১০:৩৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শরনখোলায় নির্বাচনে পরাজয়ের জের ধরে হত্যার চেষ্টায় হামলা, মুর্মূষু অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি

###    বাগেরহাট শরনখোলায় ইউপি নির্বাচনে মেম্বর পদে পরাজয়ের জের ধরে মোস্তফা গাজীর (৪৫) উপর হামলা করে হত্যার চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার রাতে উপজেলার উত্তর রাজাপুর গ্রামে গত ইউপি নির্বাচনে মেম্বর পদে জাকির খানের পক্ষালম্বন না করায় তার ভাই সন্ত্রাসী হাসিবসহ ৭/৮জন হাতুরি, রড দিয়ে অর্তকিত এ হামলা চালায়। স্থানীয়রা মারাত্নক আহত অবস্থায় মোস্তফা গাজীকে উদ্ধার করে প্রথমে শরনখোলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং পরে সেখানে অবস্থার অবনতি হলে তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এনে ভর্তি করা হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহত মোস্তফা গাজীর মেয়ে ইসরাত জাহান জানান, মোস্তফা গাজী রাজাপুর বাজার থেকে সোমবার (০২জানুয়ারী) রাত ৮টার সময়ে মোটরসাইকেলে নিজ বাড়িতে যাওয়ার সময় রাস্তার পাশে অন্য একটি মোটরসাইকেলে তিনজন ব্যক্তি পাশ থেকে এসে লাঠি দিয়ে আঘাত করে চলন্ত অবস্থায় মোটর সাইকেল থেকে ফেলে দেয়। পরে তাকে টেনে নিয়ে মৃত মালেক হাওলাদারের জমিতে নিয়ে ৭—৮জন মিলে হাতুরি দিয়ে মাথায় আঘাত করে এবং ডান হাত ও ডান পা পিটিয়ে  থেতলে দেয়। ঘটনার সময়ে ধান ক্ষেতে থাকা ধান ব্যবসায়ী সানোয়ার ও মিজান এ অবস্থা দেখে চিৎকার করলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। ইসরাত জাহান আরো জানান, তার পিতা মোস্তফা গাজী তিনজনকে সনাক্ত করতে পেরেছে। হামলাকারীদের  মধ্যে উত্তর রাজাপুর এলাকার আবুল খানের ছেলে হাসিব খান(২৭), আব্দুর রহমান হাওলাদারের ছেলে রহিম হাওলাদার(৩৫) এবং আনোয়ার হাওলাদারের ছেলে রতন হাওলাদার(৪৫)। আহতের ভাতিজা শাজাহান গাজী জানান, হাসিবের (২৭) ভাই জাকির খান মেম্বার ইলেকশান করতে চেয়েছিল। তখন তার চাচা মোস্তফা গাজীকে নির্বাচনে তার পক্ষে কাজ করার জন্য বলেন। কিন্তু মোস্তফা গাজী জাকির খানকে বলেন,তিনি কারো পক্ষে কাজ করবেন না। জাকির খান নির্বাচনে হারার কারনে মোস্তফা গাজীকে দোষারোপ করেন এবং দেখে নেওয়ার হুমকি দেন। তিনি আরো জানান,  দীর্ঘ দিন যাবৎ এই শত্রুতার জেরে তারা আমাদের সামাজিকভাবে হেয় করে আসছিল। তার চাচাতো ভাইকেও মাথায় আঘাত করে আহত করেছিল। পরবর্তীতে থানায় অভিযোগ করলে থানায় শালিশী করে মিমাংসা করা হয়। তিনি বলেন, তার চাচাকে  হত্যা করার উদ্দেশ্যে রাতে বাড়ি যাবার পথে ৪রাস্তার মোড় সংলগ্ন স্থানে ওতপেতে থেকে হাতুরি, রড দিয়ে অর্তকিত মাথায় হামলা করে।

রায়েন্দা সদর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোঃ আজমল হোসেন মুক্তা জানান, হামলার ঘটনা শুনে তিনি হাসপাতালে যান  এবং নিজে সাথে থেকে মোস্তফা গাজীকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছেন। তবে অভিযুক্ত জাকির খানের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তার মোবাইল নাম্বারটি বন্ধ পাওয়া যায়।

শরনখোলা থানার তদন্ত অফিসার সুব্রত কুমার সরদার বলেন, চেয়ারম্যান হামলার বিষয়টি জানালে হাসপাতালে যেয়ে দেখে এসেছি। ভুক্তভোগীদের কাছে থেকে এখন পর্যন্ত লিখিত কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেলেিআইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও তিনি জানান। ##

