১০:২৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বাকেরগঞ্জে গৃহবধূ ধর্ষণে ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে থানায় মামলা

  • সংবাদদাতা
  • প্রকাশিত সময় : ১১:২০:২০ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৪ অক্টোবর ২০২২
  • ২১১ পড়েছেন

বাকেরগঞ্জ প্রতিনিধি : বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার রঙ্গশ্রী ইউনিয়নের আউলিয়াপুর গ্রামের মো: জালাল শরীফের পুত্র ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি রিয়াজ শরীফের বিরুদ্ধে বরিশাল কোতোয়ালি থানায় একটি ধর্ষণ মামলা হয়েছে। ধর্ষিতা গৃহবধূ বর্তমানে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসিতে ভর্তি রয়েছেন।

মামলা সুত্রে জানা যায়, উপজেলার রঙ্গশ্রী ইউনিয়নের আউলিয়াপুর গ্রামের গৃহবধূ দুই সন্তানের জননী রাহেলা বেগমের (ছদ্দনাম) সাথে পরকীয়া সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে ছাত্রলীগ নেতা রিয়াজ শরীফ। ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে রাহেলা বেগমের পুত্র কাওসার শেখকে প্রাইভেট পড়ানোর জন্য প্রতিবেশী ছাত্রলীগ নেতা রিয়াজ শরীফকে ঠিক করা হয়। রাহেলা বেগমের আউলিয়াপুর গ্রামে স্বামীর বাড়িতে নিয়মিত প্রাইভেট শিক্ষক হিসেবে রিয়াজ শরীফ আসা যাওয়া করতো। রাহেলা বেগমের প্রতি শিক্ষক রিয়াজের কুদৃষ্টি পড়লে বিভিন্ন ছলাকলায় সে পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক গড়ে। ২০১৮ সালের ৩১ ডিসেম্বর রিয়াজ শরীফ রাহেমা বেগমকে বিয়ের করার কথা বলে বরিশাল কাজী অফিসে নিয়ে স্বামীকে তালাক দেওয়ায়। তখন রাহেলা বেগম কাজী অফিসে অসুস্থ হয়ে পড়লে বিয়ের কাবিনে সে নিজেই স্বাক্ষর করে। বরিশালের পলাশপুরে একটি ভাড়া বাসায় উঠে সেখানে তারা স্বামী-স্ত্রী হিসেবে দেড় বছর বসবাস ও শারীরিক সম্পর্ক করেন। পরবর্তীতে কোতোয়ালি থানার কারিকর বিড়ি ব্রাঞ্চ খ্রিস্টান পাড়া ভাড়া বাসায় স্বামী-স্ত্রী হিসেবে বসবাস করে শারীরিক সম্পর্ক অব্যাহত রেখেই কিছুদিন যাবত সে রাহেলা বেগমের সাথে খারাপ আচরণ শুরু করে এবং ভাড়াটে বাসায় আসা যাওয়া বন্ধ করে দেয়। বিষয়টি রহিমা বেগমের সন্দেহ হলে রিয়াজ শরীফের কাছে বিয়ের কাবিন নামা দেখতে চায়। রিয়াজ শরীফ বিভিন্ন রকম টালবাহানা করে কাবিননামার বিষয়টি এড়িয়ে যেতে চায়। সর্বশেষ গত ৪ অক্টোবর রাত ৮ টায় কোতোয়ালি থানাধীন সাগরদী ২৫ নং ওয়ার্ডের কারিকর বিড়ি ব্রাঞ্চ রোডের খ্রিস্টান পাড়া (মিঠুয়া নীড়) ভবনের নিচ তলা রাহিমা বেগমের ভাড়াটে বাসায় এসে সে বিভিন্ন কথাবার্তা বলতে থাকে। একপর্যায় ওই রাতেই রুমের মধ্যে থাকা খাটের উপর শুয়াইয়া রাহেলা বেগমের অনিশ্চার বিরুদ্ধে ধর্ষণ করে।

এ বিষয়ে রাহেলা বেগম বাদী হয়ে রিয়াজ শরীফের বিরুদ্ধে বরিশাল কোতোয়ালি মডেল থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।

রাহেলা বেগম জানান, রিয়াজ শরীফ নিজেকে রঙ্গশ্রী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি পরিচয় দিয়ে পরকীয়া প্রেমের ফাঁদে ফেলে বিয়ের নামে তার সাথে নাটক করে ৪ বছর স্ত্রী হিসেবে বরিশালের বিভিন্ন স্থানে ভাড়াটে বাসায় রেখে ধর্ষণ করেছে।

মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে কোতোয়ালি থানার ওসি (তদন্ত) ছগির জানান, ২৩ অক্টোবর রাতেই রিয়াজ শরীফের বিরুদ্ধে একটি ধর্ষণ মামলা নেয়া হয়েছে। গত রাতেই আসামী রিয়াজ শরীফের বাকেরগঞ্জ গ্রামের বাড়িতে গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান দেয়া হয়েছে। রিয়াজ শরীফ আত্মগোপনে রয়েছে। তাকে গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

dainik madhumati

জনপ্রিয়

মোল্লাহাটে কেন্দ্রে কেন্দ্রে পৌঁছে গেছে নির্বাচনী সরঞ্জাম

বাকেরগঞ্জে গৃহবধূ ধর্ষণে ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে থানায় মামলা

