০৯:২৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

পটুয়াখালীতে আ’লীগের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি , শান্তিপূর্ন বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত

### পুলিশ ও র‌্যাবের উপস্থিতিতে পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান আবদুল মোতালেব হাওলাদারের ওপর হামলা ও কুপিয়ে আহত করার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ২১শে মার্চ মঙ্গলবার বেলা সাড়ে দশটার সময় কাগজিরপুলে নেতাকর্মী জড়ো হন। পরে গোলাবাড়ীসহ বিভিন্ন সড়ক পরিদর্শন করেন তারা। এদিকে, স্থানীয় সংসদ সদস্য ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আ,স,ম ফিরোজের অনুসারী একই দিন (মঙ্গলবার) জামায়াত-বিএনপির সন্ত্রাসী কার্যকলাপের বিরুদ্ধে উপজেলা সদরসহ ইউনিয়ন পর্যায়ে শান্তি মিছিলের ঘোষিত কর্মসূচি জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপে শান্তি মিছিলের কর্মসূচি স্থগিত করেছে। সরকারের একটি গোয়েন্দা সংস্থার একাধিক সূত্র এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। উপজেলা সদরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে সকাল থেকে বিপুল পরিমান র‌্যাব ও পুলিশ মোতায়েন ছিলো। প্রত্যক্ষদর্শী ও দলীয় সূত্রে জানা যায়, গত শুক্রবার জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস উদ্যাপন উপলক্ষে আয়োজিত কর্মসূচিকে ঘিরে উপজেলা আওয়ামী লীগের দুটি পক্ষের সংঘর্ষ হয়। এতে পুলিশসহ কমপক্ষে ৫০ জন আহত হন। ওই সংঘর্ষের সময় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল মোতালেবের ওপর হামলার প্রতিবাদে মঙ্গলবার উপজেলা সদরে বিক্ষোভ কর্মসূচি দিয়েছে আব্দুল মোতালেবের পক্ষ। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে বাউফল পৌরসভার কাগুজিরপুল এলাকা থেকে ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুল মোতালেব হাওলাদারের ছেলে জেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও বগা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাহমুদ হাসানের নেতৃত্বে একটি বিশাল বিক্ষোভ মিছিল শুরু হয়। মিছিলটি গোলাবাড়ি, বাউফল প্রেসক্লাব,শেখ রাসেল মিনি ষ্টেডিয়াম ও বাজার রোড হয়ে থানার পাশে ইলিশ চত্বরে এসে প্রতিবাদ সমাবেশ করে। সমাবেশে বক্তব্য দেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি তালুকদার মো. জাহাঙ্গীর হোসেন, মদনপুরা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মো. গোলাম মোস্তফা, বাউফল সদর ইউপি চেয়ারম্যান জাহিুল ইসলাম, জেলা কৃষকলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. রেজাউল কামাল ওরফে পল্টু প্রমূখ। মিছিলে আওয়ামী লীগ ও সহযোগি সংগঠনের তিন সহাস্রাধিক নেতা-কর্মী এসময় উপস্থিত ছিলেন। বক্তারা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল মোতালেব হাওলাদারের ওপর হামলার ঘটনাকে পরিকল্পিত এবং তাঁকে হত্যার উদ্দেশ্যে ওই হামলা হয়েছে বলে দাবি করেন। তাঁরা ওই হামলার ঘটনার জন্য সংসদ সদস্য আ স ম ফিরোজকে দায়ী করে বলেন, আ স ম ফিরোজের উপস্তিতিতে ও হুকুমে তাঁর দুই ভাতিজা মনির হোসেন মোল্লা ও আলকাচ মোল্লার নেতৃত্বে সন্ত্রাসী বাহিনী দলের সবচেয়ে ত্যাগী নেতা আবদুল মোতালেব হাওলাদারের ওপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে পিটিয়ে ও কুপিয়ে গুরুতর জখম করেছে।বক্তারা আ স ম ফিরোজের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণসহ ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের আইনের আওতায় আনাসহ এদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন তারা।##

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

Dainik adhumati

জনপ্রিয়

বাকেরগঞ্জে কৃষি ব্যাংকের গ্রাহকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা

