০৬:১৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জনগণের চাওয়া-পাওয়া স্বৈরাচারী সরকারের খাচায় বন্দি : জামায়াত

###    বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় মজলিসে শুরা সদস্য ও খুলনা মহানগরী আমীর অধ্যাপক মাহ্ফুজুর রহমান বলেছেন, ফ্যাসিবাদের অত্যাচার নির্যাতন যত বাড়বে ইসলামী আন্দোলনও তত বেগবান হবে। সরকারের ওপর জনগণের অনাস্থার কারণে জঘন্য হত্যাকান্ডে জনগণ বিম্মিত ও সোচ্চার হলেও তারা ন্যায় বিচারের আশা করতে পারছেনা। স্বাধীনতার ৫০বছর পরও এখনও একটি শিশু অসহায়। জুলুম, নিপীড়ন, নির্যাতন, খুন, গুম, হত্যাকান্ড এবং অবরুদ্ধ বাকস্বাধীনতা বাংলাদেশের বর্তমান সমাজচিত্র। কিন্তু এ কথা প্রনিধান যোগ্য যে কোন অত্যাচারী শাসক চিরস্থায়ী ক্ষমতায় থাকতে পারে না। দেশীয় কৃষ্টি-সংস্কৃতি, সামাজিক ও নৈতিক মূল্যবোধ আজ অবহেলিত। সংস্কৃতির নামে বিদেশি অপসংস্কৃতিকে জোরপূর্বক জাতির ঘাড়ে চাপানো হচ্ছে। জনগণের প্রত্যাশা ছিল তারা তাদের মৌলিক অধিকারের নিশ্চয়তা পাবে, নিজের পছন্দের প্রার্থীকে নির্বাচিত করার ভোটাধিকার পাবে, ইজ্জত ও সম্মান নিয়ে বেঁচে থাকার গ্যারান্টি পাবে, সভা-সমাবেশ, চলাফেরা ও কথা বলার অধিকার পাবে। আজ জনগণের সকল চাওয়া পাওয়া বাকশাল প্রতিষ্ঠাকারী স্বৈরাচার সরকারের খাচায় বন্দি।বুধবার নগরীর একটি কনফারেন্স রুমে কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসূচীর অংশ হিসেবে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী খুলনা মহানগরী শাখার উদ্যোগে বাকশাল প্রতিষ্ঠা ও গণতন্ত্র হত্যার প্রতিবাদে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। আলোচনা সভায় খুলনা মহানগরী জামায়াতের নায়েবে আমীর অধ্যাপক নজিবুর রহমান, সেক্রেটারী এ্যাডঃ শেখ জাহাঙ্গীর হুসাইন হেলাল, সহকারী সেক্রেটারী এ্যাডঃ মুহাম্মদ শাহ আলম, বাংলাদেশ শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশন খুলনা মহানগরী সভাপতি আজিজুল ইসলাম ফারাজী প্রমূখ বক্তৃতা করেন।##

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

Dainik Madhumati

জনপ্রিয়

দেবহাটায় জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন এ্যাডভোকেসি সভা অনুষ্ঠিত 

জনগণের চাওয়া-পাওয়া স্বৈরাচারী সরকারের খাচায় বন্দি : জামায়াত

প্রকাশিত সময় : ১২:৫২:৪৬ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২৩

###    বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় মজলিসে শুরা সদস্য ও খুলনা মহানগরী আমীর অধ্যাপক মাহ্ফুজুর রহমান বলেছেন, ফ্যাসিবাদের অত্যাচার নির্যাতন যত বাড়বে ইসলামী আন্দোলনও তত বেগবান হবে। সরকারের ওপর জনগণের অনাস্থার কারণে জঘন্য হত্যাকান্ডে জনগণ বিম্মিত ও সোচ্চার হলেও তারা ন্যায় বিচারের আশা করতে পারছেনা। স্বাধীনতার ৫০বছর পরও এখনও একটি শিশু অসহায়। জুলুম, নিপীড়ন, নির্যাতন, খুন, গুম, হত্যাকান্ড এবং অবরুদ্ধ বাকস্বাধীনতা বাংলাদেশের বর্তমান সমাজচিত্র। কিন্তু এ কথা প্রনিধান যোগ্য যে কোন অত্যাচারী শাসক চিরস্থায়ী ক্ষমতায় থাকতে পারে না। দেশীয় কৃষ্টি-সংস্কৃতি, সামাজিক ও নৈতিক মূল্যবোধ আজ অবহেলিত। সংস্কৃতির নামে বিদেশি অপসংস্কৃতিকে জোরপূর্বক জাতির ঘাড়ে চাপানো হচ্ছে। জনগণের প্রত্যাশা ছিল তারা তাদের মৌলিক অধিকারের নিশ্চয়তা পাবে, নিজের পছন্দের প্রার্থীকে নির্বাচিত করার ভোটাধিকার পাবে, ইজ্জত ও সম্মান নিয়ে বেঁচে থাকার গ্যারান্টি পাবে, সভা-সমাবেশ, চলাফেরা ও কথা বলার অধিকার পাবে। আজ জনগণের সকল চাওয়া পাওয়া বাকশাল প্রতিষ্ঠাকারী স্বৈরাচার সরকারের খাচায় বন্দি।বুধবার নগরীর একটি কনফারেন্স রুমে কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসূচীর অংশ হিসেবে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী খুলনা মহানগরী শাখার উদ্যোগে বাকশাল প্রতিষ্ঠা ও গণতন্ত্র হত্যার প্রতিবাদে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। আলোচনা সভায় খুলনা মহানগরী জামায়াতের নায়েবে আমীর অধ্যাপক নজিবুর রহমান, সেক্রেটারী এ্যাডঃ শেখ জাহাঙ্গীর হুসাইন হেলাল, সহকারী সেক্রেটারী এ্যাডঃ মুহাম্মদ শাহ আলম, বাংলাদেশ শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশন খুলনা মহানগরী সভাপতি আজিজুল ইসলাম ফারাজী প্রমূখ বক্তৃতা করেন।##