০৮:৩৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নিখোঁজের নয়দিন প‌রে ভ্যান চালক শিশুর মৃতদেহ উদ্ধার,

  • সংবাদদাতা
  • প্রকাশিত সময় : ১০:০৭:২৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২৩
  • ২৮ পড়েছেন

মোল্লাহাট (বাগেরহাট) প্রতিনিধিঃ

নিখোঁজের ৯ দিন পর অবশেষে সাব্বির শেখ নামে ভ্যানচালক শিশুর মৃতদেহ বাগেরহাটের মোল্লাহাট থেকে  উদ্ধার হয়েছে। মোল্লাহাটের পার্শ্ববর্তী তেরখাদা উপজেলার দক্ষিণ কুশলা এলাকার  নিজ বাড়ি থেকে গত ৯ জানুয়ারি সোমবার সকালে ভ্যান ও মোবাইলসহ বের হয়ে নিখোঁজ হওয়ার পর ১৭ জানুয়ারি মঙ্গলবার মোল্লাহাটের কাচনা ওয়াপদা সড়কের পাশে মেসার্স গোলেনুর এন্টারপ্রাইজ নামক পাকা দোকান (ভবনের) নিচ থেকে এ মৃতদেহ উদ্ধার হয়।

সাব্বির শেখ (১৫) দক্ষিণ কুশলা গ্রামের শেখ বোরহান ও নার্গিস বেগমের ছেলে।

সাব্বিরের পিতা শেখ বোরহান জানান, গত ৯জানুয়ারি সকাল ১০/১১ টার দিকে বাড়ি থেকে ভ্যান চালাতে বের হয় আমার ছেলে। এরপর দুপুর আড়াইটার দিকে আমি মোবাইল করলে আমার ছেলে বলে, যাত্রী নিয়ে তেরখাদা যাচ্ছি, আসরের দিকে বাড়ি আসবো। ওই সময় তার মায়ের সাথে একই কথা বলে। এরপর ফিরে না আসায় সন্ধ্যার দিকে মোবাইল করে আর সংযোগ পাওয়া যায় নাই। এরপর সম্ভাব্য সবখানে খুঁজে না পেয়ে ১১ জানুয়ারি বুধবার তেরখাদা থানায় ৪৬৬ নং জিডি করি। অবশেষে মোল্লাহাটের কাচনা এলাকায় ওয়াপদা সড়কের পাশে একটি দোকানের নিচে আমার ছেলের লাশ পাওয়া যায়। এর কিছুদিন আগে আমার ছেলে মসজিদে নামাজ আদায় করতে গেলে একটি ভ্যান চুরি করে নিয়ে যায়। তারাই আমার ছেলের কাছে থাকা মোবাইল ও ভ্যান নিয়ে তাকে খুন (হত্যা) করেছে। আমি এদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করবো।
সাব্বিরের মা অনুরূপ বক্তব্য দেন।
স্থানীয়রা জানান, সাব্বির খুব ভালো ছেলে ছিল, ভ্যান ও মোবাইল ছিনতাই সহ তাকে জারা নির্মমভাবে হত্যা করেছে তাদের খুঁজে বের করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। অন্যথায় এ ধরনের অপরাধ প্রবণতা বেড়ে যাবে।
মোল্লাহাট থানা অফিসার ইনচার্জ সোমেন দাশ জানান, স্থানীয় সুত্রে জানতে পেরে কাচনা এলাকা থেকে লাশ উদ্ধার ও সনাক্ত করা হয়। আজ (বুধবার) ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। যেহেতু এর পূর্বে পরিবারের পক্ষ থেকে সংশ্লিষ্ট তেরখাদা থানায় মিসিং ডাইরি করা আছে, সেহেতু উক্ত থানায় মামলা দায়ের করা যায়। আবার মোল্লাহাট থানা এলাকায় লাশ উদ্ধারের কারণে এখানেও (মোল্লাহাট থানা) মামলা দায়ের করতে পারেন পরিবারটি। যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণে তিনি ও তার থানা পুলিশ বদ্ধপরিকর বলেও জানান তিনি।
######