পটুয়াখালীতে আ’লীগের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি , শান্তিপূর্ন বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত সময় : ১১:২১:৫৩ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২২ মার্চ ২০২৩

### পুলিশ ও র‌্যাবের উপস্থিতিতে পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান আবদুল মোতালেব হাওলাদারের ওপর হামলা ও কুপিয়ে আহত করার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ২১শে মার্চ মঙ্গলবার বেলা সাড়ে দশটার সময় কাগজিরপুলে নেতাকর্মী জড়ো হন। পরে গোলাবাড়ীসহ বিভিন্ন সড়ক পরিদর্শন করেন তারা। এদিকে, স্থানীয় সংসদ সদস্য ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আ,স,ম ফিরোজের অনুসারী একই দিন (মঙ্গলবার) জামায়াত-বিএনপির সন্ত্রাসী কার্যকলাপের বিরুদ্ধে উপজেলা সদরসহ ইউনিয়ন পর্যায়ে শান্তি মিছিলের ঘোষিত কর্মসূচি জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপে শান্তি মিছিলের কর্মসূচি স্থগিত করেছে। সরকারের একটি গোয়েন্দা সংস্থার একাধিক সূত্র এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। উপজেলা সদরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে সকাল থেকে বিপুল পরিমান র‌্যাব ও পুলিশ মোতায়েন ছিলো। প্রত্যক্ষদর্শী ও দলীয় সূত্রে জানা যায়, গত শুক্রবার জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস উদ্যাপন উপলক্ষে আয়োজিত কর্মসূচিকে ঘিরে উপজেলা আওয়ামী লীগের দুটি পক্ষের সংঘর্ষ হয়। এতে পুলিশসহ কমপক্ষে ৫০ জন আহত হন। ওই সংঘর্ষের সময় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল মোতালেবের ওপর হামলার প্রতিবাদে মঙ্গলবার উপজেলা সদরে বিক্ষোভ কর্মসূচি দিয়েছে আব্দুল মোতালেবের পক্ষ। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে বাউফল পৌরসভার কাগুজিরপুল এলাকা থেকে ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুল মোতালেব হাওলাদারের ছেলে জেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও বগা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাহমুদ হাসানের নেতৃত্বে একটি বিশাল বিক্ষোভ মিছিল শুরু হয়। মিছিলটি গোলাবাড়ি, বাউফল প্রেসক্লাব,শেখ রাসেল মিনি ষ্টেডিয়াম ও বাজার রোড হয়ে থানার পাশে ইলিশ চত্বরে এসে প্রতিবাদ সমাবেশ করে। সমাবেশে বক্তব্য দেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি তালুকদার মো. জাহাঙ্গীর হোসেন, মদনপুরা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মো. গোলাম মোস্তফা, বাউফল সদর ইউপি চেয়ারম্যান জাহিুল ইসলাম, জেলা কৃষকলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. রেজাউল কামাল ওরফে পল্টু প্রমূখ। মিছিলে আওয়ামী লীগ ও সহযোগি সংগঠনের তিন সহাস্রাধিক নেতা-কর্মী এসময় উপস্থিত ছিলেন। বক্তারা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল মোতালেব হাওলাদারের ওপর হামলার ঘটনাকে পরিকল্পিত এবং তাঁকে হত্যার উদ্দেশ্যে ওই হামলা হয়েছে বলে দাবি করেন। তাঁরা ওই হামলার ঘটনার জন্য সংসদ সদস্য আ স ম ফিরোজকে দায়ী করে বলেন, আ স ম ফিরোজের উপস্তিতিতে ও হুকুমে তাঁর দুই ভাতিজা মনির হোসেন মোল্লা ও আলকাচ মোল্লার নেতৃত্বে সন্ত্রাসী বাহিনী দলের সবচেয়ে ত্যাগী নেতা আবদুল মোতালেব হাওলাদারের ওপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে পিটিয়ে ও কুপিয়ে গুরুতর জখম করেছে।বক্তারা আ স ম ফিরোজের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণসহ ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের আইনের আওতায় আনাসহ এদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন তারা।##