০৪:১৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

টাইগারদের জন্য মিরাজ এখন দলের ‘আশীর্বাদ’

  • সংবাদদাতা
  • প্রকাশিত সময় : ০৭:১৪:০৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩
  • ৪১ পড়েছেন

###    আন্তর্জাতিক অভিষেকের পর থেকে শুরুর কয়েক বছর স্রেফ বোলার হিসেবে খেলেছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। তবে গত দেড়-দুই বছর ধরে দেখা মিলছে তার ব্যাটে আধিপত্য। মিরাজকে এমন অলরাউন্ডার হিসেবে পাওয়া দলের জন্য একপ্রকার আশীর্বাদ মনে করেন ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল। মিরাজের অলরাউন্ডার হয়ে ওঠার প্রমাণ সবশেষ সিরিজেও পেয়েছে টাইগাররা। গত ডিসেম্বরে ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশের ওয়ানডে সিরিজ জয়ের নায়ক তিনিই। প্রথম দুই ওয়ানডেতে তিনি প্রমাণ দেন ব্যাটিং সামর্থ্যের। প্রথম ম্যাচে দশম উইকেটে অবিশ্বাস্য জুটিতে মনে রাখার মতো এক জয় এনে দেন তিনি। পরের ম্যাচেও চাপের মুখে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের সঙ্গে জুটি গড়ে করেন ক্যারিয়ারের প্রথম ওয়ানডে সেঞ্চুরি। গত ফেব্রয়ারিতে চট্টগ্রামে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ওয়ানডেতে ধ্বংসস্তুপ থেকে দলকে উদ্ধার করে জয়ের পথে এগিয়ে নেওয়ায় তার ছিল বড় অবদান। এর আগে ২০২১ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে করেন প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরি। বোলিংয়ে তো মিরাজ এখন দলের বড় ভরসা। পাশাপাশি ব্যাট হাতেও নিয়মিত পারফর্ম করতে থাকায় ভারসাম্যপূর্ণ একাদশ গড়া সহজতর হয়েছে বলে মনে করেন তামিম। “সাকিব-মিরাজের মতো খেলোয়াড় থাকলে অধিনায়কের জন্য একাদশ সাজানো সহজ। আগে সাকিব ছিল একমাত্র অলরাউন্ডার। এখন মিরাজের ওপরও ব্যাটিং নিয়ে ভরসা করতে পারি। আমাদের একাদশ সাজানো সহজ হয়ে যায়। দলে বাড়তি বোলার নিতে পারি আমরা। মিরাজ যেভাবে খেলছে, আমরা ওকে ব্যাটসম্যান হিসেবে ধরতে পারি। এটি আমাদের জন্য আশীর্বাদ।” ভারতের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে ১৮৭ রানের লক্ষ্যে ৫১ রান বাকি থাকতেই ৯ উইকেট হারিয়ে ফেলেছিল বাংলাদেশ। মুস্তাফিজুর রহমানকে নিয়ে স্রের ৩৯ বলে বাকি ৫১ রান করে স্মরণীয় জয় এনে দেন মিরাজ। সেদিন ম্যাচ সেরার পুরস্কার জিতে সংবাদ সম্মেলনে এসে মিরাজ জানান, ৯ উইকেট পড়ে যাওয়ার পরও জয়ের ব্যাপারে পূর্ণ বিশ্বাস ছিল তার। মিরাজের এই বিশেষ গুণের কথাও আলাদা করে বললেন ওয়ানডে অধিনায়ক। “আমি সবসময়ই মনে করি, মিরাজের প্রতিভা অসাধারণ। পাশাপাশি নিজের ওপর বিশ্বাসও প্রবল। আপনার অসাধারণ প্রতিভা থাকতে পারে, কিন্তু নিজের ওপর বিশ্বাস না থাকলে ওই ধরনের ম্যাচ জেতানো অসম্ভব। আমি মনে করি, মিরাজের দুটিই আছে। এটি আমাদের জন্য দারুণ বিষয়। এর চেয়ে ভালো কিছু হতে পারে না।”##

