১০:৩৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
খুলনায় মহানগর আওয়ামী লীগের শান্তি সমাবেশ:

বিএনপি-জামায়াত ষড়যন্ত্র ও সন্ত্রাস-নৈরাজ্যের চেষ্টা করলে আওয়ামীলীগ রাজপথেই দাতভাঙ্গা জবাব দেবে: এসএম কামাল

rbt

###    খুলনায় বিএনপি জামায়াতের উগ্রজঙ্গি মৌলবাদী সাম্প্রদায়িক কর্মকান্ড, দেশ বিরোধী ষড়যন্ত্র চিরতরে বন্ধ ও দেশব্যাপী সন্ত্রাসের প্রতিবাদে এবং প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনা এমপির উন্নয়ন ও শান্তির বার্তা দেশময় ছড়িয়ে দিতে প্রতিবাদে মহানগর আওয়ামী লীগের শান্তি সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার(০৪মার্চ) বিকেল ৪টায় দলীয় কার্যালয়ের সামনে সড়কে অনুষ্ঠিত শান্তি সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন। শান্তি সমাবেশে সভাপতিত্বে করেন খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক। সমাবেশে প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম ডি এ বাবুল রানা। সমাবেশে প্রধান অতিথি বলেন, আওয়ামী লীগকে ভয় দেখিয়ে লাভ নেই। আওয়ামী লীগ কোন সেনা ছাউনি থেকে আসেনি। এটি জনগণের ম্যান্ডেট নিয়ে জন্মলগ্ন থেকে একইভাবে মানুষের সেবায় কাজ করছে। সে কারণেই আওয়ামী লীগকে ঝাঁকি দিলেই পড়ে যাবে না। আওয়ামী লীগ মর্যাদাশীল দক্ষ একটি রাজনৈতিক দল। তিনি আরো বলেন, বিএনপি ২০১৪ সালের মত গান পাউডার দিয়ে মানুষকে দগ্ধ করে হত্যা করার ষড়যন্ত্র করছে। এ ষড়যন্ত্র আর টিকবে না। কারণ আওয়ামী লীগ বিএনপি-জামায়াতের অগ্নি সন্ত্রাস প্রতিহত করবে। আওয়ামী লীগ নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে বিএনপি-জামায়াতের অগ্নি সন্ত্রাস চিরতরে বন্ধ করে দিবে। আওয়ামী লীগ নির্বাচনে শেখ হাসিনাকে ৫ম বারের মত নির্বাচিত করে বিএনপি-জামায়াতের সকল ষড়যন্ত্র ও অপপ্রচারের উপযুক্ত জবাব দিবে।  তিনি আরও বলেন, বিএনপি-জামায়াত জোট দেশে আবারও উগ্রজঙ্গি মৌলবাদী সাম্প্রদায়িক কর্মকাণ্ড শুরু করেছে। তারা দেশের বিরুদ্ধে একের পর এক ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী দেশ রত্ন শেখ হাসিনার উন্নয়ণ ও সমৃদ্ধির রাজনীতির কাছে বরাবরই মার খাচ্ছে। আগামী জাতীয় র্বাচনকে সামনে রেখে বিএনপি-জামায়াত আবারও গভীর ষড়যন্ত্রে মেতেছে। তারা গনতন্ত্র ও ভোটের অধিকারের আন্দোলনের নামে দেশে সন্ত্রাস ও নৈরাজ্য সৃষ্টি করে পিছনের দরজা দিয়ে অনির্বাচিত সরকারকে ক্ষমতায় আনতে চায়। সে সুযোগ বাংলাদেশে আর কোনদিনই হবে না। বিএনপি-জামায়াতের দেশ বিরোধী ষড়যন্ত্র চিরতরে বন্ধ ও দেশব্যাপী সন্ত্রাসের পায়তারা যেখনেই করবে সেখানেই আওয়ামীলীগ মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পক্ষের ও শান্তিপ্রিয় মানুষকে সাথে নিয়ে রাজপথেই দাতভাঙ্গা জবাব দেবে। তিনি আরও বলেন, দেশে গত ১৫বছরে যে উন্নয়ণ হয়েছে সে কারনে মানুষ অনেক ভালো আছে।বিএনপি-জামায়াত আমা করেছিল বাংরাদেশ শ্রীলংকার মত হবে। কিন্তু শেখ হাসিনার দূরদর্শীতার কারনে হয়নি কখনও বাংলাদেশ শ্রীলংকার মতো হবে না। বিএনপির দিবাস্বপ্ন কখনই পুরন হবে না। তিনি শেখ হাসিনার উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির এ কর্মকান্ড প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষের ঘরে ঘরে পৌছে দেয়ার জণ্য নেতাকর্মীদের প্রতি আহবান জানান।

খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মোঃ মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ ও উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মোঃ মফিদুল ইসলাম টুটুলের পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বীর মুক্তিযোদ্ধা শ্যামল সিংহ রায়, অধ্যক্ষ শহিদুল হক মিন্টু, জামাল উদ্দিন বাচ্চু, শেখ মোঃ ফারুক আহমদ, কাউন্সিলর ফকির মোঃ সাইফুল ইসলাম, তসলিম আহমেদ আশা, এসএম আকিল উদ্দিন, এড. সুলতানা রহমান শিল্পী, রণজিত কুমার ঘোষ, এমএ নাসিম, এসএম আসাদুজ্জামান রাসেল ও ছাত্রনেতা রাহুল শাহরিয়ার। এসময়ে অন্যানের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা এ্যাড. আইয়ুব আলী শেখ, বীর মুক্তিযোদ্ধা নুর ইসলাম বন্দ, বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যা. আলমগীর কবির, এ্যাড. খন্দকার মজিবর রহমান, প্যানেল মেয়র আলী আকবর টিপু, কাউন্সিলর জেড এ মাহমুদ ডন, কাউন্সিলর শামছ্জ্জুামান মিয়া স্বপন, এ্যাড. অলোকা নন্দা দাস, কামরুল ইসলাম বাবলু, অধ্যা. রুনু ইকবাল, মাহবুবুল আলম বাবলু মোল্লা, কাউন্সিলর শেখ হাফিজুর রহমান, কাউন্সিলর আনিছুর রহমান বিশ্বাস, বীর মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলর মুন্সি আব্দুল ওয়াদুদ, এ্যাড. এ কে এম শাহজাহান কচি, এ্যাড. শামীম আহমেদ পলাশ, শেখ নজিবুল ইসলাম নজীব, কাউন্সিলর মোজাফফর রশিদী রেজা, কাউন্সিলর আবুল কালাম আজাদ বিকু, কাউন্সিলর আমেনা হালিম বেবী, কাউন্সিলর কনিকা সাহা, মো. আমির হোসেন, শবনম সাবা, নূরিনা রহমান বিউটি, নুর জাহান রুমি, মীর বরকত আলী, আইরিন চৌধুরী নীপা, মো. মোক্তার হোসেন, আলী আকবর মাতুব্বর, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতা শেখ আবিদ উল্লাহ, মো. নুর ইসলাম, শেখ জাহিদ হোসেন, শেখ জাহিদুল হক,  চ. ম. মজিবুর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা মুন্সি আইয়ুব আলী, শেখ আব্দুল আজিজ, জামিরুল হুদা জহর, চৌধুরী মিনহাজ উজ জামান সজল, মঈনুল ইসলাম নাসির, ফেরদৌস হোসেন লাবু, বাবুল সরদার বাদল, আব্দুল হাই পলাশ, এ্যাড. মো. ফারুক হোসেন, জিয়াউল ইসলাম মন্টু, শেখ হাসান ইফতেখার চালু, ইউসুফ আলী খান, মো. জাকির হোসেন, মো. মোতালেব মিয়া, মীর মো. লিটন, সরদার আব্দুল হালিম, মো. রুহুল আমিন, মুন্সি মো. সেলিম হোসেন, ওহিদুল ইসলাম পলাশ, মো. ফয়েজুল ইসলাম টিটো, আতাউর রহমান শিকদার রাজু, শেখ এশারুল হক, মো. আজম খান, এ্যাড. শামীম মোশাররফ, মো. শিহাব উদ্দিন, মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার, তোতা মিয়া ব্যাপারী, ছাত্রনেতা মাসুদ হাসান সোহান, জব্বার আলী হীরাসহ আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।##

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

Dainik adhumati

জনপ্রিয়

বাকেরগঞ্জে কৃষি ব্যাংকের গ্রাহকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা

