০২:৫৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ডুমুরিয়ার সাহস ইউপি চেয়ারম্যান মাহবুবের বিরুদ্ধে ব্যবসায়ীকে মারপিট ও হত্যার হুমকির অভিযোগ , গ্রেফতার ও বিচার দাবী

  • অফিস ডেক্স।।
  • প্রকাশিত সময় : ১০:০৬:১৭ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৩
  • ৩৬ পড়েছেন

###    খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলার সাহস ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা মোহাম্মদ মাহাবুবুর রহমানের বিরুদ্ধে ব্যবসায়ী মোঃ শফিকুল ইসলাম সুমনকে মারপিট ও হত্যার হুমকির অভিযোগ উঠেছে।একই সাথে ভুমিদস্যু, নাশকতার মামলার আসামী বিএনপি-জামায়াত নেতা মাহবুবকে গ্রেফতার ও কঠোর শাস্তির দাবীও জানিয়েছেন ভুক্তয়োগীরা। বুধবার বেলা সাড়ে ১১টায় খুলনা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে জমি ব্যবসায়ী মোঃ শফিকুল ইসলাম সুমন এই অভিযোগ করে গ্রেফতারের দাবী জানান। লিখিত বক্তব্য তিনি বলেন, চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান জমি সংক্রান্ত মামলায় হেরে গিয়ে তাকে বিভিন্ন প্রকার হুমকি ধামকি প্রদান করে। সর্বশেষ গত ১০ এপ্রিল সোমবার নিজ অফিস থেকে বাড়ি ফেরার পথে অগ্রনী ব্যাংক কোয়ার্টার গলির সামনে চেয়ারম্যান মাহাবুবুর রহমান সহ অজ্ঞাতনামা আরও অনেকে মটর সাইকেল যোগে গাড়ীর পথ রোধ করে এবং তার জামার কলার ধরে গাড়ী থেকে নামিয়ে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে শরীরিক ভাবে লাঞ্ছিত করে। তখন ভয়ে চিৎকার, চেঁচামেচি করলে আশেপাশের লোকজন উপস্থিত হয়ে তাকে সন্ত্রাসীদের হাত থেকে রক্ষা করে। তারা ঘটনাস্থল ত্যাগ করার সময় তপশীল ভূক্ত জমিতে না যেতে হুমকি দিয়ে  হত্যা এবং লাশ গুম করে ফেলার ভয়ভীতি প্রদান করে। তিনি হামলা ও হুমকির বিষয়ে খুলনা সদর থানায় চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমানসহ অজ্ঞাতনামাদের বিরুদ্ধে সাধারণ ডায়েরি করেছেন বলে জানান।

অভিযোগে আরো বলা হয়, মাহবুব মোল্লা একজন চিহ্নিত সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, মাদক ব্যবসায়ী এবং ভূমিদস্যু। মাহাবুব জামাত নেতা গোলাম পরোয়ারের অর্থ যোগান দাতা এবং শিবিরের পেশি শক্তির জোরে ডুমরিয়া ৯নং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হয়েছে। সে সরকার বিরোধী নাশকতার মামলার আসামী। ডুমরিয়া উপজেলা বিভিন্ন সাধারন নিরীহ মানুষের জমি দখল করে বিক্রি করে দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। এছাড়া শের এ বাংলা রোড সংলগ্ন দরগাপাড়া প্রধান সড়কের লন্ডন প্রবাসি রাবেয়া হাসানের স্বামী-মুন্জুর হাসানের সম্পত্তি জরব দখল করে মাহাবুব তার অফিস ও মার্কেটি করেছে। এছাড়া চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমানের সন্ত্রাসী বাহিনী এক যুবলীগ নেতাকে মারধর করে মারাত্মকভাবে আহত করে।

তিনি আরও বলেন, মাহবুবুর রহমানের সন্ত্রাসী বাহিনী গত বছর সাহস ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের অফিস ভাংচুর করে সেই খবর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট করায় তখন সাহস ইউনিয়ন যুবলীগের সদস্য খলিল গাজী উপর পূর্বপরিকল্পিতভাবে তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে সন্ত্রাসী হামলা চালায়। ভূমিদস্যু মাহাবুব বিএনপির সক্রিয় নেতা, তার সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে এলাকার মানুষ অতিষ্ট। সে এলাকার নির্বাচিত চেয়ারম্যান হয়েও ইউনিয়ন পরিষদের কোন কার্যক্রমে তাকে দেখা যায় না। খুলনার ভূমি দখল, চাঁদাবাজী ও সন্ত্রাসী কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে দীর্ঘদিন ধরে। মাহাবুব এবং তার সন্ত্রাসী বাহিনীর বিরুদ্ধে সাধারণ মানুষ কথা বলতেও ভয় পায় বলেও তিনি সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেন। সংবাদ সম্মেলনে শফিকুল ইসলাম সুমন চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও ভূমিদস্যু মাহাবুব এবং তার সহযোগীদের দ্রুত আটক করে বিচারের আওতায় আনতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও প্রশাসনের প্রতি দাবি জানান। ##

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

Dainik adhumati

জনপ্রিয়

ডুমুরিয়ার সাহস ইউপি চেয়ারম্যান মাহবুবের বিরুদ্ধে ব্যবসায়ীকে মারপিট ও হত্যার হুমকির অভিযোগ , গ্রেফতার ও বিচার দাবী

প্রকাশিত সময় : ১০:০৬:১৭ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৩

###    খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলার সাহস ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা মোহাম্মদ মাহাবুবুর রহমানের বিরুদ্ধে ব্যবসায়ী মোঃ শফিকুল ইসলাম সুমনকে মারপিট ও হত্যার হুমকির অভিযোগ উঠেছে।একই সাথে ভুমিদস্যু, নাশকতার মামলার আসামী বিএনপি-জামায়াত নেতা মাহবুবকে গ্রেফতার ও কঠোর শাস্তির দাবীও জানিয়েছেন ভুক্তয়োগীরা। বুধবার বেলা সাড়ে ১১টায় খুলনা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে জমি ব্যবসায়ী মোঃ শফিকুল ইসলাম সুমন এই অভিযোগ করে গ্রেফতারের দাবী জানান। লিখিত বক্তব্য তিনি বলেন, চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান জমি সংক্রান্ত মামলায় হেরে গিয়ে তাকে বিভিন্ন প্রকার হুমকি ধামকি প্রদান করে। সর্বশেষ গত ১০ এপ্রিল সোমবার নিজ অফিস থেকে বাড়ি ফেরার পথে অগ্রনী ব্যাংক কোয়ার্টার গলির সামনে চেয়ারম্যান মাহাবুবুর রহমান সহ অজ্ঞাতনামা আরও অনেকে মটর সাইকেল যোগে গাড়ীর পথ রোধ করে এবং তার জামার কলার ধরে গাড়ী থেকে নামিয়ে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে শরীরিক ভাবে লাঞ্ছিত করে। তখন ভয়ে চিৎকার, চেঁচামেচি করলে আশেপাশের লোকজন উপস্থিত হয়ে তাকে সন্ত্রাসীদের হাত থেকে রক্ষা করে। তারা ঘটনাস্থল ত্যাগ করার সময় তপশীল ভূক্ত জমিতে না যেতে হুমকি দিয়ে  হত্যা এবং লাশ গুম করে ফেলার ভয়ভীতি প্রদান করে। তিনি হামলা ও হুমকির বিষয়ে খুলনা সদর থানায় চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমানসহ অজ্ঞাতনামাদের বিরুদ্ধে সাধারণ ডায়েরি করেছেন বলে জানান।

অভিযোগে আরো বলা হয়, মাহবুব মোল্লা একজন চিহ্নিত সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, মাদক ব্যবসায়ী এবং ভূমিদস্যু। মাহাবুব জামাত নেতা গোলাম পরোয়ারের অর্থ যোগান দাতা এবং শিবিরের পেশি শক্তির জোরে ডুমরিয়া ৯নং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হয়েছে। সে সরকার বিরোধী নাশকতার মামলার আসামী। ডুমরিয়া উপজেলা বিভিন্ন সাধারন নিরীহ মানুষের জমি দখল করে বিক্রি করে দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। এছাড়া শের এ বাংলা রোড সংলগ্ন দরগাপাড়া প্রধান সড়কের লন্ডন প্রবাসি রাবেয়া হাসানের স্বামী-মুন্জুর হাসানের সম্পত্তি জরব দখল করে মাহাবুব তার অফিস ও মার্কেটি করেছে। এছাড়া চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমানের সন্ত্রাসী বাহিনী এক যুবলীগ নেতাকে মারধর করে মারাত্মকভাবে আহত করে।

তিনি আরও বলেন, মাহবুবুর রহমানের সন্ত্রাসী বাহিনী গত বছর সাহস ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের অফিস ভাংচুর করে সেই খবর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট করায় তখন সাহস ইউনিয়ন যুবলীগের সদস্য খলিল গাজী উপর পূর্বপরিকল্পিতভাবে তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে সন্ত্রাসী হামলা চালায়। ভূমিদস্যু মাহাবুব বিএনপির সক্রিয় নেতা, তার সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে এলাকার মানুষ অতিষ্ট। সে এলাকার নির্বাচিত চেয়ারম্যান হয়েও ইউনিয়ন পরিষদের কোন কার্যক্রমে তাকে দেখা যায় না। খুলনার ভূমি দখল, চাঁদাবাজী ও সন্ত্রাসী কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে দীর্ঘদিন ধরে। মাহাবুব এবং তার সন্ত্রাসী বাহিনীর বিরুদ্ধে সাধারণ মানুষ কথা বলতেও ভয় পায় বলেও তিনি সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেন। সংবাদ সম্মেলনে শফিকুল ইসলাম সুমন চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও ভূমিদস্যু মাহাবুব এবং তার সহযোগীদের দ্রুত আটক করে বিচারের আওতায় আনতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও প্রশাসনের প্রতি দাবি জানান। ##