০২:৩৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

সরদার হারুনার রশীদ গণতন্ত্র ও মুজিব আদর্শের বিষয়ে কখনই আপোষ করেনি

  • অফিস ডেক্স।।
  • প্রকাশিত সময় : ০৬:৫২:১৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩
  • ৩৬ পড়েছেন

###    খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক বলেছেন, সরদার হারুনার রশীদের অপ্রতিরোধ্য রাজনীতির কারণে ঈর্ষান্বিত হয়ে তাকে হত্যা করা হয়। হত্যাকারীরা সবাই বিএনপির সদস্য ছিল। হারুন স্বৈরাচার এরশাদ এবং খালেদা বিরোধী আন্দোলনে রূপসাকে অচল করে দিতো। তিনি আরো বলেন, হারুনার রশীদ গণতন্ত্র, দেশাত্ববোধ এবং মুজিব আদর্শের বিষয়ে কখনই আপোষ করেননি। তার মতো দেশপ্রেমিক আদর্শবান রাজনৈতিক নেতার কারণেই আওয়ামী লীগ দীর্ঘস্থায়ী। সে জন্যেই স্বাধীনতা বিরোধীরা বারবার আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের হত্যা করে দেশকে পাকিস্তানী রাষ্ট্রে পরিণত করার অপচেষ্টা করেছিলো। সরদার হারুনার রশীদের মতো সবাইকে ত্যাগী আদর্শবান হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।বৃহস্পতিবার বাদ মাগরিব দলীয় কার্যালয়ে রূপসা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শহীদ সরদার হারুনার রশীদের ২২তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে মহানগর আওয়ামী লীগ আয়োজিত স্মরণ সভায় সভাপতির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। এসময়ে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম ডি এ বাবুল রানা, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. মিজানুর রহমান মিজান ও শহীদ সরদার হারুনার রশীদের ভাই সরদার ফেরদৌষ আহম্মেদ। মহানগর আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মো. মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগের পরিচালনায় এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা কাজী এনায়েত হোসেন, বেগ লিয়াকত আলী, মল্লিক আবিদ হোসেন কবীর, বীর মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন মিন্টু, বীর মুক্তিযোদ্ধা শ্যামল সিংহ রায়, বীর মুক্তিযোদ্ধা নুর ইসলাম বন্দ, অধ্যক্ষ শহিদুল হক মিন্টু, জামাল উদ্দিন বাচ্চু, মো. আশরাফুল ইসলাম, শেখ মো. ফারুক আহমেদ, আবুল কালাম আজাদ কামাল, বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যা. আলমগীর কবির, এ্যাড. খন্দকার মজিবুর রহমান, শেখ মো. আনোয়ার হোসেন, মো. শাহজাদা, প্যানেল মেয়র আলী আকবর টিপু, এ্যাড. অলোকা নন্দা দাস, শেখ ফারুক হাসান হিটলু, শেখ মো. জাহাঙ্গীর আলম, শেখ ইউনুছ আলী, বীরেন্দ্র নাথ ঘোষ, হাফেজ মো. শামীম, মো. মফিদুল ইসলাম টুটুল, মোজাম্মেল হক হাওলাদার, বীর মুক্তিযোদ্ধা স. ম. রেজওয়ান, অধ্যা. রুনু ইকবাল, এ্যাড. মো. সাইফুল ইসলাম, সিদ্দিকুর রহমান বুলু বিশ্বাস, শেখ আবিদ হোসেন, কাউন্সিলর ফকির মো. সাইফুল ইসলাম, মনিরুল ইসলাম বাশার, তসলিম আহমেদ আশা, শহিদুল ইসলাম বন্দ, এস এম আনিছুর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোশাররফ হোসেন, মনিরুজ্জামান খান খোকন, এস এম আকিল উদ্দিন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মোতালেব মিয়া, মো. সফিকুর রহমান পলাশ, শেখ নজিবুল ইসলাম নজীব, জাহিদুল হক, জাকারিয়া রিপন, মল্লিক নওশের আলী, জেসমিন সুলতানা শম্পা, নাছরিন আক্তার, মেহজাবীন খান, আফরোজা জেসমিন বিথী, মো. শহীদুল হাসান, আবুল কালাম আজাদ, জব্বার আলী হীরা, ইয়াসির আরাফাত, রাহুল শাহরিয়ারসহ আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ। স্মরণ সভা শেষে সরদার হারুনার রশীদের রুহের মাগফেরাত কামনায় দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া পরিচালনা করেন মহানগর শ্রমিক লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাফেজ আব্দুর রহিম। ##