খুলনায় মহানগর আওয়ামী লীগের শান্তি সমাবেশ:

বিএনপি-জামায়াত ষড়যন্ত্র ও সন্ত্রাস-নৈরাজ্যের চেষ্টা করলে আওয়ামীলীগ রাজপথেই দাতভাঙ্গা জবাব দেবে: এসএম কামাল

প্রকাশিত সময় : ০৯:১৩:৫১ অপরাহ্ন, শনিবার, ৪ মার্চ ২০২৩

###    খুলনায় বিএনপি জামায়াতের উগ্রজঙ্গি মৌলবাদী সাম্প্রদায়িক কর্মকান্ড, দেশ বিরোধী ষড়যন্ত্র চিরতরে বন্ধ ও দেশব্যাপী সন্ত্রাসের প্রতিবাদে এবং প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনা এমপির উন্নয়ন ও শান্তির বার্তা দেশময় ছড়িয়ে দিতে প্রতিবাদে মহানগর আওয়ামী লীগের শান্তি সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার(০৪মার্চ) বিকেল ৪টায় দলীয় কার্যালয়ের সামনে সড়কে অনুষ্ঠিত শান্তি সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন। শান্তি সমাবেশে সভাপতিত্বে করেন খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক। সমাবেশে প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম ডি এ বাবুল রানা। সমাবেশে প্রধান অতিথি বলেন, আওয়ামী লীগকে ভয় দেখিয়ে লাভ নেই। আওয়ামী লীগ কোন সেনা ছাউনি থেকে আসেনি। এটি জনগণের ম্যান্ডেট নিয়ে জন্মলগ্ন থেকে একইভাবে মানুষের সেবায় কাজ করছে। সে কারণেই আওয়ামী লীগকে ঝাঁকি দিলেই পড়ে যাবে না। আওয়ামী লীগ মর্যাদাশীল দক্ষ একটি রাজনৈতিক দল। তিনি আরো বলেন, বিএনপি ২০১৪ সালের মত গান পাউডার দিয়ে মানুষকে দগ্ধ করে হত্যা করার ষড়যন্ত্র করছে। এ ষড়যন্ত্র আর টিকবে না। কারণ আওয়ামী লীগ বিএনপি-জামায়াতের অগ্নি সন্ত্রাস প্রতিহত করবে। আওয়ামী লীগ নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে বিএনপি-জামায়াতের অগ্নি সন্ত্রাস চিরতরে বন্ধ করে দিবে। আওয়ামী লীগ নির্বাচনে শেখ হাসিনাকে ৫ম বারের মত নির্বাচিত করে বিএনপি-জামায়াতের সকল ষড়যন্ত্র ও অপপ্রচারের উপযুক্ত জবাব দিবে।  তিনি আরও বলেন, বিএনপি-জামায়াত জোট দেশে আবারও উগ্রজঙ্গি মৌলবাদী সাম্প্রদায়িক কর্মকাণ্ড শুরু করেছে। তারা দেশের বিরুদ্ধে একের পর এক ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী দেশ রত্ন শেখ হাসিনার উন্নয়ণ ও সমৃদ্ধির রাজনীতির কাছে বরাবরই মার খাচ্ছে। আগামী জাতীয় র্বাচনকে সামনে রেখে বিএনপি-জামায়াত আবারও গভীর ষড়যন্ত্রে মেতেছে। তারা গনতন্ত্র ও ভোটের অধিকারের আন্দোলনের নামে দেশে সন্ত্রাস ও নৈরাজ্য সৃষ্টি করে পিছনের দরজা দিয়ে অনির্বাচিত সরকারকে ক্ষমতায় আনতে চায়। সে সুযোগ বাংলাদেশে আর কোনদিনই হবে না। বিএনপি-জামায়াতের দেশ বিরোধী ষড়যন্ত্র চিরতরে বন্ধ ও দেশব্যাপী সন্ত্রাসের পায়তারা যেখনেই করবে সেখানেই আওয়ামীলীগ মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পক্ষের ও শান্তিপ্রিয় মানুষকে সাথে নিয়ে রাজপথেই দাতভাঙ্গা জবাব দেবে। তিনি আরও বলেন, দেশে গত ১৫বছরে যে উন্নয়ণ হয়েছে সে কারনে মানুষ অনেক ভালো আছে।বিএনপি-জামায়াত আমা করেছিল বাংরাদেশ শ্রীলংকার মত হবে। কিন্তু শেখ হাসিনার দূরদর্শীতার কারনে হয়নি কখনও বাংলাদেশ শ্রীলংকার মতো হবে না। বিএনপির দিবাস্বপ্ন কখনই পুরন হবে না। তিনি শেখ হাসিনার উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির এ কর্মকান্ড প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষের ঘরে ঘরে পৌছে দেয়ার জণ্য নেতাকর্মীদের প্রতি আহবান জানান।

খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মোঃ মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ ও উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মোঃ মফিদুল ইসলাম টুটুলের পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বীর মুক্তিযোদ্ধা শ্যামল সিংহ রায়, অধ্যক্ষ শহিদুল হক মিন্টু, জামাল উদ্দিন বাচ্চু, শেখ মোঃ ফারুক আহমদ, কাউন্সিলর ফকির মোঃ সাইফুল ইসলাম, তসলিম আহমেদ আশা, এসএম আকিল উদ্দিন, এড. সুলতানা রহমান শিল্পী, রণজিত কুমার ঘোষ, এমএ নাসিম, এসএম আসাদুজ্জামান রাসেল ও ছাত্রনেতা রাহুল শাহরিয়ার। এসময়ে অন্যানের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা এ্যাড. আইয়ুব আলী শেখ, বীর মুক্তিযোদ্ধা নুর ইসলাম বন্দ, বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যা. আলমগীর কবির, এ্যাড. খন্দকার মজিবর রহমান, প্যানেল মেয়র আলী আকবর টিপু, কাউন্সিলর জেড এ মাহমুদ ডন, কাউন্সিলর শামছ্জ্জুামান মিয়া স্বপন, এ্যাড. অলোকা নন্দা দাস, কামরুল ইসলাম বাবলু, অধ্যা. রুনু ইকবাল, মাহবুবুল আলম বাবলু মোল্লা, কাউন্সিলর শেখ হাফিজুর রহমান, কাউন্সিলর আনিছুর রহমান বিশ্বাস, বীর মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলর মুন্সি আব্দুল ওয়াদুদ, এ্যাড. এ কে এম শাহজাহান কচি, এ্যাড. শামীম আহমেদ পলাশ, শেখ নজিবুল ইসলাম নজীব, কাউন্সিলর মোজাফফর রশিদী রেজা, কাউন্সিলর আবুল কালাম আজাদ বিকু, কাউন্সিলর আমেনা হালিম বেবী, কাউন্সিলর কনিকা সাহা, মো. আমির হোসেন, শবনম সাবা, নূরিনা রহমান বিউটি, নুর জাহান রুমি, মীর বরকত আলী, আইরিন চৌধুরী নীপা, মো. মোক্তার হোসেন, আলী আকবর মাতুব্বর, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতা শেখ আবিদ উল্লাহ, মো. নুর ইসলাম, শেখ জাহিদ হোসেন, শেখ জাহিদুল হক,  চ. ম. মজিবুর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা মুন্সি আইয়ুব আলী, শেখ আব্দুল আজিজ, জামিরুল হুদা জহর, চৌধুরী মিনহাজ উজ জামান সজল, মঈনুল ইসলাম নাসির, ফেরদৌস হোসেন লাবু, বাবুল সরদার বাদল, আব্দুল হাই পলাশ, এ্যাড. মো. ফারুক হোসেন, জিয়াউল ইসলাম মন্টু, শেখ হাসান ইফতেখার চালু, ইউসুফ আলী খান, মো. জাকির হোসেন, মো. মোতালেব মিয়া, মীর মো. লিটন, সরদার আব্দুল হালিম, মো. রুহুল আমিন, মুন্সি মো. সেলিম হোসেন, ওহিদুল ইসলাম পলাশ, মো. ফয়েজুল ইসলাম টিটো, আতাউর রহমান শিকদার রাজু, শেখ এশারুল হক, মো. আজম খান, এ্যাড. শামীম মোশাররফ, মো. শিহাব উদ্দিন, মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার, তোতা মিয়া ব্যাপারী, ছাত্রনেতা মাসুদ হাসান সোহান, জব্বার আলী হীরাসহ আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।##