০৭:১৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মাদক মামলায় মডেল পিয়াসার বিচার শুরু

  • সংবাদদাতা
  • প্রকাশিত সময় : ০৮:৫৪:৪৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ১১ জানুয়ারী ২০২৩
  • ৪৮ পড়েছেন

গুলশান থানায় মাদক মামলায় মডেল ফারিয়া মাহবুব পিয়াসার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছেন আদালত। এর মধ্য দিয়ে তার বিচার শুরু হলো বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।

বুধবার (১১ জানুয়ারি) ঢাকার অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ আদালত-৪ এর বিচারক মোহাম্মদ মোরশেদ আলম এই অভিযোগ গঠন করেন।

এদিন আদালতে হাজির হয়ে নিজেকে নির্দোষ দাবি করে মামলা থেকে অব্যাহতি চেয়ে আবেদন করেন পিয়াসা। পরে আবেদনের ওপর শুনানি শেষে তা খারিজ করে অভিযোগ গঠন করেন আদালত। একই সঙ্গে এ মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য আগামী ১৭ এপ্রিল ধার্য করা হয়।

প্রসঙ্গত, ২০২১ সালের ১ আগস্ট রাত ১০টার দিকে রাজধানীর বারিধারায় মডেল পিয়াসার বাসায় অভিযান চালিয়ে রাত পৌনে ১২টার দিকে তাকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডিবি কার্যালয়ে নেওয়া হয়। এরপর তার বিরুদ্ধে গুলশান, ভাটারা ও খিলক্ষেত থানায় মাদক নিয়ন্ত্রণ আইনে পৃথক তিন মামলা করে পুলিশ। এ মামলাগুলোতে তাকে রিমান্ডে নেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা।

ওই বছরের ২৭ সেপ্টেম্বর ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে তার বিরুদ্ধে ওই তিন মামলায় চার্জশিট দাখিল করে মামলার তদন্ত সংস্থা সিআইডি। বর্তমানে তিনি সব মামলায় জামিনে রয়েছেন।

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

dainik madhumati

জনপ্রিয়

দেবহাটায় জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন এ্যাডভোকেসি সভা অনুষ্ঠিত 

মাদক মামলায় মডেল পিয়াসার বিচার শুরু

প্রকাশিত সময় : ০৮:৫৪:৪৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ১১ জানুয়ারী ২০২৩

গুলশান থানায় মাদক মামলায় মডেল ফারিয়া মাহবুব পিয়াসার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছেন আদালত। এর মধ্য দিয়ে তার বিচার শুরু হলো বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।

বুধবার (১১ জানুয়ারি) ঢাকার অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ আদালত-৪ এর বিচারক মোহাম্মদ মোরশেদ আলম এই অভিযোগ গঠন করেন।

এদিন আদালতে হাজির হয়ে নিজেকে নির্দোষ দাবি করে মামলা থেকে অব্যাহতি চেয়ে আবেদন করেন পিয়াসা। পরে আবেদনের ওপর শুনানি শেষে তা খারিজ করে অভিযোগ গঠন করেন আদালত। একই সঙ্গে এ মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য আগামী ১৭ এপ্রিল ধার্য করা হয়।

প্রসঙ্গত, ২০২১ সালের ১ আগস্ট রাত ১০টার দিকে রাজধানীর বারিধারায় মডেল পিয়াসার বাসায় অভিযান চালিয়ে রাত পৌনে ১২টার দিকে তাকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডিবি কার্যালয়ে নেওয়া হয়। এরপর তার বিরুদ্ধে গুলশান, ভাটারা ও খিলক্ষেত থানায় মাদক নিয়ন্ত্রণ আইনে পৃথক তিন মামলা করে পুলিশ। এ মামলাগুলোতে তাকে রিমান্ডে নেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা।

ওই বছরের ২৭ সেপ্টেম্বর ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে তার বিরুদ্ধে ওই তিন মামলায় চার্জশিট দাখিল করে মামলার তদন্ত সংস্থা সিআইডি। বর্তমানে তিনি সব মামলায় জামিনে রয়েছেন।