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

Dainik adhumati

জনপ্রিয়

সরদার হারুনার রশীদ গণতন্ত্র ও মুজিব আদর্শের বিষয়ে কখনই আপোষ করেনি

প্রকাশিত সময় : ০৬:৫২:১৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

###    খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক বলেছেন, সরদার হারুনার রশীদের অপ্রতিরোধ্য রাজনীতির কারণে ঈর্ষান্বিত হয়ে তাকে হত্যা করা হয়। হত্যাকারীরা সবাই বিএনপির সদস্য ছিল। হারুন স্বৈরাচার এরশাদ এবং খালেদা বিরোধী আন্দোলনে রূপসাকে অচল করে দিতো। তিনি আরো বলেন, হারুনার রশীদ গণতন্ত্র, দেশাত্ববোধ এবং মুজিব আদর্শের বিষয়ে কখনই আপোষ করেননি। তার মতো দেশপ্রেমিক আদর্শবান রাজনৈতিক নেতার কারণেই আওয়ামী লীগ দীর্ঘস্থায়ী। সে জন্যেই স্বাধীনতা বিরোধীরা বারবার আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের হত্যা করে দেশকে পাকিস্তানী রাষ্ট্রে পরিণত করার অপচেষ্টা করেছিলো। সরদার হারুনার রশীদের মতো সবাইকে ত্যাগী আদর্শবান হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।বৃহস্পতিবার বাদ মাগরিব দলীয় কার্যালয়ে রূপসা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শহীদ সরদার হারুনার রশীদের ২২তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে মহানগর আওয়ামী লীগ আয়োজিত স্মরণ সভায় সভাপতির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। এসময়ে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম ডি এ বাবুল রানা, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. মিজানুর রহমান মিজান ও শহীদ সরদার হারুনার রশীদের ভাই সরদার ফেরদৌষ আহম্মেদ। মহানগর আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মো. মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগের পরিচালনায় এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা কাজী এনায়েত হোসেন, বেগ লিয়াকত আলী, মল্লিক আবিদ হোসেন কবীর, বীর মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন মিন্টু, বীর মুক্তিযোদ্ধা শ্যামল সিংহ রায়, বীর মুক্তিযোদ্ধা নুর ইসলাম বন্দ, অধ্যক্ষ শহিদুল হক মিন্টু, জামাল উদ্দিন বাচ্চু, মো. আশরাফুল ইসলাম, শেখ মো. ফারুক আহমেদ, আবুল কালাম আজাদ কামাল, বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যা. আলমগীর কবির, এ্যাড. খন্দকার মজিবুর রহমান, শেখ মো. আনোয়ার হোসেন, মো. শাহজাদা, প্যানেল মেয়র আলী আকবর টিপু, এ্যাড. অলোকা নন্দা দাস, শেখ ফারুক হাসান হিটলু, শেখ মো. জাহাঙ্গীর আলম, শেখ ইউনুছ আলী, বীরেন্দ্র নাথ ঘোষ, হাফেজ মো. শামীম, মো. মফিদুল ইসলাম টুটুল, মোজাম্মেল হক হাওলাদার, বীর মুক্তিযোদ্ধা স. ম. রেজওয়ান, অধ্যা. রুনু ইকবাল, এ্যাড. মো. সাইফুল ইসলাম, সিদ্দিকুর রহমান বুলু বিশ্বাস, শেখ আবিদ হোসেন, কাউন্সিলর ফকির মো. সাইফুল ইসলাম, মনিরুল ইসলাম বাশার, তসলিম আহমেদ আশা, শহিদুল ইসলাম বন্দ, এস এম আনিছুর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোশাররফ হোসেন, মনিরুজ্জামান খান খোকন, এস এম আকিল উদ্দিন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মোতালেব মিয়া, মো. সফিকুর রহমান পলাশ, শেখ নজিবুল ইসলাম নজীব, জাহিদুল হক, জাকারিয়া রিপন, মল্লিক নওশের আলী, জেসমিন সুলতানা শম্পা, নাছরিন আক্তার, মেহজাবীন খান, আফরোজা জেসমিন বিথী, মো. শহীদুল হাসান, আবুল কালাম আজাদ, জব্বার আলী হীরা, ইয়াসির আরাফাত, রাহুল শাহরিয়ারসহ আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ। স্মরণ সভা শেষে সরদার হারুনার রশীদের রুহের মাগফেরাত কামনায় দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া পরিচালনা করেন মহানগর শ্রমিক লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাফেজ আব্দুর রহিম। ##