০৬:৫৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
কম জনবল, দায়িক্তহীনতা ও কারিগরি অদক্ষতা এর কারণ

সুন্দরবনে (সাতক্ষীরা রেঞ্জে) বাঘ গণনার জন্য স্থাপিত ৮টি ক্যামেরা চুরি

###    পশ্চিমবন বিভাগের সাতক্ষীরা রেঞ্জের আওতাধীন সুন্দরবনে বাঘ গণনার জন্য স্থাপিত ৮টি ক্যামেরা চুরি হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ক্যামরা চুরির ঘটনার পর সুন্দরবন সাতক্ষীরা রেঞ্জে জেলেদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। বন বিভাগ সূত্রে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে।

বনবিভাগ সূত্র জানায়, সুন্দরবনে বাঘ শুমারী (গণনা)জানুয়ারি’২৩ এ শুরু হয় । গণনা কার্যক্রম চলমান আছে। বাঘ গণনার জন্য সুন্দরবনে ক্যামেরা ট্রাপিং গ্রুপ কর্তৃক সুন্দরবনের বিভিন্ন অঞ্চলে গাছে গাছে ক্যামেরা স্থাপনের কাজ চলমান রয়েছে। বনবিভাগ পশ্চিম সুন্দরবন সাতক্ষীরা রেঞ্জের বুড়িগোয়ালিনী ষ্টেশন অফিসার (এসও) নূর আলম জানান, সাতক্ষীরা রেঞ্জে ইতিমধ্যে ৩৭৬টি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে। ইতিমধ্যে সুন্দরবনে নোটাবেঁকী অভায়ারন্য অঞ্চলে স্থাপিত ৮টি ক্যামেরা চুরি হয়ে গেছে। তবে কবে চুরি হয়েছে তা তিনি জানাতে পারেননি। এদিকে সুন্দরবনে বাঘ গণনার জন্য স্থাপিত ক্যামেরা চুরির ঘটনায় অনির্দিষ্ট সময়ের জন্য পশ্চিম সুন্দরবনের সাতক্ষীরা রেঞ্জের দুটি স্টেশন হতে জেলেদের সুন্দরবনে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে। ফেব্রুয়ারীর দ্বিতীয় দিন হতে কৈখালী ও কদমতলা স্টেশন হতে জেলেদের অনুকুলে পাশ (অনুমতিপত্র) প্রদান স্থগিত করা হয়।বনবিভাগ সূত্রের দাবি বাঘ গণনার জন্য ক্যামেরা ট্রাকিং পদ্ধতি স্থাপনের স্বার্থে জেলেদের বনে প্রবেশে এ নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। স্থানীয় ও বনবিভাগের সাথে সংশ্লিষ্টদের সাথে আলাপচারীতায় জানা যায়, বাঘ গণনার জন্য স্থাপিত ৮টি ক্যামেরা চুরি হওয়ার ব্যাপারটি অবাক করার বিষয়। এটি মেনে নেয়া যায় না। বনবিভাগের কম জনবল, দায়িক্তহীনতা ও কারিগরি অদক্ষতার কারণেই এ ঘটনা ঘটেছে। সাতক্ষীরা রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক ইকবাল হোসাইন চৌধুরী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, সুন্দরবনে বাঘ গণনার জন্য স্থাপিত কয়েকটি ক্যামেরা সম্প্রতি চুরির ঘটনা চিন্তার বিষয়। কারা এই ক্যামেরা চুরি করেছে তা এখনো যানা যায়নি। তবে ঘটনাটি উদঘাটনের চেষ্টা অব্যহত আছে। তিনি আরো জানান, সাতক্ষীরা রেঞ্জের চারটি স্টেশনের মধ্যে কোবাদক ও বুড়িগোয়ালীনি স্টেশন দিয়ে যথারীতি জেলেদের সুন্দরবনে যাওয়ার অনুমতি দেয়া হচ্ছে। ক্যামেরা স্থাপনের কাজ সম্পন্ন হতেই অপর দু’টি স্টেশন উন্মুক্ত করে দেয়া হবে বলে জানান বনবিভাগের এ কর্মকর্তা।##

