০৪:৫২ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

‘বৃক্ষমানব’ আবারও হাসপাতালে

  • ঢাকা অফিস।।
  • প্রকাশিত সময় : ০৯:২৭:০১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২১ মে ২০২৩
  • ৩৩ পড়েছেন

###    বৃক্ষমানব হিসেবে পরিচিত পাইকগাছা উপজেলার আবুল বাজনদার আবারও হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। শনিবার দুপুরে তিনি রাজধানীর শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারী ইনস্টিটিউটে ভর্তি হন। ইনস্টিটিউটের সমন্বয়ক সামন্ত লাল সেন আবুলের ভর্তির বিষয়টি নিশ্চিত করে সাংবাদিকদের বলেন, আরও আগেই তাকে চিকিৎসা নিতে ঢাকায় আসার কথা বলা হয়েছিল। তবে তখন তিনি আসেননি। সর্বশেষ তাকে ভর্তি করা হয়েছে। শিগগিরই তার চিকিৎসায় মেডিকেল বোর্ড গঠন করে চিকিৎসা কার্যক্রম শুরু করা হবে। চিকিৎসকদের ধারণা, আবুল বাজনদার ‘এপিডার্মোডিসপ্লাসিয়া ভেরাসিফরমিস’ রোগে আক্রান্ত। রোগটি ‘ট্রি-ম্যান’(বৃক্ষ মানব) নামে পরিচিত। হিউম্যান প্যাপিলোমা ভাইরাসের সংক্রমণের কারণে এ রোগ হয়। ২০১৬ সালে এই রোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন আবুল বাজনদার। তখন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগের চিকিৎসকেরা তাঁর দুই হাতে অস্ত্রোপচার করেন। এরপর তিনি
সেরে উঠবেন বলে আশাও করেছিলেন তারা। সেবার চিকিৎসকরা ধারাবাহিকভাবে তার শরীরে অন্তত ২৫ বার অস্ত্রোপচার করেছিলেন। চিকিৎসকদের শক্তিশালী টিম একে একে তার শরীরের হাত-পায়ের গঁজানো শিঁকড়গুলো অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে কেটে ফেলেছিলেন।তবে আবুলের শরীরে ফের বাসা বেঁধেছে রোগটি। আবারও তার দুই হাতের কব্জি থেকে আঙুলের উপর পর্যন্ত শিঁকড় গজিয়েছে। পাশাপাশি তার দু’ পায়েরও অবস্থা একই। সর্বশেষ গত শনিবার তাকে রাজধানীর শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারী ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়েছে। বর্তমানে তিনি ভর্তি রয়েছেন, ৭০১ নং ওয়ার্ডে। আবুল বাজনদারের বাড়ি খুলনার পাইকগাছায়। তিনি দুই মেয়ের বাবা। আবুল বাজনদার সাংবাদিকদের বলেন, তার শরীর ক্রমান্বয়ে পূর্বের অবস্থায় ফিরে যাওয়ায় চিকিৎসকদের পরামর্শে তিনি ফের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি হয়েছেন। ##

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

Dainik adhumati

জনপ্রিয়

গলাচিপায় অবৈধ দোকান উচ্ছেদের মাধ্যমে রাস্তা উন্মুক্ত করায় প্রসংশিত মেয়র

‘বৃক্ষমানব’ আবারও হাসপাতালে

প্রকাশিত সময় : ০৯:২৭:০১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২১ মে ২০২৩

###    বৃক্ষমানব হিসেবে পরিচিত পাইকগাছা উপজেলার আবুল বাজনদার আবারও হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। শনিবার দুপুরে তিনি রাজধানীর শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারী ইনস্টিটিউটে ভর্তি হন। ইনস্টিটিউটের সমন্বয়ক সামন্ত লাল সেন আবুলের ভর্তির বিষয়টি নিশ্চিত করে সাংবাদিকদের বলেন, আরও আগেই তাকে চিকিৎসা নিতে ঢাকায় আসার কথা বলা হয়েছিল। তবে তখন তিনি আসেননি। সর্বশেষ তাকে ভর্তি করা হয়েছে। শিগগিরই তার চিকিৎসায় মেডিকেল বোর্ড গঠন করে চিকিৎসা কার্যক্রম শুরু করা হবে। চিকিৎসকদের ধারণা, আবুল বাজনদার ‘এপিডার্মোডিসপ্লাসিয়া ভেরাসিফরমিস’ রোগে আক্রান্ত। রোগটি ‘ট্রি-ম্যান’(বৃক্ষ মানব) নামে পরিচিত। হিউম্যান প্যাপিলোমা ভাইরাসের সংক্রমণের কারণে এ রোগ হয়। ২০১৬ সালে এই রোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন আবুল বাজনদার। তখন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগের চিকিৎসকেরা তাঁর দুই হাতে অস্ত্রোপচার করেন। এরপর তিনি
সেরে উঠবেন বলে আশাও করেছিলেন তারা। সেবার চিকিৎসকরা ধারাবাহিকভাবে তার শরীরে অন্তত ২৫ বার অস্ত্রোপচার করেছিলেন। চিকিৎসকদের শক্তিশালী টিম একে একে তার শরীরের হাত-পায়ের গঁজানো শিঁকড়গুলো অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে কেটে ফেলেছিলেন।তবে আবুলের শরীরে ফের বাসা বেঁধেছে রোগটি। আবারও তার দুই হাতের কব্জি থেকে আঙুলের উপর পর্যন্ত শিঁকড় গজিয়েছে। পাশাপাশি তার দু’ পায়েরও অবস্থা একই। সর্বশেষ গত শনিবার তাকে রাজধানীর শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারী ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়েছে। বর্তমানে তিনি ভর্তি রয়েছেন, ৭০১ নং ওয়ার্ডে। আবুল বাজনদারের বাড়ি খুলনার পাইকগাছায়। তিনি দুই মেয়ের বাবা। আবুল বাজনদার সাংবাদিকদের বলেন, তার শরীর ক্রমান্বয়ে পূর্বের অবস্থায় ফিরে যাওয়ায় চিকিৎসকদের পরামর্শে তিনি ফের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি হয়েছেন। ##