০৯:২৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

জয়পুরহাটে ট্রেনে কাটা পড়ে প্রাণ একজন নিহত

###     বগুরার জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে ট্রেনে কাটা পড়ে জালাল ব্যাপারী (৪০) নামে এক যুবক নিহত হয়েছে। সে বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার নয়াপাড়া মনুমালা গ্রামের আবদুল কাদের ব্যাপারীর ছেলে। মঙ্গলবার সকাল সাতটার দিকে আক্কেলপুর রেল স্টেশনের অদূরে হাস্তাবসন্তপুর রেল ক্রসিংয়ে আপ-১১ ঈদ স্পেশাল ট্রেনে এ দুর্ঘটনা ঘটে। আক্কেলপুর স্টেশনের দায়িত্বরত স্টেশন কর্মকর্তা হাছিবুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। হাছিবুর রহমান জানান, ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা পার্বতীপুরগামী আপ-১১ ঈদ স্পেশাল ট্রেনটি আক্কেলপুর স্টেশনে প্রবেশের আগে সকাল সাতটার দিকে হাস্তাবসন্তপুর রেল ক্রসিংয়ে ট্রেনে কাটা পড়ে জালাল হোসেন নিহত হন। খবর পেয়ে নিহতের কাছে পাওয়া মোবাইল এর সূত্র ধরে তার পরিচয় নিশ্চিত হওয়া গেছে। সে অপ্রকৃতিস্থ ছিল। ঈদের এক সপ্তাহ আগে থেকে সে বাড়ি থেকে নিরুদ্দেশ হয়। আইনগত প্রক্রিয়ার জন্য বিষয়টি সান্তাহার রেলওয়ে থানা পুলিশকে জানানো হয়েছে। নিহতের চাচাতো ভাই মোশারফ হোসেন ব্যাপারী মোবাইল ফোনে জানান, নিহত জালাল ব্যাপারী তার চাচাতো বড় ভাই। তার তিন মেয়ে আছে। সে বেশ কিছুদিন থেকে অপ্রকৃতিস্থ হয়ে পড়লে পাবনা মেন্টাল হাসপাতালে তার চিকিৎসা করা হয়। এরপর বগুড়ায় তার চিকিৎসা চলছিল। সে সবসময়  ঘরেই চুপচাপ থাকতো। হঠাৎ করে ঈদের সাত দিন আগে থেকে সে কাউকে না বলে নিরুদ্দেশ হয়। অনেক খোঁজাখুঁজি করেও তাকে পাওয়া যায়নি। আজকে সকালে মোবাইল ফোনে আক্কেলপুর স্টেশন কর্মকর্তা হাছিবুর রহমানের মাধ্যমে তারা তার মৃত্যুর খবর পেয়েছে। সান্তাহার রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মুক্তার হোসেন জানান, ‘নিহতের বিষয়ে তথ্য প্রমাণ নিশ্চিত হলে আইনগত প্রক্রিয়া শেষ করে মরদেহ হস্তান্তর করা হবে।##

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

Dainik adhumati

জনপ্রিয়

বাকেরগঞ্জে কৃষি ব্যাংকের গ্রাহকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা

জয়পুরহাটে ট্রেনে কাটা পড়ে প্রাণ একজন নিহত

প্রকাশিত সময় : ০২:৫৩:৫০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৩

###     বগুরার জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে ট্রেনে কাটা পড়ে জালাল ব্যাপারী (৪০) নামে এক যুবক নিহত হয়েছে। সে বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার নয়াপাড়া মনুমালা গ্রামের আবদুল কাদের ব্যাপারীর ছেলে। মঙ্গলবার সকাল সাতটার দিকে আক্কেলপুর রেল স্টেশনের অদূরে হাস্তাবসন্তপুর রেল ক্রসিংয়ে আপ-১১ ঈদ স্পেশাল ট্রেনে এ দুর্ঘটনা ঘটে। আক্কেলপুর স্টেশনের দায়িত্বরত স্টেশন কর্মকর্তা হাছিবুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। হাছিবুর রহমান জানান, ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা পার্বতীপুরগামী আপ-১১ ঈদ স্পেশাল ট্রেনটি আক্কেলপুর স্টেশনে প্রবেশের আগে সকাল সাতটার দিকে হাস্তাবসন্তপুর রেল ক্রসিংয়ে ট্রেনে কাটা পড়ে জালাল হোসেন নিহত হন। খবর পেয়ে নিহতের কাছে পাওয়া মোবাইল এর সূত্র ধরে তার পরিচয় নিশ্চিত হওয়া গেছে। সে অপ্রকৃতিস্থ ছিল। ঈদের এক সপ্তাহ আগে থেকে সে বাড়ি থেকে নিরুদ্দেশ হয়। আইনগত প্রক্রিয়ার জন্য বিষয়টি সান্তাহার রেলওয়ে থানা পুলিশকে জানানো হয়েছে। নিহতের চাচাতো ভাই মোশারফ হোসেন ব্যাপারী মোবাইল ফোনে জানান, নিহত জালাল ব্যাপারী তার চাচাতো বড় ভাই। তার তিন মেয়ে আছে। সে বেশ কিছুদিন থেকে অপ্রকৃতিস্থ হয়ে পড়লে পাবনা মেন্টাল হাসপাতালে তার চিকিৎসা করা হয়। এরপর বগুড়ায় তার চিকিৎসা চলছিল। সে সবসময়  ঘরেই চুপচাপ থাকতো। হঠাৎ করে ঈদের সাত দিন আগে থেকে সে কাউকে না বলে নিরুদ্দেশ হয়। অনেক খোঁজাখুঁজি করেও তাকে পাওয়া যায়নি। আজকে সকালে মোবাইল ফোনে আক্কেলপুর স্টেশন কর্মকর্তা হাছিবুর রহমানের মাধ্যমে তারা তার মৃত্যুর খবর পেয়েছে। সান্তাহার রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মুক্তার হোসেন জানান, ‘নিহতের বিষয়ে তথ্য প্রমাণ নিশ্চিত হলে আইনগত প্রক্রিয়া শেষ করে মরদেহ হস্তান্তর করা হবে।##