০৬:১৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চিশতী সোহরাব আমৃত্যু বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সেনানী ছিলেন

  • অফিস ডেক্স।।
  • প্রকাশিত সময় : ০৯:৫২:১৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৮ এপ্রিল ২০২৩
  • ৩৩ পড়েছেন

###    খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক বলেছেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা এ্যাড. চিশতী সোহরাব হোসেন শিকদার ছিলেন আওয়ামী লীগের দুঃসময়ের কান্ডারী। বঙ্গবন্ধুর নির্দেশে খুলনার রাজনীতিতে যারা সক্রিয় হন তাদের মধ্যে তিনি ছিলেন অন্যতম। তিনি পাকিস্তান আমলে হতে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে জড়িত ছিলেন। তিনি জীবনের সবকিছু ত্যাগ করে রাজনীতি করেছেন। তবুও কখনও পিছপা হননি। আমৃত্যু তিনি আওয়ামী লীগ, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, শেখ হাসিনা এবং সর্বোপরি মহান মুক্তিযুদ্ধের অনন্য এক অনুগত সেনানী ছিলেন। কখনও তিনি আদর্শ থেকে বিচ্যুৎ হননি। তিনি আরও বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা এ্যাড. চিশতী সোহরাব হোসেন শিকদার অত্যন্ত সরল মনের মানুষ ছিলেন। তিনি কখনও পদের জন্য রাজনীতি করেননি। তিনি খুলনা আওয়ামী লীগের রাজনীতিকে গতিশীল ও উজ্জীবিত করার জন্য সারাজীবন পরিশ্রম করেছেন। তার শূন্যতা খুলনা আওয়ামী লীগের জন্য অপুরনীয় ক্ষতি। তাঁর মত মুজিব আদর্শের নেতাদের ত্যাগকে সামনে নিয়ে প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনার রূপকল্প বাস্তবায়ন করতে হবে বলেও মন্তব্য করেন সিটি মেয়র।বৃহস্পতিবার বাদ মাগরিব দলীয় কার্যালয়ে সদর থানা আওয়ামী লীগ আয়োজিত বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের জাতীয় কমিটির সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা এ্যাড. চিশতী সোহরাব হোসেন শিকদারের  স্মরণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। স্মরণ সভায় আরও বক্তৃতা করেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম ডি এ বাবুল রানা। সভায় সভাপতিত্ব করেন সদর থানা আওয়ামী লীগ ও জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এ্যাড. মো. সাইফুল ইসলাম। সদর থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাউন্সিলর ফকির মো. সাইফুল ইসলামের পরিচালনায় এসময়ে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা অধ্যক্ষ শহিদুল হক মিন্টু, জামাল উদ্দিন বাচ্চু, মো. মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ, মো. জাহাঙ্গীর হোসেন খান, হাফেজ মো. শামীম, ফেরদৌস হোসেন লাবু, আব্দুল হাই পলাশ, বাবুল সরদার বাদল, এ্যাড. শামীম মোশাররফ, মো. আতাউর রহমান শিকাদর রাজু, মো. আযম খান, শেখ এশারুল হক, মো. অহিদুল ইসলাম পলাশ, বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. মোতালেব মিয়া, এস এম আসাদুজ্জামান রাসেল, এ্যাড. শামীম আহমেদ পলাশ, এ্যাড. সাজ্জাদ আলী, এস এম রফিকউদ্দিন আহমেদ রফিক, মো. আবুল হোসেন, ফেরদৌস আলম রীতা, রেখা খানম, মো. শরিফুল ইসলাম মুন্না, মো. শহীদুল হাসান, মো. জিলহজ¦ হাওলাদার, ইবনুল হাসান, মাহমুদুর রহমান রাজেস, রাহুল শাহরিয়ারসহ আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ। স্মরণ সভা শেষে মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনায় দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া পরিচালনা করেন মাওলানা মো. রফিকুল ইসলাম। ##