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

Dainik adhumati

জনপ্রিয়

মোল্লাহাটে বিয়ের জন্য মেয়েকে পছন্দ না করায় ছেলের ভগ্নিপতিকে হত্যা, আহত ১০

কম জনবল, দায়িক্তহীনতা ও কারিগরি অদক্ষতা এর কারণ

সুন্দরবনে (সাতক্ষীরা রেঞ্জে) বাঘ গণনার জন্য স্থাপিত ৮টি ক্যামেরা চুরি

প্রকাশিত সময় : ০৪:৩৬:৫৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

###    পশ্চিমবন বিভাগের সাতক্ষীরা রেঞ্জের আওতাধীন সুন্দরবনে বাঘ গণনার জন্য স্থাপিত ৮টি ক্যামেরা চুরি হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ক্যামরা চুরির ঘটনার পর সুন্দরবন সাতক্ষীরা রেঞ্জে জেলেদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। বন বিভাগ সূত্রে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে।

বনবিভাগ সূত্র জানায়, সুন্দরবনে বাঘ শুমারী (গণনা)জানুয়ারি’২৩ এ শুরু হয় । গণনা কার্যক্রম চলমান আছে। বাঘ গণনার জন্য সুন্দরবনে ক্যামেরা ট্রাপিং গ্রুপ কর্তৃক সুন্দরবনের বিভিন্ন অঞ্চলে গাছে গাছে ক্যামেরা স্থাপনের কাজ চলমান রয়েছে। বনবিভাগ পশ্চিম সুন্দরবন সাতক্ষীরা রেঞ্জের বুড়িগোয়ালিনী ষ্টেশন অফিসার (এসও) নূর আলম জানান, সাতক্ষীরা রেঞ্জে ইতিমধ্যে ৩৭৬টি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে। ইতিমধ্যে সুন্দরবনে নোটাবেঁকী অভায়ারন্য অঞ্চলে স্থাপিত ৮টি ক্যামেরা চুরি হয়ে গেছে। তবে কবে চুরি হয়েছে তা তিনি জানাতে পারেননি। এদিকে সুন্দরবনে বাঘ গণনার জন্য স্থাপিত ক্যামেরা চুরির ঘটনায় অনির্দিষ্ট সময়ের জন্য পশ্চিম সুন্দরবনের সাতক্ষীরা রেঞ্জের দুটি স্টেশন হতে জেলেদের সুন্দরবনে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে। ফেব্রুয়ারীর দ্বিতীয় দিন হতে কৈখালী ও কদমতলা স্টেশন হতে জেলেদের অনুকুলে পাশ (অনুমতিপত্র) প্রদান স্থগিত করা হয়।বনবিভাগ সূত্রের দাবি বাঘ গণনার জন্য ক্যামেরা ট্রাকিং পদ্ধতি স্থাপনের স্বার্থে জেলেদের বনে প্রবেশে এ নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। স্থানীয় ও বনবিভাগের সাথে সংশ্লিষ্টদের সাথে আলাপচারীতায় জানা যায়, বাঘ গণনার জন্য স্থাপিত ৮টি ক্যামেরা চুরি হওয়ার ব্যাপারটি অবাক করার বিষয়। এটি মেনে নেয়া যায় না। বনবিভাগের কম জনবল, দায়িক্তহীনতা ও কারিগরি অদক্ষতার কারণেই এ ঘটনা ঘটেছে। সাতক্ষীরা রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক ইকবাল হোসাইন চৌধুরী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, সুন্দরবনে বাঘ গণনার জন্য স্থাপিত কয়েকটি ক্যামেরা সম্প্রতি চুরির ঘটনা চিন্তার বিষয়। কারা এই ক্যামেরা চুরি করেছে তা এখনো যানা যায়নি। তবে ঘটনাটি উদঘাটনের চেষ্টা অব্যহত আছে। তিনি আরো জানান, সাতক্ষীরা রেঞ্জের চারটি স্টেশনের মধ্যে কোবাদক ও বুড়িগোয়ালীনি স্টেশন দিয়ে যথারীতি জেলেদের সুন্দরবনে যাওয়ার অনুমতি দেয়া হচ্ছে। ক্যামেরা স্থাপনের কাজ সম্পন্ন হতেই অপর দু’টি স্টেশন উন্মুক্ত করে দেয়া হবে বলে জানান বনবিভাগের এ কর্মকর্তা।##