০৯:৫৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মোল্লাহা‌টে মোহাম্মাদপুর কবরস্থান রাস্তা‌র সংস্করণের দাবি : এলাকাবাসির

মোল্লাহাট উপজেলা কোদালিয়া ইউনিয়নের কচুড়িয়া , নালুয়া , আড়ুয়াডিহিসহ কয়েকটি গ্রামের একটি  মাত্র কবরস্থান। কবরস্থান যাওয়ার রাস্তাটি সামান্য বৃষ্টি হলে চলাচলের অনুপোযোগী হয়ে পড়ে। মোল্লাহাট চিতলমারী মেইন সড়ক তে কবরস্থানের দুরত্ব প্রায় ২০০ মিটার  নালুয়া , গোড়াখাল , পেন্তিমারীর লোকজন মূর্দা বা লাশ নিয়ে আড়ুয়াডিহি বড় মাদ্রাসা য়ে গোরস্থানে যাওয়া যায় বে গোরস্থানে প্রবেশের টের লিংয়ের রাস্তাটি সরু বা খুবই চিপা হওয়াতে চারজন মিলে মুর্দাখাট নিয়ে হাটতে খুবই সমস্যায় পরতে হয়। অন্যদিকে কচুড়িা , লক্ষীপুর , রাঙ্গামাটিয়া অত্রএলাকার লোকেরা মেইন সড়ক ( বিন মাহাজন এর ব্রীজ ) থেকে গোড়স্থান পর্যন্ত প্রায় ৪০০ মিটার রাস্তাটি সৃষ্টি লগ্নথেকেই সরু কাঁচা তো দুতিন বছর লো পাশের খাল খননের দরুন রাস্তাটি একটু প্রসর উচু য়েছে যার জন্য রাস্তাটি সামান্য বৃষ্টির ছোঁয়া পেলেই আল্হ্রাদে লে যায় সামান্য পা পিছলে গেলে সোজা ২০/৩০ ফিট নিচে খালে গিয়ে পরার ভয় থাকে বর্তমানে, বৃষ্টির মৌসুমে কেউ মারা গেলে লাশ নিয়ে কবরস্থানে যেতে খুবই রিস্কের ধ্যে দিয়ে কাদাঁমাটি ঝাপিয়ে যেতে হয়। বর্ষা মৌসুমে সামান্য বৃষ্টিতেই রাস্তা চলাচলের অনুপোযোগী হয়ে পড়ে। সময় রাস্তা যেন এক মরণ ফাঁদে পরিণত হয়। রাস্তা দুপাশে রয়েছে অনেক বসত বাড়ি। এসকল বসতির ছেলে মেয়েদের স্কুল,লেজ ,মাদ্রাসা যেতে হয় এই রাস্তা দিয়ে। বৃষ্টির মৌসুমে সামান্য বৃষ্টি হলে এসকল ছাত্রছাত্রী কাঁদামাটি ঝাপিয়ে  যেতে হয় স্কুল,লেজ  মাদ্রাসা।

উল্লেখ্য : স্থাপিত ১৯৭৮ খ্রিঃ কে, এন আড়ুয়াডিহি মোহাম্মাদপুর কবরস্থান। প্রাথমদিক থেকে কবরস্থানের নামে কম জায়গা থাকলেও বর্তমানে প্রায় এক একর চুয়াত্তুর শতক জায়গা নিয়ে নিয়েকবরস্থানটি । কবরস্থানটির সামনে বা পশ্চিমে প্রায়চারফুট উচু পাচলি এবং মেইন প্রবেশ গেইট একটি পাশ ঘেসে কাঁচা রাস্তা লে গেছে নতুন বাজার