প্রকাশিত সময় : ১১:২০:২০ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৪ অক্টোবর ২০২২

বাকেরগঞ্জ প্রতিনিধি : বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার রঙ্গশ্রী ইউনিয়নের আউলিয়াপুর গ্রামের মো: জালাল শরীফের পুত্র ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি রিয়াজ শরীফের বিরুদ্ধে বরিশাল কোতোয়ালি থানায় একটি ধর্ষণ মামলা হয়েছে। ধর্ষিতা গৃহবধূ বর্তমানে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসিতে ভর্তি রয়েছেন।

মামলা সুত্রে জানা যায়, উপজেলার রঙ্গশ্রী ইউনিয়নের আউলিয়াপুর গ্রামের গৃহবধূ দুই সন্তানের জননী রাহেলা বেগমের (ছদ্দনাম) সাথে পরকীয়া সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে ছাত্রলীগ নেতা রিয়াজ শরীফ। ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে রাহেলা বেগমের পুত্র কাওসার শেখকে প্রাইভেট পড়ানোর জন্য প্রতিবেশী ছাত্রলীগ নেতা রিয়াজ শরীফকে ঠিক করা হয়। রাহেলা বেগমের আউলিয়াপুর গ্রামে স্বামীর বাড়িতে নিয়মিত প্রাইভেট শিক্ষক হিসেবে রিয়াজ শরীফ আসা যাওয়া করতো। রাহেলা বেগমের প্রতি শিক্ষক রিয়াজের কুদৃষ্টি পড়লে বিভিন্ন ছলাকলায় সে পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক গড়ে। ২০১৮ সালের ৩১ ডিসেম্বর রিয়াজ শরীফ রাহেমা বেগমকে বিয়ের করার কথা বলে বরিশাল কাজী অফিসে নিয়ে স্বামীকে তালাক দেওয়ায়। তখন রাহেলা বেগম কাজী অফিসে অসুস্থ হয়ে পড়লে বিয়ের কাবিনে সে নিজেই স্বাক্ষর করে। বরিশালের পলাশপুরে একটি ভাড়া বাসায় উঠে সেখানে তারা স্বামী-স্ত্রী হিসেবে দেড় বছর বসবাস ও শারীরিক সম্পর্ক করেন। পরবর্তীতে কোতোয়ালি থানার কারিকর বিড়ি ব্রাঞ্চ খ্রিস্টান পাড়া ভাড়া বাসায় স্বামী-স্ত্রী হিসেবে বসবাস করে শারীরিক সম্পর্ক অব্যাহত রেখেই কিছুদিন যাবত সে রাহেলা বেগমের সাথে খারাপ আচরণ শুরু করে এবং ভাড়াটে বাসায় আসা যাওয়া বন্ধ করে দেয়। বিষয়টি রহিমা বেগমের সন্দেহ হলে রিয়াজ শরীফের কাছে বিয়ের কাবিন নামা দেখতে চায়। রিয়াজ শরীফ বিভিন্ন রকম টালবাহানা করে কাবিননামার বিষয়টি এড়িয়ে যেতে চায়। সর্বশেষ গত ৪ অক্টোবর রাত ৮ টায় কোতোয়ালি থানাধীন সাগরদী ২৫ নং ওয়ার্ডের কারিকর বিড়ি ব্রাঞ্চ রোডের খ্রিস্টান পাড়া (মিঠুয়া নীড়) ভবনের নিচ তলা রাহিমা বেগমের ভাড়াটে বাসায় এসে সে বিভিন্ন কথাবার্তা বলতে থাকে। একপর্যায় ওই রাতেই রুমের মধ্যে থাকা খাটের উপর শুয়াইয়া রাহেলা বেগমের অনিশ্চার বিরুদ্ধে ধর্ষণ করে।

এ বিষয়ে রাহেলা বেগম বাদী হয়ে রিয়াজ শরীফের বিরুদ্ধে বরিশাল কোতোয়ালি মডেল থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।

রাহেলা বেগম জানান, রিয়াজ শরীফ নিজেকে রঙ্গশ্রী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি পরিচয় দিয়ে পরকীয়া প্রেমের ফাঁদে ফেলে বিয়ের নামে তার সাথে নাটক করে ৪ বছর স্ত্রী হিসেবে বরিশালের বিভিন্ন স্থানে ভাড়াটে বাসায় রেখে ধর্ষণ করেছে।

মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে কোতোয়ালি থানার ওসি (তদন্ত) ছগির জানান, ২৩ অক্টোবর রাতেই রিয়াজ শরীফের বিরুদ্ধে একটি ধর্ষণ মামলা নেয়া হয়েছে। গত রাতেই আসামী রিয়াজ শরীফের বাকেরগঞ্জ গ্রামের বাড়িতে গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান দেয়া হয়েছে। রিয়াজ শরীফ আত্মগোপনে রয়েছে। তাকে গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে।