১০:১৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পল্লী বিদ্যুৎ-এর ঠিকাদারসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা

  • সংবাদদাতা
  • প্রকাশিত সময় : ০৮:২৯:৪৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৮ নভেম্বর ২০২২
  • ৩৫ পড়েছেন

অফিস ডেক্স।।

###   খুলনা,-সাতক্ষীরা ও বাগেরহাট পল্লী বিদ্যুত সমিতির আওতায় আপগ্রেডেশন প্রকল্পের প্রায় ৭৭লাখ টাকা আত্মসাতের মামলায় ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স আব্দুল হান্নান চৌধুরী সিভিল এন্ড ইলেক্ট্রিকের মালিকসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছে আদালত। সোমবার(৭নভেম্বর) খুলনা মহানগর স্পেশাল জজ আদালতের বিচারক মাহমুদা খাতুন এ গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।পল্লী বিদ্যুত সমিতি খুলনা সহকারি জেনারেল ম্যানেজার হাফিজুর রহমান ২০১৮ সালে ২৫ জানুয়ারি লবনচরা থানায় এ মামলা করেন। মামলার আসামীরা হলো-মেসার্স আব্দুল হান্নান চৌধুরী সিভিল এন্ড ইলেট্রিকের সত্ত্বাধিকারী মিসেস খাদিজা খানম, প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি আব্দুল কাইয়ুম, জেনারেল ম্যানেজার মো. মোশাররফ হোসেন, সহকারি ম্যানেজার আবু তাহের এবং জাহান বক্স। এ মামলায় দুদকের আইনজীবী খন্দকার মজিবর রহমান তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এরমধ্যে জেনারেল ম্যানেজার মো. মোশাররফ হোসেন ও সহকারি ম্যানেজার আবু তাহের আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করলে বিচারক জামিন না-মঞ্জুর করে তাদেরকে কারাগারে প্রেরণ করেন। মামলার বিবরণে জানা গেছে, খুলনা,-সাতক্ষীরা ও বাগেরহাট পল্লী বিদ্যুত সমিতির আওতায় ৩৩ কেভি ও ১১ কেভি বিদ্যুত সম্প্রসারণ আপগ্রেডশন করার জন্য ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স আব্দুল হান্নান চৌধুরী সিভিল এন্ড ইলেক্ট্রিকের সাথে ২০১৩ সালের ১৪ফেব্রুয়ারি চুক্তি হয়। চুক্তির শর্ত অনুযায়ী বিদ্যুত বিভাগ থেকে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ৭৭ লাখ ১হাজার ৭৪৬টাকার মালামাল বুঝে নেয়। কিন্তু কাজ শেষ না করে ২০১৫ সালের ১৫ ডিসেম্বর কাজ বন্ধ করে দিয়ে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ওই মালামাল আত্মসাত করেন।এ ঘটনায় খুলনা পল্লী বিদ্যুত সমিতির সহকারি জেনারেল ম্যানেজার হাফিজুর রহমান ২০১৮ সালে ২৫ জানুয়ারি লবনচরা থানায় মামলা করেন। মামলা দায়েরের পর দুদকের সহকারি পরিচালক তরুণ কান্তি ঘোষ তদন্ত করে চলতি বছরের ৩০মে আদালতে চার্জসিট দাখিল করেন। চার্জসিটে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের স্বত্ত্বাধিকারী মিসেস খাদিজা খানমসহ পাঁচজনকে অভিযুক্ত করা হয়। ##

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

Dainik Madhumati

জনপ্রিয়

মোল্লাহাটে কেন্দ্রে কেন্দ্রে পৌঁছে গেছে নির্বাচনী সরঞ্জাম

পল্লী বিদ্যুৎ-এর ঠিকাদারসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা

প্রকাশিত সময় : ০৮:২৯:৪৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৮ নভেম্বর ২০২২

অফিস ডেক্স।।

###   খুলনা,-সাতক্ষীরা ও বাগেরহাট পল্লী বিদ্যুত সমিতির আওতায় আপগ্রেডেশন প্রকল্পের প্রায় ৭৭লাখ টাকা আত্মসাতের মামলায় ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স আব্দুল হান্নান চৌধুরী সিভিল এন্ড ইলেক্ট্রিকের মালিকসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছে আদালত। সোমবার(৭নভেম্বর) খুলনা মহানগর স্পেশাল জজ আদালতের বিচারক মাহমুদা খাতুন এ গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।পল্লী বিদ্যুত সমিতি খুলনা সহকারি জেনারেল ম্যানেজার হাফিজুর রহমান ২০১৮ সালে ২৫ জানুয়ারি লবনচরা থানায় এ মামলা করেন। মামলার আসামীরা হলো-মেসার্স আব্দুল হান্নান চৌধুরী সিভিল এন্ড ইলেট্রিকের সত্ত্বাধিকারী মিসেস খাদিজা খানম, প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি আব্দুল কাইয়ুম, জেনারেল ম্যানেজার মো. মোশাররফ হোসেন, সহকারি ম্যানেজার আবু তাহের এবং জাহান বক্স। এ মামলায় দুদকের আইনজীবী খন্দকার মজিবর রহমান তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এরমধ্যে জেনারেল ম্যানেজার মো. মোশাররফ হোসেন ও সহকারি ম্যানেজার আবু তাহের আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করলে বিচারক জামিন না-মঞ্জুর করে তাদেরকে কারাগারে প্রেরণ করেন। মামলার বিবরণে জানা গেছে, খুলনা,-সাতক্ষীরা ও বাগেরহাট পল্লী বিদ্যুত সমিতির আওতায় ৩৩ কেভি ও ১১ কেভি বিদ্যুত সম্প্রসারণ আপগ্রেডশন করার জন্য ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স আব্দুল হান্নান চৌধুরী সিভিল এন্ড ইলেক্ট্রিকের সাথে ২০১৩ সালের ১৪ফেব্রুয়ারি চুক্তি হয়। চুক্তির শর্ত অনুযায়ী বিদ্যুত বিভাগ থেকে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ৭৭ লাখ ১হাজার ৭৪৬টাকার মালামাল বুঝে নেয়। কিন্তু কাজ শেষ না করে ২০১৫ সালের ১৫ ডিসেম্বর কাজ বন্ধ করে দিয়ে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ওই মালামাল আত্মসাত করেন।এ ঘটনায় খুলনা পল্লী বিদ্যুত সমিতির সহকারি জেনারেল ম্যানেজার হাফিজুর রহমান ২০১৮ সালে ২৫ জানুয়ারি লবনচরা থানায় মামলা করেন। মামলা দায়েরের পর দুদকের সহকারি পরিচালক তরুণ কান্তি ঘোষ তদন্ত করে চলতি বছরের ৩০মে আদালতে চার্জসিট দাখিল করেন। চার্জসিটে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের স্বত্ত্বাধিকারী মিসেস খাদিজা খানমসহ পাঁচজনকে অভিযুক্ত করা হয়। ##