১০:৫৬ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা হেলাল ও জেলা আহবায়ক আমীর এজাজসহ ১৩জন নেতাকর্মীকে দুই মামলায় জেলহাজতে

  • অফিস ডেক্স।।
  • প্রকাশিত সময় : ০৯:৪০:৪১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৮ এপ্রিল ২০২৩
  • ৩২ পড়েছেন

###    বিএনপির কেন্দ্রীয় তথ্য বিষয়ক সম্পাদক আজিজুল বারী হেলাল ও খুলনা জেলা বিএনপির আহবায়ক আমীর এজাজ খানসহ ডুমুরিয়া এবং দিঘলিয়া থানার পৃথক দুই মামলায় ১৩জন নেতাকর্মীকে জেলহাজতে পাঠিয়েছে আদালত। বৃহস্পতিবার (২৭ এপ্রিল) খুলনা জেলা দায়রা জজ আদালতের বিচারক মীর শফিকুল আলম এ আদেশ দেন। উচ্চআদালতের জামিন শেষে নিম্নআদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করলে শুনানী শেষে জামিন নামঞ্জুর করে জেলহাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন আদালত। ডুমুরিয়া থানার মামলায় বিএনপির কেন্দ্রীয় তথ্য বিষয়ক সম্পাদক আজিজুল বারী হেলাল, খুলনা জেলা বিএনপির আহবায়ক আমীর এজাজ খান, শেখ ফরহাদ হোসেন, আবরার হোসাইন সৈকত, আব্দুর রব আকুঞ্জি, মোঃ জামিনুর রহমান, মোল্লা মশিউর রহমান, মোঃ শাহ নেওয়াজ শেখ। অন্যদিকে, দিঘলিয়া থানায় অনুরুপ অভিযোগে দায়েরকৃত মামলায় হিমেল গাজী, নবাব মোল্লা, সোহেল রানা, মিঠু খান ও সৈয়দ সাগরকে জেলহাজতে প্রেরণ করেছে আদালত।

জানা গেছে, গত ১১ ফেব্রুয়ারি বিদ্যুৎ-গ্যাস, নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য, সার-বীজ ও কৃষি উপকরণের মূল্য কমানো এবং বিএনপি চেয়ারপারসন সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তিসহ ১০দফা দাবিতে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির আলোকে সারাদেশের ন্যায় ডুমুরিয়াতেও শান্তিপূর্ণভাবে পদযাত্রা কর্মসূচি পালন করে বিএনপি। ওই দিন হামলা, বাংচুর ও নাশকতার ঘটনায় ডুমুরিয়া থানার এসআই তারেক রাইয়ান বাদী হয়ে বিএনপির কেন্দ্রীয় তথ্য বিষয়ক সম্পাদক আজিজুল বারী হেলাল, জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আমীর এজাজ খান, ডুমুরিয়া উপজেলা শাখার আহ্বায়ক মোল্লা মোশাররফ হোসেন মফিজসহ ১৮জনের নাম উল্লেখসহ ১৩০ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা করে। এ মামলায় উচ্চআদালত থেকে জামিনে ছিলেন নেতৃবৃন্দ। বৃহষ্পতিবার আদালত ডুমুরিয়া উপজেলা বিএনপির আহবায়ক মোল্যা মোশাররফ হোসেন মফিজ, আব্দুল হালিম, মশিউর রহমান লিটন, হাফিজুর রহমান শেখ, শেখ সরোয়ার হোসেন, শফি খান, আতিয়ার সরদার ও সরদার আব্দুল মালেকসহ ৮জনের জামিন মঞ্জুর করে। আদালতে নগর বিএনপি’র সদস্য সচিব মোঃ শফিকুল আলম তুহিন, জেলা বিএনপি’র সদস্য সচিব মনিরুল হাসান বাপ্পীসহ বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

নগর বিএনপির নিন্দা : বিএনপি’র কেন্দ্রীয় তথ্য বিষয়ক সম্পাদক আজিজুল বারী হেলাল ও জেলা বিএনপি’র আহবায়ক আমীর এজাজ খানসহ বিএনপি নেতাকর্মীদের জামিন নামঞ্জুর করে জেলহাজতে প্রেরণের তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন খুলনা মহানগর বিএনপি’র নেতৃবৃন্দ। বিবৃতিদাতারা হলেন মহানগর বিএনপি’র আহবায়ক এ্যাড. এসএম শফিকুল আলম মনা, সদস্য সচিব মোঃ শফিকুল আলম তুহিন ও সিনিয়র যুগ্ম-আহবায়ক তরিকুল ইসলাম জহীর প্রমুখ। বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেছেন, আওয়ামী আজ্ঞাবহ বাকশালী আদালত সরকারের লেজুড়বৃত্তি করছে। জামিন পাওয়া একজন রাজনীতিকের অন্যতম মৌলিক মানবাধিকার। আদালত এখন মানবাধিকার লঙ্ঘণ করে লুটেরা ভোটডাকাত সরকারের পাহারাদারের পরিণত হয়েছে। হামলা-মামলা-গ্রেফতার আর ফ্যাসিবাদের রক্তচক্ষু দেখিয়ে শেখ হাসিনা মাফিয়া সরকারের শেষ রক্ষা হবে না। অচিরেই বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আগামীর রাষ্ট্রনায়ক জনাব তারেক রহমানের নেতৃত্বে মানুষের ভোট ও ভাতের অধিকার আদায়ে একদফার আন্দোলন শুরু হবে ইনশাআল্লাহ্।##