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

dainik madhumati

জনপ্রিয়

পুটিয়া উপজেলা নির্বাচনে ৩৩টি কেন্দ্র গুরুত্বপূর্ণ, কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহন

নিখোঁজের নয়দিন প‌রে ভ্যান চালক শিশুর মৃতদেহ উদ্ধার,

প্রকাশিত সময় : ১০:০৭:২৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২৩

মোল্লাহাট (বাগেরহাট) প্রতিনিধিঃ

নিখোঁজের ৯ দিন পর অবশেষে সাব্বির শেখ নামে ভ্যানচালক শিশুর মৃতদেহ বাগেরহাটের মোল্লাহাট থেকে  উদ্ধার হয়েছে। মোল্লাহাটের পার্শ্ববর্তী তেরখাদা উপজেলার দক্ষিণ কুশলা এলাকার  নিজ বাড়ি থেকে গত ৯ জানুয়ারি সোমবার সকালে ভ্যান ও মোবাইলসহ বের হয়ে নিখোঁজ হওয়ার পর ১৭ জানুয়ারি মঙ্গলবার মোল্লাহাটের কাচনা ওয়াপদা সড়কের পাশে মেসার্স গোলেনুর এন্টারপ্রাইজ নামক পাকা দোকান (ভবনের) নিচ থেকে এ মৃতদেহ উদ্ধার হয়।

সাব্বির শেখ (১৫) দক্ষিণ কুশলা গ্রামের শেখ বোরহান ও নার্গিস বেগমের ছেলে।

সাব্বিরের পিতা শেখ বোরহান জানান, গত ৯জানুয়ারি সকাল ১০/১১ টার দিকে বাড়ি থেকে ভ্যান চালাতে বের হয় আমার ছেলে। এরপর দুপুর আড়াইটার দিকে আমি মোবাইল করলে আমার ছেলে বলে, যাত্রী নিয়ে তেরখাদা যাচ্ছি, আসরের দিকে বাড়ি আসবো। ওই সময় তার মায়ের সাথে একই কথা বলে। এরপর ফিরে না আসায় সন্ধ্যার দিকে মোবাইল করে আর সংযোগ পাওয়া যায় নাই। এরপর সম্ভাব্য সবখানে খুঁজে না পেয়ে ১১ জানুয়ারি বুধবার তেরখাদা থানায় ৪৬৬ নং জিডি করি। অবশেষে মোল্লাহাটের কাচনা এলাকায় ওয়াপদা সড়কের পাশে একটি দোকানের নিচে আমার ছেলের লাশ পাওয়া যায়। এর কিছুদিন আগে আমার ছেলে মসজিদে নামাজ আদায় করতে গেলে একটি ভ্যান চুরি করে নিয়ে যায়। তারাই আমার ছেলের কাছে থাকা মোবাইল ও ভ্যান নিয়ে তাকে খুন (হত্যা) করেছে। আমি এদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করবো।
সাব্বিরের মা অনুরূপ বক্তব্য দেন।
স্থানীয়রা জানান, সাব্বির খুব ভালো ছেলে ছিল, ভ্যান ও মোবাইল ছিনতাই সহ তাকে জারা নির্মমভাবে হত্যা করেছে তাদের খুঁজে বের করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। অন্যথায় এ ধরনের অপরাধ প্রবণতা বেড়ে যাবে।
মোল্লাহাট থানা অফিসার ইনচার্জ সোমেন দাশ জানান, স্থানীয় সুত্রে জানতে পেরে কাচনা এলাকা থেকে লাশ উদ্ধার ও সনাক্ত করা হয়। আজ (বুধবার) ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। যেহেতু এর পূর্বে পরিবারের পক্ষ থেকে সংশ্লিষ্ট তেরখাদা থানায় মিসিং ডাইরি করা আছে, সেহেতু উক্ত থানায় মামলা দায়ের করা যায়। আবার মোল্লাহাট থানা এলাকায় লাশ উদ্ধারের কারণে এখানেও (মোল্লাহাট থানা) মামলা দায়ের করতে পারেন পরিবারটি। যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণে তিনি ও তার থানা পুলিশ বদ্ধপরিকর বলেও জানান তিনি।
######