১০:২৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পটুয়াখালী-৩ আসনে মনোনায়নে এগিয়ে এমপি শাহজাদা

###    দশমিনা-গলাচিপা নিয়ে পটুয়াখালী-৩ আসনে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামীলী থেকে মনোনায়ন নিয়ে আসেন এস এম শাহজাদা। পারিবারিক জীবনে তিনি সংসারের বড় ছেলে। ছোট বেলা থেকে ভদ্র প্রকৃতির ছিলেন। বাবা সরকারি চাকরি করায় প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষা জীবনের কিছু অংশ দশমিনা উপজেলায় কিছু অংশ গলাচীপা উপজেলায় অতিবাহীত করেন। ছোট বেলা থেকে দশমিনা উপজেলায় বিভিন্ন আওয়ামীলীগ প্রোগ্রামে অংশ গ্রহন করতেন । দশমিনা উপজেলা ছাত্রলীগ থেকে শুরু হয় রাজনীতি। তার পর উচ্চতর শিক্ষার জন্য পটুয়াখালী সরকারি কলেজে অধ্যয়ন করেন। পটুয়াখালী সরকারি কলেজে পেয়ে যান ছাত্রলীগের সহ সভাপতির পদ। শিক্ষা জীবন শেষ করে জড়িয়ে যান ব্যবসায়। ব্যবসার পাশাপাশি আওয়ামীলীগের ক্রান্তিকাল সময়ে দশমিনা-গলাচিপা উপজেলায় জনগনের পাশে থেকে সাহায্য সহযোগিতা করে থাকেন। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা নির্মানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নকে গতিময় করার জন্য সবসময় জনগনের পাশে থেকে তাদের সুখ দুখের সাথী হয়ে কাজ করেন। জনগনের আস্থা অর্জন করায় আওয়ামীলীগের সভানেত্রি শেখ হাসিনা দশমিনা-গলাচিপা উপজেলার অভিভাবক হিসাবে এবং উন্নয়ন বাস্তবায়ন করার জন্য একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনায়ন দিয়ে পাঠান দশমিনা-গলাচিপার জনগনের কাছে। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দশমিনা-গলাচিপা উপজেলার জনগন নৌকা প্রতিকে বিপুল পরিমানে ভোট দিয়ে বিজয়ী করেন। সরকার গঠন করে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ।

এস এম শাহজাদা এমপির সারে চার বছর সময় কালে দশমিনা উপজেলায় নজিরবিহীন উন্নয়নের ছোয়া লাগে। দশমিনা উপজেলায় সারে চারবছরে তৃনমূল নেতাদের মাঝে নেই কোন বিন্দু পরিমান পাওয়া ও নাপাওয়ার অভিমান। তৃনমূল নেতাদের ঐক্যবদ্ধ করে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের শতভাগ বাস্তবায়নে সততার সাথে কাজ করেন তিনি। এস এম শাহজাদা এমপি উপজেলায় শতভাগ বিদ্যুৎতায়নে কাজ করেন। উপজেলার  চরাঞ্চলে বিদ্যুৎতের আলোয় আলোকিত। মুজিবর্ষে দুস্ত ও অসহায়, ভুমিহীনদে শত ভাগ স্বচ্ছতার মাধ্যমে মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর উপহার ঘর নির্মানে কাজ করেন। উপজেলার প্রশাসনিক ব্যবস্থা ছিলো উন্মুক্ত। বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য আবসন তৈরিতে ছিলো শত ভাগ স্বচ্ছতা। মহামারি করোনা কোভিড-১৯ এর সময় দশমিনা উপজেলায় কোন লোক যেনো না খেয়ে থাকে তার জন্য সরকারের পাশাপাশি নিজের আর্থীক অনুদান পৌছে দিয়েছেন উপজেলা আওয়ামীলীগ ও সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীরা। মহামরির সময় কালে কৃষকের ধান কাঁটা সহ সকল সমস্যায় তার নির্দেশে কাজ করেছে উপজেলা আওয়ামীলীগ ও সহযোগি সংগঠন। মহামারিতে কোন লোক অক্সিজেনের অভাবে কষ্ঠ না পায় তার জন্য তিনি হাসপাতালের ব্যবস্থাপনাকে সঠিক ভাবে পরিচালিত করেন। করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তিদের বাড়ীতে গিয়ে খোজ খবর ও খাদ্য সহায়তা সহ সকল সমস্যার সমাধানে কাজ করেন। প্রাকৃতিক প্রলংকারি ঘূর্ণিঝড় মোকাবেলায় জন গনের জনমালের ও নিরাপদ আশ্রয়ে থাকার ব্যবস্থা করেন।

