০৯:৪৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
খুলনায় বাংলাদেশ কৃষক সমিতির সম্মেলন অনুষ্ঠিত :

পল্লী রেশন ও ষাটোর্ধ্ব কৃষকের পেনশন চালুর দাবী

###     বাংলাদেশ কৃষক সমিতি খুলনা জেলা চতুর্দ্দশ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার বেলা ১১টায় নগরীর গোলকমণি শিশু পার্কে সম্মেলনের শুভ উদ্বোধন করেন কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি এড. এস এম এ সবুর। খুলনা জেলা কৃষক সমিতির সভাপতি নিতাই গাইনের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক এস এ রশীদের পরিচালনায় এ সময়ে অন্যান্যর মধ্যে বক্তব্য রাখেন ও উপস্থি’ত ছিলেন, কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি কাজী সোহরাব হোসেন, কেন্দ্রীয় সদস্য সাবেক ছাত্রনেতা শরীফুজ্জামান শরীফ, সিপিবি কেন্দ্রীয় সদস্য ও জেলা সভাপতি কমরেড ডাঃ মনোজ দাশ, বাসদের জেলা সমন্বয়ক জনার্দন দত্ত নাণ্টু, সিপিবির মহানগর সভাপতি মিজানুর রহমান বাবু, সাধারণ সম্পাদক কমরেড এড. নিত্যানন্দ ঢালী, সিপিবি নেতা কমরেড বীর মুক্তিযোদ্ধা নিতাই পাল, কমরেড তোফাজ্জেল হোসেন, কমরেড ফজলুল হক, কমরেড এড. মোঃ বাবুল হাওলাদার, কৃষক নেতা এড. এম এম রুহুল আমিন, শেখ আব্দুল হান্নান, এড. সন্দীপ রায়, কিশোর রায়, এড. সুব্রত কুÐু, এড. প্রীতিষ মÐল, শিশির সরকার, অধ্যাপক নিহার গোলদার, পূর্ণেন্দু বিশ্বাস, মোল্লা ওয়াদুদ আলী, শেখ আব্দুল হালিম, হাবিবুর রহমান, খন্দকার মনিরুজ্জামান মনির, অশোক সরকার, সমীরণ গোলদার, গাজী আফজাল, ক্ষেতমজুর সমিতির জেলা সভাপতি এড. চিত্তরঞ্জন গোলদার, টিইউসি জেলা সভাপতি এইচ এম শাহাদৎ, মহানগর সাধারণ সম্পাদক রঙ্গলাল মৃধা, যুব নেতা ধীমান বিশ্বাস, আফজাল হোসেন রাজু, মৌফারশের আলম লেনিন, সৈয়দ রিয়াত আলী রিয়াজ, ছাত্র নেতা সৌরভ সমাদ্দার, সৌমিত্র সৌরভ, অর্চিষ্মান দেবনাথ, হাবিব উল্লাহ সবুজ, শান্ত ঘোষ প্রমুখ। সম্মেলনে বক্তারা বলেন, অবিলম্বে আমুল ভূমি সংস্কার করে ভূমি ব্যবহার ও কৃষি নীতিমালা কার্যকর করতে হবে। ইউনিয়ন পর্যায় সরকারি ক্রয় কেন্দ্র চালু করে সরাসরি কৃষকের কাছ থেকে ধান ক্রয় করতে হবে। পর্যাপ্ত সংখ্যক খাদ্য গুদাম ও হিমাগার নির্মাণ করতে হবে। পল্লী রেশন ও শস্য বিমা চালু এবং ষাটোর্ধ্ব কৃষকের পেনশন ব্যবস্থা চালু করতে হবে। দাকোপ-বটিয়াঘাটা জেলার কৃষকরা উৎপাদিত তরমুজে লাভজনক দাম, সরবরাহের চাঁদাবাজি বন্ধ, পানখালী ফেরী পারাপারে যানজট মুক্তির জন্য অতিরিক্ত ফেরীর ব্যবস্থা করতে হবে। উদ্বোধন অনুষ্ঠান শেষে জেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা শত শত কৃষকরা লাল পতাকা নিয়ে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালী প্রদক্ষিণ করে।

সম্মেলনের ২য় পর্বে খুলনা প্রেস ক্লাব ভিআইপি লাউঞ্জে দুপুর ২:৩০টায় কাউন্সিল অধিবেশন শুরু হয়। কাউন্সিল অধিবেশনে নিতাই গাইনকে সভাপতি ও শেখ আব্দুল হান্নানকে সাধারণ সম্পাদক করে ৩১ সদস্য বিশিষ্ট খুলনা জেলা কৃষক সমিতি গঠন করা হয়। ##

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

Dainik Madhumati

জনপ্রিয়

ঘূর্ণিঝড় রেমালের প্রভাবে গলাচিপায় বেড়েছে বাতাস ও নদীর পানি

খুলনায় বাংলাদেশ কৃষক সমিতির সম্মেলন অনুষ্ঠিত :

পল্লী রেশন ও ষাটোর্ধ্ব কৃষকের পেনশন চালুর দাবী

প্রকাশিত সময় : ১২:২০:১১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩

###     বাংলাদেশ কৃষক সমিতি খুলনা জেলা চতুর্দ্দশ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার বেলা ১১টায় নগরীর গোলকমণি শিশু পার্কে সম্মেলনের শুভ উদ্বোধন করেন কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি এড. এস এম এ সবুর। খুলনা জেলা কৃষক সমিতির সভাপতি নিতাই গাইনের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক এস এ রশীদের পরিচালনায় এ সময়ে অন্যান্যর মধ্যে বক্তব্য রাখেন ও উপস্থি’ত ছিলেন, কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি কাজী সোহরাব হোসেন, কেন্দ্রীয় সদস্য সাবেক ছাত্রনেতা শরীফুজ্জামান শরীফ, সিপিবি কেন্দ্রীয় সদস্য ও জেলা সভাপতি কমরেড ডাঃ মনোজ দাশ, বাসদের জেলা সমন্বয়ক জনার্দন দত্ত নাণ্টু, সিপিবির মহানগর সভাপতি মিজানুর রহমান বাবু, সাধারণ সম্পাদক কমরেড এড. নিত্যানন্দ ঢালী, সিপিবি নেতা কমরেড বীর মুক্তিযোদ্ধা নিতাই পাল, কমরেড তোফাজ্জেল হোসেন, কমরেড ফজলুল হক, কমরেড এড. মোঃ বাবুল হাওলাদার, কৃষক নেতা এড. এম এম রুহুল আমিন, শেখ আব্দুল হান্নান, এড. সন্দীপ রায়, কিশোর রায়, এড. সুব্রত কুÐু, এড. প্রীতিষ মÐল, শিশির সরকার, অধ্যাপক নিহার গোলদার, পূর্ণেন্দু বিশ্বাস, মোল্লা ওয়াদুদ আলী, শেখ আব্দুল হালিম, হাবিবুর রহমান, খন্দকার মনিরুজ্জামান মনির, অশোক সরকার, সমীরণ গোলদার, গাজী আফজাল, ক্ষেতমজুর সমিতির জেলা সভাপতি এড. চিত্তরঞ্জন গোলদার, টিইউসি জেলা সভাপতি এইচ এম শাহাদৎ, মহানগর সাধারণ সম্পাদক রঙ্গলাল মৃধা, যুব নেতা ধীমান বিশ্বাস, আফজাল হোসেন রাজু, মৌফারশের আলম লেনিন, সৈয়দ রিয়াত আলী রিয়াজ, ছাত্র নেতা সৌরভ সমাদ্দার, সৌমিত্র সৌরভ, অর্চিষ্মান দেবনাথ, হাবিব উল্লাহ সবুজ, শান্ত ঘোষ প্রমুখ। সম্মেলনে বক্তারা বলেন, অবিলম্বে আমুল ভূমি সংস্কার করে ভূমি ব্যবহার ও কৃষি নীতিমালা কার্যকর করতে হবে। ইউনিয়ন পর্যায় সরকারি ক্রয় কেন্দ্র চালু করে সরাসরি কৃষকের কাছ থেকে ধান ক্রয় করতে হবে। পর্যাপ্ত সংখ্যক খাদ্য গুদাম ও হিমাগার নির্মাণ করতে হবে। পল্লী রেশন ও শস্য বিমা চালু এবং ষাটোর্ধ্ব কৃষকের পেনশন ব্যবস্থা চালু করতে হবে। দাকোপ-বটিয়াঘাটা জেলার কৃষকরা উৎপাদিত তরমুজে লাভজনক দাম, সরবরাহের চাঁদাবাজি বন্ধ, পানখালী ফেরী পারাপারে যানজট মুক্তির জন্য অতিরিক্ত ফেরীর ব্যবস্থা করতে হবে। উদ্বোধন অনুষ্ঠান শেষে জেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা শত শত কৃষকরা লাল পতাকা নিয়ে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালী প্রদক্ষিণ করে।

সম্মেলনের ২য় পর্বে খুলনা প্রেস ক্লাব ভিআইপি লাউঞ্জে দুপুর ২:৩০টায় কাউন্সিল অধিবেশন শুরু হয়। কাউন্সিল অধিবেশনে নিতাই গাইনকে সভাপতি ও শেখ আব্দুল হান্নানকে সাধারণ সম্পাদক করে ৩১ সদস্য বিশিষ্ট খুলনা জেলা কৃষক সমিতি গঠন করা হয়। ##