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

Dainik adhumati

বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা হেলাল ও জেলা আহবায়ক আমীর এজাজসহ ১৩জন নেতাকর্মীকে দুই মামলায় জেলহাজতে

প্রকাশিত সময় : ০৯:৪০:৪১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৮ এপ্রিল ২০২৩

###    বিএনপির কেন্দ্রীয় তথ্য বিষয়ক সম্পাদক আজিজুল বারী হেলাল ও খুলনা জেলা বিএনপির আহবায়ক আমীর এজাজ খানসহ ডুমুরিয়া এবং দিঘলিয়া থানার পৃথক দুই মামলায় ১৩জন নেতাকর্মীকে জেলহাজতে পাঠিয়েছে আদালত। বৃহস্পতিবার (২৭ এপ্রিল) খুলনা জেলা দায়রা জজ আদালতের বিচারক মীর শফিকুল আলম এ আদেশ দেন। উচ্চআদালতের জামিন শেষে নিম্নআদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করলে শুনানী শেষে জামিন নামঞ্জুর করে জেলহাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন আদালত। ডুমুরিয়া থানার মামলায় বিএনপির কেন্দ্রীয় তথ্য বিষয়ক সম্পাদক আজিজুল বারী হেলাল, খুলনা জেলা বিএনপির আহবায়ক আমীর এজাজ খান, শেখ ফরহাদ হোসেন, আবরার হোসাইন সৈকত, আব্দুর রব আকুঞ্জি, মোঃ জামিনুর রহমান, মোল্লা মশিউর রহমান, মোঃ শাহ নেওয়াজ শেখ। অন্যদিকে, দিঘলিয়া থানায় অনুরুপ অভিযোগে দায়েরকৃত মামলায় হিমেল গাজী, নবাব মোল্লা, সোহেল রানা, মিঠু খান ও সৈয়দ সাগরকে জেলহাজতে প্রেরণ করেছে আদালত।

জানা গেছে, গত ১১ ফেব্রুয়ারি বিদ্যুৎ-গ্যাস, নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য, সার-বীজ ও কৃষি উপকরণের মূল্য কমানো এবং বিএনপি চেয়ারপারসন সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তিসহ ১০দফা দাবিতে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির আলোকে সারাদেশের ন্যায় ডুমুরিয়াতেও শান্তিপূর্ণভাবে পদযাত্রা কর্মসূচি পালন করে বিএনপি। ওই দিন হামলা, বাংচুর ও নাশকতার ঘটনায় ডুমুরিয়া থানার এসআই তারেক রাইয়ান বাদী হয়ে বিএনপির কেন্দ্রীয় তথ্য বিষয়ক সম্পাদক আজিজুল বারী হেলাল, জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আমীর এজাজ খান, ডুমুরিয়া উপজেলা শাখার আহ্বায়ক মোল্লা মোশাররফ হোসেন মফিজসহ ১৮জনের নাম উল্লেখসহ ১৩০ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা করে। এ মামলায় উচ্চআদালত থেকে জামিনে ছিলেন নেতৃবৃন্দ। বৃহষ্পতিবার আদালত ডুমুরিয়া উপজেলা বিএনপির আহবায়ক মোল্যা মোশাররফ হোসেন মফিজ, আব্দুল হালিম, মশিউর রহমান লিটন, হাফিজুর রহমান শেখ, শেখ সরোয়ার হোসেন, শফি খান, আতিয়ার সরদার ও সরদার আব্দুল মালেকসহ ৮জনের জামিন মঞ্জুর করে। আদালতে নগর বিএনপি’র সদস্য সচিব মোঃ শফিকুল আলম তুহিন, জেলা বিএনপি’র সদস্য সচিব মনিরুল হাসান বাপ্পীসহ বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

নগর বিএনপির নিন্দা : বিএনপি’র কেন্দ্রীয় তথ্য বিষয়ক সম্পাদক আজিজুল বারী হেলাল ও জেলা বিএনপি’র আহবায়ক আমীর এজাজ খানসহ বিএনপি নেতাকর্মীদের জামিন নামঞ্জুর করে জেলহাজতে প্রেরণের তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন খুলনা মহানগর বিএনপি’র নেতৃবৃন্দ। বিবৃতিদাতারা হলেন মহানগর বিএনপি’র আহবায়ক এ্যাড. এসএম শফিকুল আলম মনা, সদস্য সচিব মোঃ শফিকুল আলম তুহিন ও সিনিয়র যুগ্ম-আহবায়ক তরিকুল ইসলাম জহীর প্রমুখ। বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেছেন, আওয়ামী আজ্ঞাবহ বাকশালী আদালত সরকারের লেজুড়বৃত্তি করছে। জামিন পাওয়া একজন রাজনীতিকের অন্যতম মৌলিক মানবাধিকার। আদালত এখন মানবাধিকার লঙ্ঘণ করে লুটেরা ভোটডাকাত সরকারের পাহারাদারের পরিণত হয়েছে। হামলা-মামলা-গ্রেফতার আর ফ্যাসিবাদের রক্তচক্ষু দেখিয়ে শেখ হাসিনা মাফিয়া সরকারের শেষ রক্ষা হবে না। অচিরেই বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আগামীর রাষ্ট্রনায়ক জনাব তারেক রহমানের নেতৃত্বে মানুষের ভোট ও ভাতের অধিকার আদায়ে একদফার আন্দোলন শুরু হবে ইনশাআল্লাহ্।##