০৯:৩১ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

নির্বাচন কমিশনের সাংবাদিক নীতিমালা অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের অন্তরায় : মেয়র প্রার্থী আগুয়ান-৭১

  • অফিস ডেক্স।।
  • প্রকাশিত সময় : ০৮:১৬:১৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৩
  • ৩৩ পড়েছেন

###     সিটি করপোরেশন ও জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোট গ্রহণের সময় সংবাদ সংগ্রহে নির্বাচন কমিশন প্রণীত সাংবাদিক নীতিমালা এবং বাকস্বাধীনতায় হস্তক্ষেপের হাতিয়ার ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবি জানিয়েছে খুলনা সিটি নির্বাচনে আগুয়ান-৭১ সংগঠনের মেয়র প্রার্থী মো: আবদুল্রাহ চৌধুরী। একই সাথে সম্প্রতি নির্বাচন কমিশন কর্তৃক ভোট গ্রহণের সময় সংবাদ সংগ্রহে সাংবাদিকদের জন্য  যে নীতিমালা জারি করেছে তা অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের প্রধান অন্তরায় বলে দাবী করেন। মঙ্গলবার দুপুরে খুলনা প্রেসক্লাবের হুমায়ুন কবির বালু মিলনায়তনে আগুয়ান-৭১ সংগঠনের সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবী জানান। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন আগামী ১২ই জুন খুলনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করেছে এবং আগুয়ান-৭১ এই নির্বাচনে অংশগ্রহণের ঘোষণা দিয়েছে। সংবাদকর্মী হিসেবে এই নির্বাচনের ওপর আপনাদের দৃষ্টি নিবদ্ধ আছে। বাংলাদেশে বিগত সময়ে অনুষ্ঠিত নির্বাচনের বিভিন্ন অনিয়মের চিত্র আপনারা সাহসীকতা ও দক্ষ সাংবাদিকতার মাধ্যমে দেশবাসীর কাছে তুলে ধরেছেন। ২০১৪ এবং ২০১৮ সালের দুটি জাতীয় নির্বাচনসহ এখন অবধি দেশের নানাপ্রান্তে অনুষ্ঠিত হওয়া বিভিন্ন নির্বাচন বিতর্কমুক্ত নয়, বরং সেসব নির্বাচনে ঘটে যাওয়া অনিয়ম, বিশৃঙ্খলা অন্যান্যদের মতো গণতন্ত্রকামী সংগঠন হিসেবে আগুয়ান-৭১ সংগঠনকেও ব্যথিত করে। সম্প্রতি সীমাহীন অনিয়মের ফলে নির্বাচন কমিশন গাইবান্ধা ৫ উপনির্বাচনে নির্বাচন স্থগিত করতে বাধ্য হয়েছিলো। এছাড়া সম্প্রতি চট্টগ্রাম জেলার বোয়ালখালী উপজেলা নির্বাচন চলাকালে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) ব্যালট ইউনিট ছিনতাই এর ঘটনাও আমাদের দৃষ্টিগোচর হয়েছে গণমাধ্যমের সাহসী ভূমিকা পালনের কারণে। কাজেই সম্প্রতি নির্বাচন কমিশন কর্তৃক ভোট গ্রহণের সময় সংবাদ সংগ্রহে সাংবাদিকদের জন্য যে নীতিমালা জারি করেছে আমরা মনে করি তা অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের অন্তরায়। সংবাদ সম্মেলনে আরও বলা হয়, বিগত দিনগুলোর নির্বাচন দিবালোকের মতো প্রশ্নবিদ্ধ, বিতর্কিত, একতরফা হওয়ার ফলে নির্বাচন নিয়ে সাধারণ মানুষের আগ্রহ কমেছে। এবং মানুষ ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে না পারায় একটা বড় শ্রেণির ভোটার এখন ভোটকেন্দ্র বিমুখ। সাংবাদিক মহলের ওপর নির্বাচন কমিশন কর্তৃক চাপিয়ে দেওয়া নীতিমালাটি বাতিল করা না হলে জনমনে ভোটদানে বিঘ্নতা সৃষ্টি হওয়ার শঙ্কা আরো বাড়তে থাকবে এবং একটি বড় শ্রেণি নতুন করে ভোটকেন্দ্র বিমুখ হবে। যা অবশিষ্ট গণতন্ত্রটুকুর পথ বন্ধ করার শামিল। যার দায় সম্পূর্ণরূপে নির্বাচন কমিশনকে নিতে হবে।

একটি গ্রহণযোগ্য ও কৃতীত্বপূর্ণ নির্বাচন আয়োজনের দাবি করে তারা বলেন, নির্বাচন কমিশন যদি নির্বাচনী মাঠের এসকল অপতৎপরতা নির্মূল করতে না পারে তবে খুলনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন-২০২৩ প্রশ্নবিদ্ধ হবে। এবং সন্দেহাতীতভাবে আস্থাহীনতার জন্ম দিয়ে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে আবারও কলঙ্কিত করবে। এমতাবস্থায় আগুয়ান-৭১ সংগঠন এহেন একতরফা অবিবেচনা প্রসূত নীতিমালা প্রত্যাহার করে সংবাদ মাধ্যমকে সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে পূর্ণ স্বাধীনতা দেওয়া এবং সাংবাদিক মহলসহ সকল নাগরিকের মতপ্রকাশের স্বাধীনতায় অযাচিত হস্তক্ষেপের হাতিয়ার ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবি জানান। সংবাদ সম্মেলনে আগুয়ান-৭১ সংগঠনের সংগঠক আবিদ শান্ত, নগর পরিকল্পনাবিদ ইমরান শোভন, অর্নিবান আমিন আনাসসহ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেণ। ##

