০৫:৩৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বাগেরহাটে বৃদ্ধের রহস্যজনক মৃত্যু

###   বাগেরহাটের কচুয়ায় আমির হাজরা(৭০) নামের বৃদ্ধের রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। শনিবার সকালে বাগেরহাট রাজিয়া নাসের ২৫০ শয্যা জেলা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। এদিন দুপুরে নিহতের মরদেহ ময়না তদন্তের শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছে পুলিশ।এর আগে শুক্রবার বিকেলে কচুয়া উপজেলার টেংরাখালী গ্রামে নিজ বাড়ি থেকে বের হয়ে আমির হাজরা নিখোজঁ হন।  শনিবার ভোরে নিহতের বাড়ির পাশে মুরাদ মীরের বাড়ির সুপারির বাগান থেকে অচেতন অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে স্বজনরা কচুয়া হাসপাতালে ভর্তি করে। নিহতের ছেলে তরিকুল ইসলাম বলেন, আমাদের সাথে প্রতিবেশি সেলিম, আনোয়ার ও সোহরাব হাজরা দের জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল। আমাদের জমি ফেরত দেবার কথা থাকলেও না দিয়ে বাবাকে ঘুরাতে থাকে। এক পর্যায়ে বাবা মানষিক ভাবে অসুস্থ হয়ে পড়েন। তিনি বলেন, আমার বাবা শুক্রবার বাড়ি থেকে বের হয় আর ফিরে আসেনি। পরে অনেক খোজাখুজির পর শনিবার ভোরে মুরাদ মীরের বাড়ির সুপারির বাগান থেকে অচেতন অবস্থায় দেখতে পেয়ে উদ্ধার করে কচুয়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে বাগেরহাট রাজিয়া নাসের ২৫০ শয্যা জেলা হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। বাবার মৃত্যুর জন্য প্রতিবেশি সেলিম, আনোয়ার ও সোহরাব হাজরা দায়ি। আমরা তাদের বিচার চাই। তবে এবিষয়ে সেলিম হাজরা  অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, যে জমি ফেরত দেওয়ার কথা ছিল সে জমি আমি ফেরত দিয়েছি। অহেতুক হয়রানি করতে তারা মনগড়া অভিযোগ দিচ্ছে। কচুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুল হক জানান, ওই বৃদ্ধ বিষপানে আত্মহত্যা করছে বলে প্রাথমিক তথ্য পেয়েছি। ময়না তদন্ত শেষে প্রকৃত কারণ জেনে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।##

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

Dainik Madhumati

জনপ্রিয়

দেবহাটা রিপোর্টার্স ক্লাবের বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত 

বাগেরহাটে বৃদ্ধের রহস্যজনক মৃত্যু

প্রকাশিত সময় : ০৮:৩৬:৩৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৫ অক্টোবর ২০২২

###   বাগেরহাটের কচুয়ায় আমির হাজরা(৭০) নামের বৃদ্ধের রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। শনিবার সকালে বাগেরহাট রাজিয়া নাসের ২৫০ শয্যা জেলা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। এদিন দুপুরে নিহতের মরদেহ ময়না তদন্তের শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছে পুলিশ।এর আগে শুক্রবার বিকেলে কচুয়া উপজেলার টেংরাখালী গ্রামে নিজ বাড়ি থেকে বের হয়ে আমির হাজরা নিখোজঁ হন।  শনিবার ভোরে নিহতের বাড়ির পাশে মুরাদ মীরের বাড়ির সুপারির বাগান থেকে অচেতন অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে স্বজনরা কচুয়া হাসপাতালে ভর্তি করে। নিহতের ছেলে তরিকুল ইসলাম বলেন, আমাদের সাথে প্রতিবেশি সেলিম, আনোয়ার ও সোহরাব হাজরা দের জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল। আমাদের জমি ফেরত দেবার কথা থাকলেও না দিয়ে বাবাকে ঘুরাতে থাকে। এক পর্যায়ে বাবা মানষিক ভাবে অসুস্থ হয়ে পড়েন। তিনি বলেন, আমার বাবা শুক্রবার বাড়ি থেকে বের হয় আর ফিরে আসেনি। পরে অনেক খোজাখুজির পর শনিবার ভোরে মুরাদ মীরের বাড়ির সুপারির বাগান থেকে অচেতন অবস্থায় দেখতে পেয়ে উদ্ধার করে কচুয়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে বাগেরহাট রাজিয়া নাসের ২৫০ শয্যা জেলা হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। বাবার মৃত্যুর জন্য প্রতিবেশি সেলিম, আনোয়ার ও সোহরাব হাজরা দায়ি। আমরা তাদের বিচার চাই। তবে এবিষয়ে সেলিম হাজরা  অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, যে জমি ফেরত দেওয়ার কথা ছিল সে জমি আমি ফেরত দিয়েছি। অহেতুক হয়রানি করতে তারা মনগড়া অভিযোগ দিচ্ছে। কচুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুল হক জানান, ওই বৃদ্ধ বিষপানে আত্মহত্যা করছে বলে প্রাথমিক তথ্য পেয়েছি। ময়না তদন্ত শেষে প্রকৃত কারণ জেনে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।##