১০:০২ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
তেলেগু সম্প্রদায়ের বাসিন্দারা ভূমিদখলকারী নয় :

পুনর্বাসন ছাড়া উচ্ছেদ না করার আশ্বাস ডিএসসিসি মেয়র

  • অফিস ডেক্স।।
  • প্রকাশিত সময় : ০৮:২৩:৪৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০২৩
  • ৩০ পড়েছেন

###    ঢাকার যাত্রাবাড়ির আউটফল তেলেগু কলোনীর বাসিন্দাদের উচ্ছেদ আতঙ্কে দিন কাটানোর এক পর্যায়ে গতকাল ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ রাতে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপসের সাথে ফোনে প্রায় আধঘন্টা আলোচনা হয় বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট রাণা দাশগুপ্তের। আলোচনাকালে একই এলাকার ভূমিখেকোদের হাত থেকে কর্পোরেশনের বিস্তীর্ণ এলাকা উদ্ধারের জন্যে ব্যারিস্টার তাপসকে ধন্যবাদ জানানো হয়।  ব্যারিস্টার তাপস আলোচনাকালে রাণা দাশগুপ্তকে বলেন, এলাকায় বসবাসরত তেলেগু সম্প্রদায়ের বাসিন্দারা ভূমিদখলকারী নয়। সরকারিভাবেই তাদের বসতি স্থাপন করা হয়। বসতকারীদের মধ্যে যারা করপোরেশনের চাকরিরত পরিচ্ছন্নতা কর্মী নয়, তাদেরকে পর্যায়ক্রমিকভাবে এ পদে নিয়োগ দেয়া হবে এবং এ ব্যাপারে ইতোমধ্যেই প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। তেলেগু বাসিন্দাদের মধ্যে যারা সিটি করপোরেশনের চাকরিরত পরিচ্ছন্নতা কর্মী, ইতোমধ্যে তাদের একই এলাকায় পার্শ্ববর্তী দুটি বহুতল ভবনে পুনর্বাসিত করা হয়েছে। ঠিক একইভাবে এ ভবন দুটোর পাশে আরও দুটো বহুতল ভবন নির্মাণ করে বাকিদেরকেও পুনর্বাসিত করা হবে। তবে এর জন্যে বেশ খানিকটা সময় প্রয়োজন। এ জন্যে তাদের অস্থায়ী পুনর্বাসনের জন্যে করপোরেশন নিকটবর্তী এলাকার ৫ একর জমি নির্ধারণ করেছে। তাদের কলোনীতে বিদ্যমান স্কুল, মন্দির ও গীর্জা থাকবে। সিটি করপোরেশনের মেয়রের সাথে যে আলোচনা হয়েছে তা তেলেগু কলোনীর বাসিন্দাদের সামনে তুলে ধরার জন্যে ২০ ফেব্রুয়ারি সকালে এ্যাডভোকেট রাণা দাশগুপ্ত বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজল দেবনাথ ও সহ সাংগঠনিক সম্পাদক বাপ্পাদিত্য বসু, এ এল আর ডি’র নির্বাহী পরিচালক শামসুল হুদা ও প্রোগ্রাম ম্যানেজার রফিক আহমেদ সিরাজী, বেলা’র হেড অব প্রোগ্রাম ফিরোজুল ইসলাম, মানবাধিকার সাংস্কৃতিক ফাউন্ডেশনের আইনজীবী নাহিদ শামস প্রমুখকে নিয়ে যাত্রাবাড়ির তেলেগু কলোনীতে যান এবং নারী পুরুষ নির্বিশেষে সবাইকে মেয়র তাপসের বক্তব্য তুলে ধরে তাদের অস্থায়ী পুনর্বাসনস্থলে আশ্রয় নেওয়ার অনুরোধ জানান। উপস্থিত এলাকাবাসী এ অনুরোধ রক্ষার প্রতিশ্রুতি দেন। এ্যাডভোকেট দাশগুপ্ত অস্থায়ী পুনর্বাসনস্থলে প্রতিটি পরিবারের জন্যে ছাপড়া ঘর নির্মাণ ছাড়াও তাদের পয়ঃনিষ্কাশন, বিদ্যুৎ, পানির ব্যবস্থার জন্য ব্যারিস্টার তাপসের প্রতি আহ্বান জানান। ##

