৪ আগস্ট গোপীনাথপুর এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় ফরাদ শেখসহ দুইজন নিহত হন। মহাসড়কের ওই স্থান সম্প্রসারণ, অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ও বিকল্প পারাপারের ব্যবস্থার দাবিতে গ্রামবাসী ঢাকা খুলনা মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে। পরে প্রশাসনের আশ্বাসে অবরোধ তুলে নিলে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক হয়।

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

dainik madhumati

জনপ্রিয়

গলাচিপায় অবৈধ দোকান উচ্ছেদের মাধ্যমে রাস্তা উন্মুক্ত করায় প্রসংশিত মেয়র

গোপালগঞ্জে ঢাকা-খুলনা মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ

প্রকাশিত সময় : ০৪:৩০:১২ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৭ অগাস্ট ২০২২

গোপালগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় ফরহাদ শেখ নামে এক ব্যবসায়ী নিহতের ঘটনায় মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে গ্রামবাসী।

শনিবার (২৭ আগস্ট) বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার গোপীনাথপুর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় এ অবরোধ করা হয়।

এ সময় রাস্তার উভয় পাশে বিভিন্ন ধরনের যানবাহন আটকা পড়ে। বিক্ষোভে শুকতাইল গ্রামের শত শত গ্রামবাসী মহাসড়কে আগুন জ্বালিয়ে অবরোধ করে। এ সময় তারা মহাসড়ক সম্প্রসারণ ও রাস্তার উভয় পাশের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের দাবী জানান।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে অবরোধ তুলে দেওয়ার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়। পরে জেলা প্রশাসনের প্রতিনিধি হিসেবে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মহসীন উদ্দিনের আশ্বাসের ভিত্তিতে দুপুর ১২ টার দিকে অবরোধ তুলে নেয় গ্রামবাসী। পরে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক হয়।

নিহতের বড় ভাই ও শুকতাইল ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আবেদ আলী শেখ বলেছেন, বিভিন্ন প্রয়োজনে প্রতিদিন অন্তত ৫ হাজার মানুষ গোপীনাখপুর বাসস্ট্যান্ড এলাকা দিয়ে রাস্তা পারাপার হন। মহাসড়কের উভয়পাশে দোকানপাট থাকায় পথচারীরা প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছেন। তাই এ বাজার এলাকায় মহাসড়ক ও বিকল্প পারাপারের ব্যবস্থা করলে দুর্ঘটনা কমে আসবে। প্রশাসনের আশ্বাসে আমরা দুই দিনের আল্টিমেটাম দিয়ে অবরোধ তুলে নিয়েছি।

গোপালগঞ্জের গোপীনাথপুর পুলিশ ফাঁড়ি‌র পরিদর্শক মো. সাব্বির রহমান বলেন, ২৪ আগস্ট গোপীনাথপুর এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় ফরাদ শেখসহ দুইজন নিহত হন। মহাসড়কের ওই স্থান সম্প্রসারণ, অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ও বিকল্প পারাপারের ব্যবস্থার দাবিতে গ্রামবাসী ঢাকা খুলনা মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে। পরে প্রশাসনের আশ্বাসে অবরোধ তুলে নিলে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক হয়।