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

Dainik adhumati

নির্বাচন কমিশনের সাংবাদিক নীতিমালা অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের অন্তরায় : মেয়র প্রার্থী আগুয়ান-৭১

প্রকাশিত সময় : ০৮:১৬:১৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৩

###     সিটি করপোরেশন ও জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোট গ্রহণের সময় সংবাদ সংগ্রহে নির্বাচন কমিশন প্রণীত সাংবাদিক নীতিমালা এবং বাকস্বাধীনতায় হস্তক্ষেপের হাতিয়ার ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবি জানিয়েছে খুলনা সিটি নির্বাচনে আগুয়ান-৭১ সংগঠনের মেয়র প্রার্থী মো: আবদুল্রাহ চৌধুরী। একই সাথে সম্প্রতি নির্বাচন কমিশন কর্তৃক ভোট গ্রহণের সময় সংবাদ সংগ্রহে সাংবাদিকদের জন্য  যে নীতিমালা জারি করেছে তা অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের প্রধান অন্তরায় বলে দাবী করেন। মঙ্গলবার দুপুরে খুলনা প্রেসক্লাবের হুমায়ুন কবির বালু মিলনায়তনে আগুয়ান-৭১ সংগঠনের সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবী জানান। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন আগামী ১২ই জুন খুলনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করেছে এবং আগুয়ান-৭১ এই নির্বাচনে অংশগ্রহণের ঘোষণা দিয়েছে। সংবাদকর্মী হিসেবে এই নির্বাচনের ওপর আপনাদের দৃষ্টি নিবদ্ধ আছে। বাংলাদেশে বিগত সময়ে অনুষ্ঠিত নির্বাচনের বিভিন্ন অনিয়মের চিত্র আপনারা সাহসীকতা ও দক্ষ সাংবাদিকতার মাধ্যমে দেশবাসীর কাছে তুলে ধরেছেন। ২০১৪ এবং ২০১৮ সালের দুটি জাতীয় নির্বাচনসহ এখন অবধি দেশের নানাপ্রান্তে অনুষ্ঠিত হওয়া বিভিন্ন নির্বাচন বিতর্কমুক্ত নয়, বরং সেসব নির্বাচনে ঘটে যাওয়া অনিয়ম, বিশৃঙ্খলা অন্যান্যদের মতো গণতন্ত্রকামী সংগঠন হিসেবে আগুয়ান-৭১ সংগঠনকেও ব্যথিত করে। সম্প্রতি সীমাহীন অনিয়মের ফলে নির্বাচন কমিশন গাইবান্ধা ৫ উপনির্বাচনে নির্বাচন স্থগিত করতে বাধ্য হয়েছিলো। এছাড়া সম্প্রতি চট্টগ্রাম জেলার বোয়ালখালী উপজেলা নির্বাচন চলাকালে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) ব্যালট ইউনিট ছিনতাই এর ঘটনাও আমাদের দৃষ্টিগোচর হয়েছে গণমাধ্যমের সাহসী ভূমিকা পালনের কারণে। কাজেই সম্প্রতি নির্বাচন কমিশন কর্তৃক ভোট গ্রহণের সময় সংবাদ সংগ্রহে সাংবাদিকদের জন্য যে নীতিমালা জারি করেছে আমরা মনে করি তা অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের অন্তরায়। সংবাদ সম্মেলনে আরও বলা হয়, বিগত দিনগুলোর নির্বাচন দিবালোকের মতো প্রশ্নবিদ্ধ, বিতর্কিত, একতরফা হওয়ার ফলে নির্বাচন নিয়ে সাধারণ মানুষের আগ্রহ কমেছে। এবং মানুষ ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে না পারায় একটা বড় শ্রেণির ভোটার এখন ভোটকেন্দ্র বিমুখ। সাংবাদিক মহলের ওপর নির্বাচন কমিশন কর্তৃক চাপিয়ে দেওয়া নীতিমালাটি বাতিল করা না হলে জনমনে ভোটদানে বিঘ্নতা সৃষ্টি হওয়ার শঙ্কা আরো বাড়তে থাকবে এবং একটি বড় শ্রেণি নতুন করে ভোটকেন্দ্র বিমুখ হবে। যা অবশিষ্ট গণতন্ত্রটুকুর পথ বন্ধ করার শামিল। যার দায় সম্পূর্ণরূপে নির্বাচন কমিশনকে নিতে হবে।

একটি গ্রহণযোগ্য ও কৃতীত্বপূর্ণ নির্বাচন আয়োজনের দাবি করে তারা বলেন, নির্বাচন কমিশন যদি নির্বাচনী মাঠের এসকল অপতৎপরতা নির্মূল করতে না পারে তবে খুলনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন-২০২৩ প্রশ্নবিদ্ধ হবে। এবং সন্দেহাতীতভাবে আস্থাহীনতার জন্ম দিয়ে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে আবারও কলঙ্কিত করবে। এমতাবস্থায় আগুয়ান-৭১ সংগঠন এহেন একতরফা অবিবেচনা প্রসূত নীতিমালা প্রত্যাহার করে সংবাদ মাধ্যমকে সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে পূর্ণ স্বাধীনতা দেওয়া এবং সাংবাদিক মহলসহ সকল নাগরিকের মতপ্রকাশের স্বাধীনতায় অযাচিত হস্তক্ষেপের হাতিয়ার ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবি জানান। সংবাদ সম্মেলনে আগুয়ান-৭১ সংগঠনের সংগঠক আবিদ শান্ত, নগর পরিকল্পনাবিদ ইমরান শোভন, অর্নিবান আমিন আনাসসহ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেণ। ##