সিডর, আয়লায় ক্ষতিগ্রস্থ চরাঞ্চলের লোক জন এ্যান চাইনা ভেরিবাঁধ চাই মর্মে মানববন্ধন করেন ঐ জনগনের সাথে তিনি দাড়িয়ে একাত্বতা প্রকাশ করে। দশমনিা উপজেলা বাসির প্রতিনিধি হিসাবে মহান জাতীয় সংসদে স্কুল ছাত্রীর দেয়া প্লাকার্ট “এান চাইনা ভেরিবাঁধ চাই” নিজের গলায় ঝুলিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে ভেরিবাঁধের জন্য আবেদন করেন। সততা, কর্তব্য বোধ, নিষ্ঠার মাধ্যমে নেতাকর্মীদের কাছে প্রিয় হয়ে উঠেন। তাই বর্তামান সময়ের দাবি যার লোভ নেই গরিবের হকের উপর।বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্যা শেখ হাসিনার উন্নয়নের শতভাগ দশমিনা উপজেলায় ব্যয় করে এমন অভিভাবক হিসাবে আগামী জাতীয় নির্বাচনে আমাদের মাঝে এস এম শাহজাদা ভাইকে চাই। তৃনমূল নেতাদের একমাত্র ভরষা পূনরায় এস এম শাহজাদা মনোনায়ন পাবে। কারন তার সারে চার বছরের সময় কালে আওয়ামীলীগ ও সহযোগি সংগঠনের মধ্যে কোন প্রকার মতবিরোধ দেখা দেয়নি।

উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন-সাধারন সম্পাদক বাবু গৌতম রায় বলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল আবিস্কার এস এম শাহজাদা এমপি তিনি দশমিনাকে একটি মডেল দশমিনা গড়ার কাজে সবসময় নিযোজিত রাখেন। উপজেলা সরকারে উন্নয়ন মূলক কাজের ছিলো সঠিত তদারকি। দশমনিার জনগন তার সময় কালে মান-সন্মান ও আতœমর্যদা নিয়ে থাকতে পেরেছে। তার মধ্যে গৌরবব, অহংকার অহমিকা ছিলোনা । সবসময় জনগনের কথা শুনতেন এবং সমাধা করতেন।

চরবোরহান আওয়ামীলীগের সভাপতি নজির আহমেদ সরদার বলেন দশমিনা উপজেলার এক মাত্র চরাঞ্চল ইউনিয় চরবোরহান যাহার চারদিকে নদী বেস্টিত । আমার চেয়ারম্যান সময় কালে তিনি সিডর, আয়লা সহ প্রাকৃতিক দুর্যোগে জনগনের জন্য সকল প্রকার সহায়তা করেন। যোগাযোগ ব্যবস্থা সহ শিক্ষার মানউন্নয়নে সবসময় কাজ করে চলছেন। ইউনিয়নের ভেরিবাধের জন্য মহান জাতীয় সংসদে আমার এলাকার স্কুল শিক্ষার্থীর প্লাকাট গলায় ঝুলির্য়ে এলাকায় ভেরিবাধের জন্য আবেদন করেন। তিনি একজ বঙ্গবন্ধুর আদর্শের ধারক ও বাহক ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার  উন্নয়নের একনিষ্ঠ কর্মী। তিনি পূনরায় মনোনায়ন পেলে উপজেলা সহ চরাঞ্চলের ব্যাপক উন্নয়ন হবে এমনটাই আমদের প্রত্যশা।

উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মশিইর রহমান ঝন্টু বলেন, এস এম শাহজাদা একজন সৎ, কর্তব্যপরায়ন, নিষ্ঠাবান ব্যক্তি। যার মধ্যে বিন্দু পরিমান গোরামি নেই। এমপি হবার পর থেকে তৃনমূল নেতাদের সহ আওয়ামীলীগ সমর্থকদের সাথে তৈরী হয় নিবির সম্পর্ক। জনগনের জন্য তিনি কাজ করেছেন উপজেলার যোগাযোগ ব্যবস্থা সহ শিক্ষার মানইন্নয়নে বিশেষ ভ’মিকা রাখে।। মাহামরি কোভিড-১৯ লক ডাউন সময় কালে দুস্ত, আসহায় লোকদের পাশে থেকে সহায়তা দান করেন। আমি বিশ^াস করি মাননীয় প্রদানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছ থেকে মনোনায়ন পেতে যেসকল গুনাবলি দরকার তা এস এম শাহজাদা এমপির মধ্যে আছে। পূনরায় দশমনিা-গলাচিপা আসনে এস এম শাহাজাদার বিকল্প ভাবতে পরিনা।##