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

Dainik adhumati

জনপ্রিয়

ঘূর্ণিঝড় রেমালের প্রভাবে গলাচিপায় বেড়েছে বাতাস ও নদীর পানি

তেলেগু সম্প্রদায়ের বাসিন্দারা ভূমিদখলকারী নয় :

পুনর্বাসন ছাড়া উচ্ছেদ না করার আশ্বাস ডিএসসিসি মেয়র

প্রকাশিত সময় : ০৮:২৩:৪৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

###    ঢাকার যাত্রাবাড়ির আউটফল তেলেগু কলোনীর বাসিন্দাদের উচ্ছেদ আতঙ্কে দিন কাটানোর এক পর্যায়ে গতকাল ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ রাতে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপসের সাথে ফোনে প্রায় আধঘন্টা আলোচনা হয় বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট রাণা দাশগুপ্তের। আলোচনাকালে একই এলাকার ভূমিখেকোদের হাত থেকে কর্পোরেশনের বিস্তীর্ণ এলাকা উদ্ধারের জন্যে ব্যারিস্টার তাপসকে ধন্যবাদ জানানো হয়।  ব্যারিস্টার তাপস আলোচনাকালে রাণা দাশগুপ্তকে বলেন, এলাকায় বসবাসরত তেলেগু সম্প্রদায়ের বাসিন্দারা ভূমিদখলকারী নয়। সরকারিভাবেই তাদের বসতি স্থাপন করা হয়। বসতকারীদের মধ্যে যারা করপোরেশনের চাকরিরত পরিচ্ছন্নতা কর্মী নয়, তাদেরকে পর্যায়ক্রমিকভাবে এ পদে নিয়োগ দেয়া হবে এবং এ ব্যাপারে ইতোমধ্যেই প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। তেলেগু বাসিন্দাদের মধ্যে যারা সিটি করপোরেশনের চাকরিরত পরিচ্ছন্নতা কর্মী, ইতোমধ্যে তাদের একই এলাকায় পার্শ্ববর্তী দুটি বহুতল ভবনে পুনর্বাসিত করা হয়েছে। ঠিক একইভাবে এ ভবন দুটোর পাশে আরও দুটো বহুতল ভবন নির্মাণ করে বাকিদেরকেও পুনর্বাসিত করা হবে। তবে এর জন্যে বেশ খানিকটা সময় প্রয়োজন। এ জন্যে তাদের অস্থায়ী পুনর্বাসনের জন্যে করপোরেশন নিকটবর্তী এলাকার ৫ একর জমি নির্ধারণ করেছে। তাদের কলোনীতে বিদ্যমান স্কুল, মন্দির ও গীর্জা থাকবে। সিটি করপোরেশনের মেয়রের সাথে যে আলোচনা হয়েছে তা তেলেগু কলোনীর বাসিন্দাদের সামনে তুলে ধরার জন্যে ২০ ফেব্রুয়ারি সকালে এ্যাডভোকেট রাণা দাশগুপ্ত বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজল দেবনাথ ও সহ সাংগঠনিক সম্পাদক বাপ্পাদিত্য বসু, এ এল আর ডি’র নির্বাহী পরিচালক শামসুল হুদা ও প্রোগ্রাম ম্যানেজার রফিক আহমেদ সিরাজী, বেলা’র হেড অব প্রোগ্রাম ফিরোজুল ইসলাম, মানবাধিকার সাংস্কৃতিক ফাউন্ডেশনের আইনজীবী নাহিদ শামস প্রমুখকে নিয়ে যাত্রাবাড়ির তেলেগু কলোনীতে যান এবং নারী পুরুষ নির্বিশেষে সবাইকে মেয়র তাপসের বক্তব্য তুলে ধরে তাদের অস্থায়ী পুনর্বাসনস্থলে আশ্রয় নেওয়ার অনুরোধ জানান। উপস্থিত এলাকাবাসী এ অনুরোধ রক্ষার প্রতিশ্রুতি দেন। এ্যাডভোকেট দাশগুপ্ত অস্থায়ী পুনর্বাসনস্থলে প্রতিটি পরিবারের জন্যে ছাপড়া ঘর নির্মাণ ছাড়াও তাদের পয়ঃনিষ্কাশন, বিদ্যুৎ, পানির ব্যবস্থার জন্য ব্যারিস্টার তাপসের প্রতি আহ্বান জানান। ##