০৬:১১ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী পাইপলাইনের উদ্বোধন

  • অফিস ডেক্স।।
  • প্রকাশিত সময় : ০৯:১৬:১৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মার্চ ২০২৩
  • ৪৩ পড়েছেন

###        বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী পাইপলাইন উদ্বোধন করেছেন দুই দেশের সরকার প্রধান। শনিবার (১৮ মার্চ) বিকেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঢাকা থেকে এবং ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি দিল্লি থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে জ্বালানি তেল আনতে এই পাইপলাইন উদ্বোধন করেন। দুই দেশের মধ্যে প্রথম আন্তঃসীমান্ত জ্বালানি তেলের পাইপলাইনটির বার্ষিক এক মিলিয়ন টন হাই-স্পিড ডিজেল (এইচএসডি) পরিবহনের সক্ষমতা রয়েছে এবং এটি প্রাথমিকভাবে বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলের সাতটি জেলায় ডিজেল সরবরাহ করবে। ৩’শ ৭৭ কোটি রুপির এই পাইপলাইনের মধ্যে বাংলাদেশের অংশটি ভারতীয় অনুদানের সহায়তায় প্রায়  ২’শ ৮৫ কোটি রূপি ব্যয়ে নির্মিত হয়েছে। ভারতীয় পিএমওর বিবৃতিতে বলা হয়, ভারত-বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশিপ পাইপলাইনের কার্যক্রম ভারত থেকে বাংলাদেশে হাই-স্পিড ডিজেল পরিবহন টেকসই, নির্ভরযোগ্য, সাশ্রয়ী ও পরিবেশ-বান্ধব করবে এবং এর মাধ্যমে দুই দেশের মধ্যে জ্বালানি নিরাপত্তায় সহযোগিতা আরও বাড়বে। পশ্চিমবঙ্গের শিলিগুড়ি থেকে দিনাজপুরের পার্বতীপুরের মেঘনা পেট্রোলিয়াম ডিপো পর্যন্ত বিস্তৃত পাইপলাইনের মাধ্যমে ভারত থেকে বাংলাদেশে ডিজেল আমদানির জন্য ২০১৭ সালে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। পাইপলাইনটি বাংলাদেশের ভূখণ্ডে ১২৫ কিলোমিটার এবং ভারতের অভ্যন্তরে পাঁচ কিলোমিটার বিস্তৃত। এর আগে বাংলাদেশ ভারত থেকে ডিজেল আমদানি করতে রেলগাড়ি ব্যবহার করত।##

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

Dainik adhumati

জনপ্রিয়

গলাচিপায় অবৈধ দোকান উচ্ছেদের মাধ্যমে রাস্তা উন্মুক্ত করায় প্রসংশিত মেয়র

বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী পাইপলাইনের উদ্বোধন

প্রকাশিত সময় : ০৯:১৬:১৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মার্চ ২০২৩

###        বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী পাইপলাইন উদ্বোধন করেছেন দুই দেশের সরকার প্রধান। শনিবার (১৮ মার্চ) বিকেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঢাকা থেকে এবং ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি দিল্লি থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে জ্বালানি তেল আনতে এই পাইপলাইন উদ্বোধন করেন। দুই দেশের মধ্যে প্রথম আন্তঃসীমান্ত জ্বালানি তেলের পাইপলাইনটির বার্ষিক এক মিলিয়ন টন হাই-স্পিড ডিজেল (এইচএসডি) পরিবহনের সক্ষমতা রয়েছে এবং এটি প্রাথমিকভাবে বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলের সাতটি জেলায় ডিজেল সরবরাহ করবে। ৩’শ ৭৭ কোটি রুপির এই পাইপলাইনের মধ্যে বাংলাদেশের অংশটি ভারতীয় অনুদানের সহায়তায় প্রায়  ২’শ ৮৫ কোটি রূপি ব্যয়ে নির্মিত হয়েছে। ভারতীয় পিএমওর বিবৃতিতে বলা হয়, ভারত-বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশিপ পাইপলাইনের কার্যক্রম ভারত থেকে বাংলাদেশে হাই-স্পিড ডিজেল পরিবহন টেকসই, নির্ভরযোগ্য, সাশ্রয়ী ও পরিবেশ-বান্ধব করবে এবং এর মাধ্যমে দুই দেশের মধ্যে জ্বালানি নিরাপত্তায় সহযোগিতা আরও বাড়বে। পশ্চিমবঙ্গের শিলিগুড়ি থেকে দিনাজপুরের পার্বতীপুরের মেঘনা পেট্রোলিয়াম ডিপো পর্যন্ত বিস্তৃত পাইপলাইনের মাধ্যমে ভারত থেকে বাংলাদেশে ডিজেল আমদানির জন্য ২০১৭ সালে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। পাইপলাইনটি বাংলাদেশের ভূখণ্ডে ১২৫ কিলোমিটার এবং ভারতের অভ্যন্তরে পাঁচ কিলোমিটার বিস্তৃত। এর আগে বাংলাদেশ ভারত থেকে ডিজেল আমদানি করতে রেলগাড়ি ব্যবহার করত।##