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

Dainik adhumati

জনপ্রিয়

কুয়েটে পবিত্র ঈদ-উল-আযহার জামাত সকাল ৭ টায় 

পটুয়াখালী-৩ আসনে মনোনায়নে এগিয়ে এমপি শাহজাদা

প্রকাশিত সময় : ০৭:৩৬:৩৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ৮ এপ্রিল ২০২৩

###    দশমিনা-গলাচিপা নিয়ে পটুয়াখালী-৩ আসনে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামীলী থেকে মনোনায়ন নিয়ে আসেন এস এম শাহজাদা। পারিবারিক জীবনে তিনি সংসারের বড় ছেলে। ছোট বেলা থেকে ভদ্র প্রকৃতির ছিলেন। বাবা সরকারি চাকরি করায় প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষা জীবনের কিছু অংশ দশমিনা উপজেলায় কিছু অংশ গলাচীপা উপজেলায় অতিবাহীত করেন। ছোট বেলা থেকে দশমিনা উপজেলায় বিভিন্ন আওয়ামীলীগ প্রোগ্রামে অংশ গ্রহন করতেন । দশমিনা উপজেলা ছাত্রলীগ থেকে শুরু হয় রাজনীতি। তার পর উচ্চতর শিক্ষার জন্য পটুয়াখালী সরকারি কলেজে অধ্যয়ন করেন। পটুয়াখালী সরকারি কলেজে পেয়ে যান ছাত্রলীগের সহ সভাপতির পদ। শিক্ষা জীবন শেষ করে জড়িয়ে যান ব্যবসায়। ব্যবসার পাশাপাশি আওয়ামীলীগের ক্রান্তিকাল সময়ে দশমিনা-গলাচিপা উপজেলায় জনগনের পাশে থেকে সাহায্য সহযোগিতা করে থাকেন। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা নির্মানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নকে গতিময় করার জন্য সবসময় জনগনের পাশে থেকে তাদের সুখ দুখের সাথী হয়ে কাজ করেন। জনগনের আস্থা অর্জন করায় আওয়ামীলীগের সভানেত্রি শেখ হাসিনা দশমিনা-গলাচিপা উপজেলার অভিভাবক হিসাবে এবং উন্নয়ন বাস্তবায়ন করার জন্য একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনায়ন দিয়ে পাঠান দশমিনা-গলাচিপার জনগনের কাছে। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দশমিনা-গলাচিপা উপজেলার জনগন নৌকা প্রতিকে বিপুল পরিমানে ভোট দিয়ে বিজয়ী করেন। সরকার গঠন করে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ।

এস এম শাহজাদা এমপির সারে চার বছর সময় কালে দশমিনা উপজেলায় নজিরবিহীন উন্নয়নের ছোয়া লাগে। দশমিনা উপজেলায় সারে চারবছরে তৃনমূল নেতাদের মাঝে নেই কোন বিন্দু পরিমান পাওয়া ও নাপাওয়ার অভিমান। তৃনমূল নেতাদের ঐক্যবদ্ধ করে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের শতভাগ বাস্তবায়নে সততার সাথে কাজ করেন তিনি। এস এম শাহজাদা এমপি উপজেলায় শতভাগ বিদ্যুৎতায়নে কাজ করেন। উপজেলার  চরাঞ্চলে বিদ্যুৎতের আলোয় আলোকিত। মুজিবর্ষে দুস্ত ও অসহায়, ভুমিহীনদে শত ভাগ স্বচ্ছতার মাধ্যমে মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর উপহার ঘর নির্মানে কাজ করেন। উপজেলার প্রশাসনিক ব্যবস্থা ছিলো উন্মুক্ত। বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য আবসন তৈরিতে ছিলো শত ভাগ স্বচ্ছতা। মহামারি করোনা কোভিড-১৯ এর সময় দশমিনা উপজেলায় কোন লোক যেনো না খেয়ে থাকে তার জন্য সরকারের পাশাপাশি নিজের আর্থীক অনুদান পৌছে দিয়েছেন উপজেলা আওয়ামীলীগ ও সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীরা। মহামরির সময় কালে কৃষকের ধান কাঁটা সহ সকল সমস্যায় তার নির্দেশে কাজ করেছে উপজেলা আওয়ামীলীগ ও সহযোগি সংগঠন। মহামারিতে কোন লোক অক্সিজেনের অভাবে কষ্ঠ না পায় তার জন্য তিনি হাসপাতালের ব্যবস্থাপনাকে সঠিক ভাবে পরিচালিত করেন। করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তিদের বাড়ীতে গিয়ে খোজ খবর ও খাদ্য সহায়তা সহ সকল সমস্যার সমাধানে কাজ করেন। প্রাকৃতিক প্রলংকারি ঘূর্ণিঝড় মোকাবেলায় জন গনের জনমালের ও নিরাপদ আশ্রয়ে থাকার ব্যবস্থা করেন।

