০৬:১০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

পটুয়াখালীতে ঝড়ে ট্রলার ডুবিতে বর সহ নিখোঁজ ৪, নিহত ১

###    পটুয়াখালী দশমিনা উপজেলার চরবোরহান ইউনিয়নের চর আপতি নামক স্থানে শুক্রবার বিকেল সাড়ে চারটায় ঝড়ের কবলে পড়ে ট্রলার ডুবিতে বর সহ চারজন নিখোঁজ রয়েছে, এ ঘটনায় অপর একজন নিহত হয়েছে। নিখোঁজ ব্যক্তিরা হলেন উপজেলার রনগোপালদী ইউনিয়নের আউলিয়াপুর গ্রামের মনির হওলাদরের ছেলে রাব্বি(২৫), স্ত্রী মোসাঃ সেলিনা বেগম(৪৫), ভাগনি খাদিজা(৭) ও মারিয়া(৮)। মনিরের বোন লিপি বেগমকে(২৮) মৃত্যু উদ্ধার করা হয়েছে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায় উপজেলার চরবোরহান ০৯ নং ওয়ার্ড উত্তর শাহজালাল গ্রামের মোঃ হুমায়ন কবিরের মেয়ে মোসাঃ সুমাইয়া বেগমের সাথে রনগোপালদী ইউনিয়নের আউলিয়াপুর গ্রামের মোঃ মনির হোসেন হাওলাদারের ছেলে মোঃ রাব্বির সাথে বিবাহ অনুষ্ঠিত হয়। শুক্রবার সকলাপ বর পক্ষ বৌ আনতে যায় কনের বাড়িতে। কনেকে নিয়ে বিকেল ৪ টায় আউলিয়াপুর বরের বাড়ি ট্রলার যোগে রওয়ানা দিয়া আউলিয়াপুর ও চরবোরহান মধ্যবর্তী চর আপতি নামক স্থানে ঝড়ের কবলে পরে ট্রলার উল্টে বর ও কনের পরিবারে প্রায় ২০ জন ডুবে যায়। ১৫ জন সাতরে তীরে উঠলেও বর সহ ৪ জন নিখোঁজ, নিহত এক। ঘটনার বিষয়ে স্থানীয় ইউনিয়ন চেয়ারম্যান নজির আহমেদ সরদার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইউএনও নাফিসা নাজ নীরা ও উপজেলা ফায়রা সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স দশমিনাকে জানালে ঘটনা স্থলে ছুটে যায়। এখোন পর্যন্ত উদ্ধার অভিযান চলছে বর সহ চারজনকে পাওয়া যানি। প্রত্যক্ষ দর্শী মোঃ মনির হোসেন হাওলাদার বলেন আমার ছেলে বৌকে নিয়ে চরবোরহান থেকে বড়িতে আসার পথে চর আপতি নামক স্থানে আসলে একটি দমকা বাতাসে ট্রলার উল্টেযায়। ট্রলারে প্রায়২০ জন ছিলাম। এখনোও আমার স্ত্রী সেলিনা, আমার ছেলে মোঃ রাব্বি, ভাগনি খাদিজা ও মারিয়াকে খুজে পাওয়া যানি। আমার বোন লিপি বেগমের মরদেহ উদ্ধার করে সৈয়দজাফর জেলেরা। উপজেলা ফয়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স লিডার আনোয়ার হোসেন বলেন, ঘটনার বিষয় জানার পর আমরা ঘটনা স্হলে এসে প্রাথমিক ভাবে উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করছি। পটুয়াখালী ডুবুরি দল উদ্ধার কাজ অব্যহত রেখেছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাফিসা নাজ নীরা বলেন, ঘটনাস্থল পরিদর্শ ন করেছি। প্রশাসনের পক্ষ থেকে উদ্ধার অভিযানের সর্বোচ্চ চেষ্টা অব্যহত আছে। উদ্ধার অভিযানে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স দশমিনা ও পটুয়াখালী ইউনিট, দশমিনা নৌ-পুলিশ ফাঁড়ি ও থানা পুলিশ কাজ করছে।##