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

Dainik adhumati

জনপ্রিয়

গলাচিপায় অবৈধ দোকান উচ্ছেদের মাধ্যমে রাস্তা উন্মুক্ত করায় প্রসংশিত মেয়র

টাইগারদের জন্য মিরাজ এখন দলের ‘আশীর্বাদ’

প্রকাশিত সময় : ০৭:১৪:০৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

###    আন্তর্জাতিক অভিষেকের পর থেকে শুরুর কয়েক বছর স্রেফ বোলার হিসেবে খেলেছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। তবে গত দেড়-দুই বছর ধরে দেখা মিলছে তার ব্যাটে আধিপত্য। মিরাজকে এমন অলরাউন্ডার হিসেবে পাওয়া দলের জন্য একপ্রকার আশীর্বাদ মনে করেন ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল। মিরাজের অলরাউন্ডার হয়ে ওঠার প্রমাণ সবশেষ সিরিজেও পেয়েছে টাইগাররা। গত ডিসেম্বরে ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশের ওয়ানডে সিরিজ জয়ের নায়ক তিনিই। প্রথম দুই ওয়ানডেতে তিনি প্রমাণ দেন ব্যাটিং সামর্থ্যের। প্রথম ম্যাচে দশম উইকেটে অবিশ্বাস্য জুটিতে মনে রাখার মতো এক জয় এনে দেন তিনি। পরের ম্যাচেও চাপের মুখে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের সঙ্গে জুটি গড়ে করেন ক্যারিয়ারের প্রথম ওয়ানডে সেঞ্চুরি। গত ফেব্রয়ারিতে চট্টগ্রামে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ওয়ানডেতে ধ্বংসস্তুপ থেকে দলকে উদ্ধার করে জয়ের পথে এগিয়ে নেওয়ায় তার ছিল বড় অবদান। এর আগে ২০২১ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে করেন প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরি। বোলিংয়ে তো মিরাজ এখন দলের বড় ভরসা। পাশাপাশি ব্যাট হাতেও নিয়মিত পারফর্ম করতে থাকায় ভারসাম্যপূর্ণ একাদশ গড়া সহজতর হয়েছে বলে মনে করেন তামিম। “সাকিব-মিরাজের মতো খেলোয়াড় থাকলে অধিনায়কের জন্য একাদশ সাজানো সহজ। আগে সাকিব ছিল একমাত্র অলরাউন্ডার। এখন মিরাজের ওপরও ব্যাটিং নিয়ে ভরসা করতে পারি। আমাদের একাদশ সাজানো সহজ হয়ে যায়। দলে বাড়তি বোলার নিতে পারি আমরা। মিরাজ যেভাবে খেলছে, আমরা ওকে ব্যাটসম্যান হিসেবে ধরতে পারি। এটি আমাদের জন্য আশীর্বাদ।” ভারতের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে ১৮৭ রানের লক্ষ্যে ৫১ রান বাকি থাকতেই ৯ উইকেট হারিয়ে ফেলেছিল বাংলাদেশ। মুস্তাফিজুর রহমানকে নিয়ে স্রের ৩৯ বলে বাকি ৫১ রান করে স্মরণীয় জয় এনে দেন মিরাজ। সেদিন ম্যাচ সেরার পুরস্কার জিতে সংবাদ সম্মেলনে এসে মিরাজ জানান, ৯ উইকেট পড়ে যাওয়ার পরও জয়ের ব্যাপারে পূর্ণ বিশ্বাস ছিল তার। মিরাজের এই বিশেষ গুণের কথাও আলাদা করে বললেন ওয়ানডে অধিনায়ক। “আমি সবসময়ই মনে করি, মিরাজের প্রতিভা অসাধারণ। পাশাপাশি নিজের ওপর বিশ্বাসও প্রবল। আপনার অসাধারণ প্রতিভা থাকতে পারে, কিন্তু নিজের ওপর বিশ্বাস না থাকলে ওই ধরনের ম্যাচ জেতানো অসম্ভব। আমি মনে করি, মিরাজের দুটিই আছে। এটি আমাদের জন্য দারুণ বিষয়। এর চেয়ে ভালো কিছু হতে পারে না।”##