সিডর, আয়লায় ক্ষতিগ্রস্থ চরাঞ্চলের লোক জন এ্যান চাইনা ভেরিবাঁধ চাই মর্মে মানববন্ধন করেন ঐ জনগনের সাথে তিনি দাড়িয়ে একাত্বতা প্রকাশ করে। দশমনিা উপজেলা বাসির প্রতিনিধি হিসাবে মহান জাতীয় সংসদে স্কুল ছাত্রীর দেয়া প্লাকার্ট “এান চাইনা ভেরিবাঁধ চাই” নিজের গলায় ঝুলিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে ভেরিবাঁধের জন্য আবেদন করেন। সততা, কর্তব্য বোধ, নিষ্ঠার মাধ্যমে নেতাকর্মীদের কাছে প্রিয় হয়ে উঠেন। তাই বর্তামান সময়ের দাবি যার লোভ নেই গরিবের হকের উপর।বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্যা শেখ হাসিনার উন্নয়নের শতভাগ দশমিনা উপজেলায় ব্যয় করে এমন অভিভাবক হিসাবে আগামী জাতীয় নির্বাচনে আমাদের মাঝে এস এম শাহজাদা ভাইকে চাই। তৃনমূল নেতাদের একমাত্র ভরষা পূনরায় এস এম শাহজাদা মনোনায়ন পাবে। কারন তার সারে চার বছরের সময় কালে আওয়ামীলীগ ও সহযোগি সংগঠনের মধ্যে কোন প্রকার মতবিরোধ দেখা দেয়নি।

উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন-সাধারন সম্পাদক বাবু গৌতম রায় বলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল আবিস্কার এস এম শাহজাদা এমপি তিনি দশমিনাকে একটি মডেল দশমিনা গড়ার কাজে সবসময় নিযোজিত রাখেন। উপজেলা সরকারে উন্নয়ন মূলক কাজের ছিলো সঠিত তদারকি। দশমনিার জনগন তার সময় কালে মান-সন্মান ও আতœমর্যদা নিয়ে থাকতে পেরেছে। তার মধ্যে গৌরবব, অহংকার অহমিকা ছিলোনা । সবসময় জনগনের কথা শুনতেন এবং সমাধা করতেন।

চরবোরহান আওয়ামীলীগের সভাপতি নজির আহমেদ সরদার বলেন দশমিনা উপজেলার এক মাত্র চরাঞ্চল ইউনিয় চরবোরহান যাহার চারদিকে নদী বেস্টিত । আমার চেয়ারম্যান সময় কালে তিনি সিডর, আয়লা সহ প্রাকৃতিক দুর্যোগে জনগনের জন্য সকল প্রকার সহায়তা করেন। যোগাযোগ ব্যবস্থা সহ শিক্ষার মানউন্নয়নে সবসময় কাজ করে চলছেন। ইউনিয়নের ভেরিবাধের জন্য মহান জাতীয় সংসদে আমার এলাকার স্কুল শিক্ষার্থীর প্লাকাট গলায় ঝুলির্য়ে এলাকায় ভেরিবাধের জন্য আবেদন করেন। তিনি একজ বঙ্গবন্ধুর আদর্শের ধারক ও বাহক ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার  উন্নয়নের একনিষ্ঠ কর্মী। তিনি পূনরায় মনোনায়ন পেলে উপজেলা সহ চরাঞ্চলের ব্যাপক উন্নয়ন হবে এমনটাই আমদের প্রত্যশা।

উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মশিইর রহমান ঝন্টু বলেন, এস এম শাহজাদা একজন সৎ, কর্তব্যপরায়ন, নিষ্ঠাবান ব্যক্তি। যার মধ্যে বিন্দু পরিমান গোরামি নেই। এমপি হবার পর থেকে তৃনমূল নেতাদের সহ আওয়ামীলীগ সমর্থকদের সাথে তৈরী হয় নিবির সম্পর্ক। জনগনের জন্য তিনি কাজ করেছেন উপজেলার যোগাযোগ ব্যবস্থা সহ শিক্ষার মানইন্নয়নে বিশেষ ভ’মিকা রাখে।। মাহামরি কোভিড-১৯ লক ডাউন সময় কালে দুস্ত, আসহায় লোকদের পাশে থেকে সহায়তা দান করেন। আমি বিশ^াস করি মাননীয় প্রদানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছ থেকে মনোনায়ন পেতে যেসকল গুনাবলি দরকার তা এস এম শাহজাদা এমপির মধ্যে আছে। পূনরায় দশমনিা-গলাচিপা আসনে এস এম শাহাজাদার বিকল্প ভাবতে পরিনা।##