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

Dainik adhumati

জনপ্রিয়

গলাচিপায় অবৈধ দোকান উচ্ছেদের মাধ্যমে রাস্তা উন্মুক্ত করায় প্রসংশিত মেয়র

চিশতী সোহরাব আমৃত্যু বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সেনানী ছিলেন

প্রকাশিত সময় : ০৯:৫২:১৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৮ এপ্রিল ২০২৩

###    খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক বলেছেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা এ্যাড. চিশতী সোহরাব হোসেন শিকদার ছিলেন আওয়ামী লীগের দুঃসময়ের কান্ডারী। বঙ্গবন্ধুর নির্দেশে খুলনার রাজনীতিতে যারা সক্রিয় হন তাদের মধ্যে তিনি ছিলেন অন্যতম। তিনি পাকিস্তান আমলে হতে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে জড়িত ছিলেন। তিনি জীবনের সবকিছু ত্যাগ করে রাজনীতি করেছেন। তবুও কখনও পিছপা হননি। আমৃত্যু তিনি আওয়ামী লীগ, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, শেখ হাসিনা এবং সর্বোপরি মহান মুক্তিযুদ্ধের অনন্য এক অনুগত সেনানী ছিলেন। কখনও তিনি আদর্শ থেকে বিচ্যুৎ হননি। তিনি আরও বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা এ্যাড. চিশতী সোহরাব হোসেন শিকদার অত্যন্ত সরল মনের মানুষ ছিলেন। তিনি কখনও পদের জন্য রাজনীতি করেননি। তিনি খুলনা আওয়ামী লীগের রাজনীতিকে গতিশীল ও উজ্জীবিত করার জন্য সারাজীবন পরিশ্রম করেছেন। তার শূন্যতা খুলনা আওয়ামী লীগের জন্য অপুরনীয় ক্ষতি। তাঁর মত মুজিব আদর্শের নেতাদের ত্যাগকে সামনে নিয়ে প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনার রূপকল্প বাস্তবায়ন করতে হবে বলেও মন্তব্য করেন সিটি মেয়র।বৃহস্পতিবার বাদ মাগরিব দলীয় কার্যালয়ে সদর থানা আওয়ামী লীগ আয়োজিত বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের জাতীয় কমিটির সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা এ্যাড. চিশতী সোহরাব হোসেন শিকদারের  স্মরণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। স্মরণ সভায় আরও বক্তৃতা করেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম ডি এ বাবুল রানা। সভায় সভাপতিত্ব করেন সদর থানা আওয়ামী লীগ ও জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এ্যাড. মো. সাইফুল ইসলাম। সদর থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাউন্সিলর ফকির মো. সাইফুল ইসলামের পরিচালনায় এসময়ে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা অধ্যক্ষ শহিদুল হক মিন্টু, জামাল উদ্দিন বাচ্চু, মো. মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ, মো. জাহাঙ্গীর হোসেন খান, হাফেজ মো. শামীম, ফেরদৌস হোসেন লাবু, আব্দুল হাই পলাশ, বাবুল সরদার বাদল, এ্যাড. শামীম মোশাররফ, মো. আতাউর রহমান শিকাদর রাজু, মো. আযম খান, শেখ এশারুল হক, মো. অহিদুল ইসলাম পলাশ, বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. মোতালেব মিয়া, এস এম আসাদুজ্জামান রাসেল, এ্যাড. শামীম আহমেদ পলাশ, এ্যাড. সাজ্জাদ আলী, এস এম রফিকউদ্দিন আহমেদ রফিক, মো. আবুল হোসেন, ফেরদৌস আলম রীতা, রেখা খানম, মো. শরিফুল ইসলাম মুন্না, মো. শহীদুল হাসান, মো. জিলহজ¦ হাওলাদার, ইবনুল হাসান, মাহমুদুর রহমান রাজেস, রাহুল শাহরিয়ারসহ আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ। স্মরণ সভা শেষে মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনায় দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া পরিচালনা করেন মাওলানা মো. রফিকুল ইসলাম। ##