০৫:৫৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বাগেরহাটে ২২ বছর পরে বেরিবাঁধ সংস্কার কাজ শুর

  • সংবাদদাতা
  • প্রকাশিত সময় : ০৭:৪৭:০০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২২ নভেম্বর ২০২২
  • ৩৯ পড়েছেন

বাগেরহাট অফিস :
দীর্ঘ ২২ বছর পরে বাগেরহাটের ভাতছালা থেকে মুনিগঞ্জ পর্যন্ত বেরিবাঁধের সংস্কার কাজ শুরু হয়েছে।সোমবার (২১ নভেম্বর) সকালে সদর উপজেলার বেমরতা ইউনিয়নের ভাতছালা এলাকা থেকে এই সংস্কার কাজের উদ্বোধন করেন পানি উন্নয়ন বোর্ড বাগেরহাটের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ মাসুম বিল্লাহ।এসময়, পানি উন্নয়ন বোর্ড বাগেরহাটের উপ—বিভাগীয় প্রকৌশলী কুমার সস্তিক, বেমরতা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মনোয়ার হোসেন টগরসহ গন্যমান্য ব্যক্তিগন উপস্থিত ছিলেন।
নাজিরপুর উপ প্রকল্পের অধীনে ৯০ লাখ টাকা ব্যয়ে ভাতছালা থেকে মুনিগঞ্জ পর্যন্ত তিন কিলোমিটার বাঁধ সংস্কার করা হবে।দীর্ঘদিন পরে সংস্কার কাজ শুরু হওয়ায় সন্তোষ প্রকাশ করেছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।
চরগ্রাম এলাকার ব্যবসায়ী খোকন শেখ বলেন, দীর্ঘ ২২ বছর ধরে নদীর জোয়ার ভাটার উপর নিভর্র করে আমাদের জীবন—যাপন করতে হত।জোয়ারের পানিতে প্লাবিত হত আমাদের বাড়িঘর। অনেক সময় কৃষি ক্ষেত এবং গবাদী পশুও ক্ষতিগ্রস্থ হত আমাদের।বাঁধ নির্মান হলে অনাকাঙ্খিত পানির হাত থেকে রক্ষা পাব আমরা।
মারুফ হোসেন বলেন,বাঁধ না থাকায় যখন তখন লবন পানি উঠে আমাদের ফসল নষ্ট হয়ে যেত। ঘের ও পুকুরের মাছ ভেসে যেত।এই বাঁধ হলে বর্ষা মৌসুম ও ভরা জোয়ারের পানি থেকে আমরা রক্ষা পাব। এই এলাকার মানুষ স্বাভাবিক জীবন—যাপন করতে পারবে।
পানি উন্নয়ন বোর্ড বাগেরহাটের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ মাসুম বিল্লাহ বলেন,জলবায়ু পরিবর্তনের সাথে তাল মিলিয়ে পানির উচ্চতা নির্ধারণ করে এই বাঁধ নির্মান করা হচ্ছে।আগামী ডিসেম্বর মাসের মধ্যে বাঁধ নির্মান কাজ সম্পন্ন করা হবে।এই বাঁধের ফলে বেমরতা ও গোটাপাড়া ইউনিয়নের ৪টি গ্রামের মানুষের দীর্ঘ দিনের দূর্ভোগ লাঘব হবে বলে দাবি করেন তিনি।

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

dainik madhumati

জনপ্রিয়

দেবহাটায় জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন এ্যাডভোকেসি সভা অনুষ্ঠিত 

বাগেরহাটে ২২ বছর পরে বেরিবাঁধ সংস্কার কাজ শুর

প্রকাশিত সময় : ০৭:৪৭:০০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২২ নভেম্বর ২০২২

বাগেরহাট অফিস :
দীর্ঘ ২২ বছর পরে বাগেরহাটের ভাতছালা থেকে মুনিগঞ্জ পর্যন্ত বেরিবাঁধের সংস্কার কাজ শুরু হয়েছে।সোমবার (২১ নভেম্বর) সকালে সদর উপজেলার বেমরতা ইউনিয়নের ভাতছালা এলাকা থেকে এই সংস্কার কাজের উদ্বোধন করেন পানি উন্নয়ন বোর্ড বাগেরহাটের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ মাসুম বিল্লাহ।এসময়, পানি উন্নয়ন বোর্ড বাগেরহাটের উপ—বিভাগীয় প্রকৌশলী কুমার সস্তিক, বেমরতা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মনোয়ার হোসেন টগরসহ গন্যমান্য ব্যক্তিগন উপস্থিত ছিলেন।
নাজিরপুর উপ প্রকল্পের অধীনে ৯০ লাখ টাকা ব্যয়ে ভাতছালা থেকে মুনিগঞ্জ পর্যন্ত তিন কিলোমিটার বাঁধ সংস্কার করা হবে।দীর্ঘদিন পরে সংস্কার কাজ শুরু হওয়ায় সন্তোষ প্রকাশ করেছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।
চরগ্রাম এলাকার ব্যবসায়ী খোকন শেখ বলেন, দীর্ঘ ২২ বছর ধরে নদীর জোয়ার ভাটার উপর নিভর্র করে আমাদের জীবন—যাপন করতে হত।জোয়ারের পানিতে প্লাবিত হত আমাদের বাড়িঘর। অনেক সময় কৃষি ক্ষেত এবং গবাদী পশুও ক্ষতিগ্রস্থ হত আমাদের।বাঁধ নির্মান হলে অনাকাঙ্খিত পানির হাত থেকে রক্ষা পাব আমরা।
মারুফ হোসেন বলেন,বাঁধ না থাকায় যখন তখন লবন পানি উঠে আমাদের ফসল নষ্ট হয়ে যেত। ঘের ও পুকুরের মাছ ভেসে যেত।এই বাঁধ হলে বর্ষা মৌসুম ও ভরা জোয়ারের পানি থেকে আমরা রক্ষা পাব। এই এলাকার মানুষ স্বাভাবিক জীবন—যাপন করতে পারবে।
পানি উন্নয়ন বোর্ড বাগেরহাটের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ মাসুম বিল্লাহ বলেন,জলবায়ু পরিবর্তনের সাথে তাল মিলিয়ে পানির উচ্চতা নির্ধারণ করে এই বাঁধ নির্মান করা হচ্ছে।আগামী ডিসেম্বর মাসের মধ্যে বাঁধ নির্মান কাজ সম্পন্ন করা হবে।এই বাঁধের ফলে বেমরতা ও গোটাপাড়া ইউনিয়নের ৪টি গ্রামের মানুষের দীর্ঘ দিনের দূর্ভোগ লাঘব হবে বলে দাবি করেন তিনি।