০৪:৫০ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দৌলতপুরে বাদপড়া মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকাভুক্তের দাবী

###    কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে বাদপড়া মুক্তিযোদ্ধারা তালিকাভুক্ত হওয়ার দাবীতে সাংবাদিক সম্মেলন করেছে। বুধবার (২৩ নভেম্বর) বেলা ১১টায় দৌলতপুর উপজেলা চত্বরে বাদপড়া মুক্তিযোদ্ধা বাস্তবায়ন কমিটির ব্যানারে এ সাংবাদিক সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন, সাজাহান আলী। লিখিত বক্তব্যে তিনি উল্লেখ করেন, আমরা ১৯৭১ সালে বঙ্গবন্ধুর ডাকে সাড়া দিয়ে মুক্তিযুদ্ধে অংশ গ্রহণ করার জন্য ভারতের শিকারপুর রিসিপশন ক্যাম্পে ভর্তি হই। এরপর জমশেদপুর ইয়ুথ ক্যাম্পে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করি। এরপর প্রশিক্ষণপ্রাপ্তরা মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে দেশের অভ্যান্তরে বিভিন্ন যুদ্ধে অংশ গ্রহণ করেন। স্বাধীনতা লাভের পর তারা কুষ্টিয়া মিলিশিয়া ক্যাম্পে অবস্থান করে নিজ নিজ কমান্ডারের নিকট নিজেদের অস্ত্র ও গোলাবারুদ জমা দেন। এবং আতাউল গণি ওসমানির স্বাক্ষরিত সনদ গ্রহণ করেন। লিখিত বক্তব্যে আরো উল্লেখ করা হয়, পরবর্তীতে তারা মুজিব বাহিনীর সদস্য হিসাবে কাজ করেন। ২০১৪ সালে সরকারের নির্দেশনা মোতাবেক মুক্তিযোদ্ধা হিসাবে স্বীকৃতির জন্য আমরা আবেদন করলেও ২০১৭ সালে প্রহসনের যাচাই বাছাইয়ে মুক্তিযুদ্ধে আমাদের কোন অবদান নেই বলে উল্লেখ করা হয়। যা আমাদের মত মুক্তিযোদ্ধাদের কাছে অপমানজনক। সংবাদ সম্মেলনে এ সকল বাদপড়া মুক্তিযোদ্ধাগণ মুক্তিযোদ্ধা তালিকায় অন্তর্ভুক্তির জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সু-দৃষ্টি কামনা করেন। সাংবাদিক সম্মেলনে বাদপড়া মুক্তিযোদ্ধা বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি মতিউল আলমবাচ্চু ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ রেজাউল হক উপস্থিত ছিলেন। এর আগে তারা উপজেলা সড়কে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন কমরেড ফজলুল হক বুলবুল, মুজিবর রহমান, আলী হোসেন, অধ্যক্ষ রেজউল হক, মাহসিন আলী, শাহজাহান আলী মেম্বার। ##

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

Dainik Madhumati

জনপ্রিয়

রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক একীভূতকরণের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন, ষড়যন্ত্রমূলক অপতৎপরতা রুখে দাড়ানোর আহবান

দৌলতপুরে বাদপড়া মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকাভুক্তের দাবী

প্রকাশিত সময় : ০১:১৭:২২ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৪ নভেম্বর ২০২২

###    কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে বাদপড়া মুক্তিযোদ্ধারা তালিকাভুক্ত হওয়ার দাবীতে সাংবাদিক সম্মেলন করেছে। বুধবার (২৩ নভেম্বর) বেলা ১১টায় দৌলতপুর উপজেলা চত্বরে বাদপড়া মুক্তিযোদ্ধা বাস্তবায়ন কমিটির ব্যানারে এ সাংবাদিক সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন, সাজাহান আলী। লিখিত বক্তব্যে তিনি উল্লেখ করেন, আমরা ১৯৭১ সালে বঙ্গবন্ধুর ডাকে সাড়া দিয়ে মুক্তিযুদ্ধে অংশ গ্রহণ করার জন্য ভারতের শিকারপুর রিসিপশন ক্যাম্পে ভর্তি হই। এরপর জমশেদপুর ইয়ুথ ক্যাম্পে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করি। এরপর প্রশিক্ষণপ্রাপ্তরা মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে দেশের অভ্যান্তরে বিভিন্ন যুদ্ধে অংশ গ্রহণ করেন। স্বাধীনতা লাভের পর তারা কুষ্টিয়া মিলিশিয়া ক্যাম্পে অবস্থান করে নিজ নিজ কমান্ডারের নিকট নিজেদের অস্ত্র ও গোলাবারুদ জমা দেন। এবং আতাউল গণি ওসমানির স্বাক্ষরিত সনদ গ্রহণ করেন। লিখিত বক্তব্যে আরো উল্লেখ করা হয়, পরবর্তীতে তারা মুজিব বাহিনীর সদস্য হিসাবে কাজ করেন। ২০১৪ সালে সরকারের নির্দেশনা মোতাবেক মুক্তিযোদ্ধা হিসাবে স্বীকৃতির জন্য আমরা আবেদন করলেও ২০১৭ সালে প্রহসনের যাচাই বাছাইয়ে মুক্তিযুদ্ধে আমাদের কোন অবদান নেই বলে উল্লেখ করা হয়। যা আমাদের মত মুক্তিযোদ্ধাদের কাছে অপমানজনক। সংবাদ সম্মেলনে এ সকল বাদপড়া মুক্তিযোদ্ধাগণ মুক্তিযোদ্ধা তালিকায় অন্তর্ভুক্তির জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সু-দৃষ্টি কামনা করেন। সাংবাদিক সম্মেলনে বাদপড়া মুক্তিযোদ্ধা বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি মতিউল আলমবাচ্চু ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ রেজাউল হক উপস্থিত ছিলেন। এর আগে তারা উপজেলা সড়কে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন কমরেড ফজলুল হক বুলবুল, মুজিবর রহমান, আলী হোসেন, অধ্যক্ষ রেজউল হক, মাহসিন আলী, শাহজাহান আলী মেম্বার। ##