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

Dainik Madhumati

জনপ্রিয়

ঘূর্ণিঝড় রেমালের প্রভাবে গলাচিপায় বেড়েছে বাতাস ও নদীর পানি

শরনখোলায় নির্বাচনে পরাজয়ের জের ধরে হত্যার চেষ্টায় হামলা, মুর্মূষু অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি

প্রকাশিত সময় : ০১:১২:০৫ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৪ জানুয়ারী ২০২৩

###    বাগেরহাট শরনখোলায় ইউপি নির্বাচনে মেম্বর পদে পরাজয়ের জের ধরে মোস্তফা গাজীর (৪৫) উপর হামলা করে হত্যার চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার রাতে উপজেলার উত্তর রাজাপুর গ্রামে গত ইউপি নির্বাচনে মেম্বর পদে জাকির খানের পক্ষালম্বন না করায় তার ভাই সন্ত্রাসী হাসিবসহ ৭/৮জন হাতুরি, রড দিয়ে অর্তকিত এ হামলা চালায়। স্থানীয়রা মারাত্নক আহত অবস্থায় মোস্তফা গাজীকে উদ্ধার করে প্রথমে শরনখোলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং পরে সেখানে অবস্থার অবনতি হলে তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এনে ভর্তি করা হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহত মোস্তফা গাজীর মেয়ে ইসরাত জাহান জানান, মোস্তফা গাজী রাজাপুর বাজার থেকে সোমবার (০২জানুয়ারী) রাত ৮টার সময়ে মোটরসাইকেলে নিজ বাড়িতে যাওয়ার সময় রাস্তার পাশে অন্য একটি মোটরসাইকেলে তিনজন ব্যক্তি পাশ থেকে এসে লাঠি দিয়ে আঘাত করে চলন্ত অবস্থায় মোটর সাইকেল থেকে ফেলে দেয়। পরে তাকে টেনে নিয়ে মৃত মালেক হাওলাদারের জমিতে নিয়ে ৭—৮জন মিলে হাতুরি দিয়ে মাথায় আঘাত করে এবং ডান হাত ও ডান পা পিটিয়ে  থেতলে দেয়। ঘটনার সময়ে ধান ক্ষেতে থাকা ধান ব্যবসায়ী সানোয়ার ও মিজান এ অবস্থা দেখে চিৎকার করলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। ইসরাত জাহান আরো জানান, তার পিতা মোস্তফা গাজী তিনজনকে সনাক্ত করতে পেরেছে। হামলাকারীদের  মধ্যে উত্তর রাজাপুর এলাকার আবুল খানের ছেলে হাসিব খান(২৭), আব্দুর রহমান হাওলাদারের ছেলে রহিম হাওলাদার(৩৫) এবং আনোয়ার হাওলাদারের ছেলে রতন হাওলাদার(৪৫)। আহতের ভাতিজা শাজাহান গাজী জানান, হাসিবের (২৭) ভাই জাকির খান মেম্বার ইলেকশান করতে চেয়েছিল। তখন তার চাচা মোস্তফা গাজীকে নির্বাচনে তার পক্ষে কাজ করার জন্য বলেন। কিন্তু মোস্তফা গাজী জাকির খানকে বলেন,তিনি কারো পক্ষে কাজ করবেন না। জাকির খান নির্বাচনে হারার কারনে মোস্তফা গাজীকে দোষারোপ করেন এবং দেখে নেওয়ার হুমকি দেন। তিনি আরো জানান,  দীর্ঘ দিন যাবৎ এই শত্রুতার জেরে তারা আমাদের সামাজিকভাবে হেয় করে আসছিল। তার চাচাতো ভাইকেও মাথায় আঘাত করে আহত করেছিল। পরবর্তীতে থানায় অভিযোগ করলে থানায় শালিশী করে মিমাংসা করা হয়। তিনি বলেন, তার চাচাকে  হত্যা করার উদ্দেশ্যে রাতে বাড়ি যাবার পথে ৪রাস্তার মোড় সংলগ্ন স্থানে ওতপেতে থেকে হাতুরি, রড দিয়ে অর্তকিত মাথায় হামলা করে।

রায়েন্দা সদর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোঃ আজমল হোসেন মুক্তা জানান, হামলার ঘটনা শুনে তিনি হাসপাতালে যান  এবং নিজে সাথে থেকে মোস্তফা গাজীকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছেন। তবে অভিযুক্ত জাকির খানের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তার মোবাইল নাম্বারটি বন্ধ পাওয়া যায়।

শরনখোলা থানার তদন্ত অফিসার সুব্রত কুমার সরদার বলেন, চেয়ারম্যান হামলার বিষয়টি জানালে হাসপাতালে যেয়ে দেখে এসেছি। ভুক্তভোগীদের কাছে থেকে এখন পর্যন্ত লিখিত কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেলেিআইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও তিনি জানান। ##