এই রাস্তাটি সংস্করণের দাবি জানিয়ে এলাকাবাসি।

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

dainik madhumati

জনপ্রিয়

ঘূর্ণিঝড় রেমালের প্রভাবে গলাচিপায় বেড়েছে বাতাস ও নদীর পানি

মোল্লাহা‌টে মোহাম্মাদপুর কবরস্থান রাস্তা‌র সংস্করণের দাবি : এলাকাবাসির

প্রকাশিত সময় : ০৩:১৩:৪৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২২

মোল্লাহাট উপজেলা কোদালিয়া ইউনিয়নের কচুড়িয়া , নালুয়া , আড়ুয়াডিহিসহ কয়েকটি গ্রামের একটি  মাত্র কবরস্থান। কবরস্থান যাওয়ার রাস্তাটি সামান্য বৃষ্টি হলে চলাচলের অনুপোযোগী হয়ে পড়ে। মোল্লাহাট চিতলমারী মেইন সড়ক তে কবরস্থানের দুরত্ব প্রায় ২০০ মিটার  নালুয়া , গোড়াখাল , পেন্তিমারীর লোকজন মূর্দা বা লাশ নিয়ে আড়ুয়াডিহি বড় মাদ্রাসা য়ে গোরস্থানে যাওয়া যায় বে গোরস্থানে প্রবেশের টের লিংয়ের রাস্তাটি সরু বা খুবই চিপা হওয়াতে চারজন মিলে মুর্দাখাট নিয়ে হাটতে খুবই সমস্যায় পরতে হয়। অন্যদিকে কচুড়িা , লক্ষীপুর , রাঙ্গামাটিয়া অত্রএলাকার লোকেরা মেইন সড়ক ( বিন মাহাজন এর ব্রীজ ) থেকে গোড়স্থান পর্যন্ত প্রায় ৪০০ মিটার রাস্তাটি সৃষ্টি লগ্নথেকেই সরু কাঁচা তো দুতিন বছর লো পাশের খাল খননের দরুন রাস্তাটি একটু প্রসর উচু য়েছে যার জন্য রাস্তাটি সামান্য বৃষ্টির ছোঁয়া পেলেই আল্হ্রাদে লে যায় সামান্য পা পিছলে গেলে সোজা ২০/৩০ ফিট নিচে খালে গিয়ে পরার ভয় থাকে বর্তমানে, বৃষ্টির মৌসুমে কেউ মারা গেলে লাশ নিয়ে কবরস্থানে যেতে খুবই রিস্কের ধ্যে দিয়ে কাদাঁমাটি ঝাপিয়ে যেতে হয়। বর্ষা মৌসুমে সামান্য বৃষ্টিতেই রাস্তা চলাচলের অনুপোযোগী হয়ে পড়ে। সময় রাস্তা যেন এক মরণ ফাঁদে পরিণত হয়। রাস্তা দুপাশে রয়েছে অনেক বসত বাড়ি। এসকল বসতির ছেলে মেয়েদের স্কুল,লেজ ,মাদ্রাসা যেতে হয় এই রাস্তা দিয়ে। বৃষ্টির মৌসুমে সামান্য বৃষ্টি হলে এসকল ছাত্রছাত্রী কাঁদামাটি ঝাপিয়ে  যেতে হয় স্কুল,লেজ  মাদ্রাসা।

উল্লেখ্য : স্থাপিত ১৯৭৮ খ্রিঃ কে, এন আড়ুয়াডিহি মোহাম্মাদপুর কবরস্থান। প্রাথমদিক থেকে কবরস্থানের নামে কম জায়গা থাকলেও বর্তমানে প্রায় এক একর চুয়াত্তুর শতক জায়গা নিয়ে নিয়েকবরস্থানটি । কবরস্থানটির সামনে বা পশ্চিমে প্রায়চারফুট উচু পাচলি এবং মেইন প্রবেশ গেইট একটি পাশ ঘেসে কাঁচা রাস্তা লে গেছে নতুন বাজার

এই রাস্তাটি সংস্করণের দাবি জানিয়ে এলাকাবাসি।