১০:০৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

স্বর্ণখচিত সর্ববৃহৎ কোরআনের অংশবিশেষ

  • সংবাদদাতা
  • প্রকাশিত সময় : ০২:৪৮:৩৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১ জুলাই ২০২২
  • ৮৫ পড়েছেন

সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাই এক্সপো-তে প্রদর্শিত হবে অ্যালুমিনিয়াম ও স্বর্ণখচিত বিশ্বের সর্ববৃহৎ পবিত্র কোরআন। আজ সোমবার থেকে এক্সপোর পাকিস্তান প্যাভিলিয়নের সামনে শাহিদ রাসসাম এটি প্রদর্শন করবেন।

এক হাজার ৫৮৫টি অক্ষর, ৩৫২ শব্দ, ৭৮ আয়াত এবং তিন রুকু বিশিষ্ট সুরা আর-রহমানকে ক্যানভাসের ওপর স্বর্ণ ও অ্যালুমিনিয়াম দিয়ে লেখা হয়েছে। ছয় পৃষ্ঠায় লেখা সুরাটি প্রদর্শিত হবে। দুই পৃষ্ঠায় পাঁচ লাইন করে এবং বাকি চার পৃষ্ঠায় ১০ লাইন করে মোট ৫০ লাইনে আয়াতগুলো লেখা হয়েছে। এতে ১৫ কেজি অ্যালুমিনিয়াম ও এক কেজির বেশি স্বর্ণ ব্যবহার করা হয়েছে।

শুধু সুরা আর-রহমান লেখায় শিল্পী, চিত্রকর, ক্যালিওগ্রাফার ও ডিজাইনার মিলিয়ে মোট ২০০ জন চার মাস ধরে অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন। পাকিস্তানি শিল্পী শাহিদ রাসসাম জানান, ‘পবিত্র কোরআনের এ প্রদর্শনীটি শুধু বিশ্বের সবচেয়ে বড়ই নয়, এর ধরনের দিক থেকেও অনন্য। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিশেষত্ব হলো- এটি কালি বা রং দিয়ে লেখা নয়, অক্ষরগুলো স্বর্ণ ও অ্যালুমনিয়ামে খোদাই করা।
দুবাইভিত্তিক উদ্যোক্তা ও করপোরেট ব্যক্তিত্ব ইরফান মুস্তাফা এ প্রকল্পটিতে অর্থায়ন করেছেন। তিনি বলেন, ‘এটি অসাধারণ মাস্টারপিস। এক্সপোতে আসা দর্শনার্থীরা রাসসাম ও তার দলের কাজের প্রশংসা করবে।’

 

সূত্র : খালিজ টাইমস

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

dainik madhumati

জনপ্রিয়

ঘূর্ণিঝড় রেমালের প্রভাবে গলাচিপায় বেড়েছে বাতাস ও নদীর পানি

স্বর্ণখচিত সর্ববৃহৎ কোরআনের অংশবিশেষ

প্রকাশিত সময় : ০২:৪৮:৩৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১ জুলাই ২০২২

সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাই এক্সপো-তে প্রদর্শিত হবে অ্যালুমিনিয়াম ও স্বর্ণখচিত বিশ্বের সর্ববৃহৎ পবিত্র কোরআন। আজ সোমবার থেকে এক্সপোর পাকিস্তান প্যাভিলিয়নের সামনে শাহিদ রাসসাম এটি প্রদর্শন করবেন।

এক হাজার ৫৮৫টি অক্ষর, ৩৫২ শব্দ, ৭৮ আয়াত এবং তিন রুকু বিশিষ্ট সুরা আর-রহমানকে ক্যানভাসের ওপর স্বর্ণ ও অ্যালুমিনিয়াম দিয়ে লেখা হয়েছে। ছয় পৃষ্ঠায় লেখা সুরাটি প্রদর্শিত হবে। দুই পৃষ্ঠায় পাঁচ লাইন করে এবং বাকি চার পৃষ্ঠায় ১০ লাইন করে মোট ৫০ লাইনে আয়াতগুলো লেখা হয়েছে। এতে ১৫ কেজি অ্যালুমিনিয়াম ও এক কেজির বেশি স্বর্ণ ব্যবহার করা হয়েছে।

শুধু সুরা আর-রহমান লেখায় শিল্পী, চিত্রকর, ক্যালিওগ্রাফার ও ডিজাইনার মিলিয়ে মোট ২০০ জন চার মাস ধরে অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন। পাকিস্তানি শিল্পী শাহিদ রাসসাম জানান, ‘পবিত্র কোরআনের এ প্রদর্শনীটি শুধু বিশ্বের সবচেয়ে বড়ই নয়, এর ধরনের দিক থেকেও অনন্য। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিশেষত্ব হলো- এটি কালি বা রং দিয়ে লেখা নয়, অক্ষরগুলো স্বর্ণ ও অ্যালুমনিয়ামে খোদাই করা।
দুবাইভিত্তিক উদ্যোক্তা ও করপোরেট ব্যক্তিত্ব ইরফান মুস্তাফা এ প্রকল্পটিতে অর্থায়ন করেছেন। তিনি বলেন, ‘এটি অসাধারণ মাস্টারপিস। এক্সপোতে আসা দর্শনার্থীরা রাসসাম ও তার দলের কাজের প্রশংসা করবে।’

 

সূত্র : খালিজ টাইমস