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

Dainik adhumati

জনপ্রিয়

দশমিনায় পরীক্ষায় অসৎ উপায় অবলম্বন করায় দুই শিক্ষার্থী বহিস্কার

পটুয়াখালীতে ঝড়ে ট্রলার ডুবিতে বর সহ নিখোঁজ ৪, নিহত ১

প্রকাশিত সময় : ১০:৩৯:৪৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৯ এপ্রিল ২০২৩

###    পটুয়াখালী দশমিনা উপজেলার চরবোরহান ইউনিয়নের চর আপতি নামক স্থানে শুক্রবার বিকেল সাড়ে চারটায় ঝড়ের কবলে পড়ে ট্রলার ডুবিতে বর সহ চারজন নিখোঁজ রয়েছে, এ ঘটনায় অপর একজন নিহত হয়েছে। নিখোঁজ ব্যক্তিরা হলেন উপজেলার রনগোপালদী ইউনিয়নের আউলিয়াপুর গ্রামের মনির হওলাদরের ছেলে রাব্বি(২৫), স্ত্রী মোসাঃ সেলিনা বেগম(৪৫), ভাগনি খাদিজা(৭) ও মারিয়া(৮)। মনিরের বোন লিপি বেগমকে(২৮) মৃত্যু উদ্ধার করা হয়েছে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায় উপজেলার চরবোরহান ০৯ নং ওয়ার্ড উত্তর শাহজালাল গ্রামের মোঃ হুমায়ন কবিরের মেয়ে মোসাঃ সুমাইয়া বেগমের সাথে রনগোপালদী ইউনিয়নের আউলিয়াপুর গ্রামের মোঃ মনির হোসেন হাওলাদারের ছেলে মোঃ রাব্বির সাথে বিবাহ অনুষ্ঠিত হয়। শুক্রবার সকলাপ বর পক্ষ বৌ আনতে যায় কনের বাড়িতে। কনেকে নিয়ে বিকেল ৪ টায় আউলিয়াপুর বরের বাড়ি ট্রলার যোগে রওয়ানা দিয়া আউলিয়াপুর ও চরবোরহান মধ্যবর্তী চর আপতি নামক স্থানে ঝড়ের কবলে পরে ট্রলার উল্টে বর ও কনের পরিবারে প্রায় ২০ জন ডুবে যায়। ১৫ জন সাতরে তীরে উঠলেও বর সহ ৪ জন নিখোঁজ, নিহত এক। ঘটনার বিষয়ে স্থানীয় ইউনিয়ন চেয়ারম্যান নজির আহমেদ সরদার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইউএনও নাফিসা নাজ নীরা ও উপজেলা ফায়রা সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স দশমিনাকে জানালে ঘটনা স্থলে ছুটে যায়। এখোন পর্যন্ত উদ্ধার অভিযান চলছে বর সহ চারজনকে পাওয়া যানি। প্রত্যক্ষ দর্শী মোঃ মনির হোসেন হাওলাদার বলেন আমার ছেলে বৌকে নিয়ে চরবোরহান থেকে বড়িতে আসার পথে চর আপতি নামক স্থানে আসলে একটি দমকা বাতাসে ট্রলার উল্টেযায়। ট্রলারে প্রায়২০ জন ছিলাম। এখনোও আমার স্ত্রী সেলিনা, আমার ছেলে মোঃ রাব্বি, ভাগনি খাদিজা ও মারিয়াকে খুজে পাওয়া যানি। আমার বোন লিপি বেগমের মরদেহ উদ্ধার করে সৈয়দজাফর জেলেরা। উপজেলা ফয়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স লিডার আনোয়ার হোসেন বলেন, ঘটনার বিষয় জানার পর আমরা ঘটনা স্হলে এসে প্রাথমিক ভাবে উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করছি। পটুয়াখালী ডুবুরি দল উদ্ধার কাজ অব্যহত রেখেছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাফিসা নাজ নীরা বলেন, ঘটনাস্থল পরিদর্শ ন করেছি। প্রশাসনের পক্ষ থেকে উদ্ধার অভিযানের সর্বোচ্চ চেষ্টা অব্যহত আছে। উদ্ধার অভিযানে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স দশমিনা ও পটুয়াখালী ইউনিট, দশমিনা নৌ-পুলিশ ফাঁড়ি ও থানা পুলিশ কাজ করছে।##