১১:২৮ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
কেসিসি নির্বাচন উপলক্ষ্যে আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক মতবিনিময় সভা :

কেসিসি নির্বাচন উপলক্ষ্যে আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক মতবিনিময় সভা :

###    প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী হাবিবুল আউয়াল বলেছেন, আমাদের উদ্দেশ্য হলো খুলনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন যেন অবাধ, নিরপেক্ষ, শান্তিপূর্ণ এবং উৎসবমুখরভাবে হয়। সেই লক্ষ্যে সকলকে সমন্বিতভাবে দায়িত্ব পালন করতে হবে। যেকোনো বড় নির্বাচনে প্রধানত দায়িত্ব পালন করতে হয় জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনসহ অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে। গণতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থার জন্য স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানগুলো নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের দ্বারা শাসিত হওয়া প্রয়োজন। তিনি আরও বলেন, নির্বাচনে আইনশৃঙ্খলা পরিপন্থি কোন ধরণের কার্যক্রম হলে সংশ্লিষ্ট কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। পেশি শক্তি না খাটিয়ে সাধারণ ভোটারের আস্থা অর্জন করতে হবে। তিনি আরও বলেন, নির্বাচনে অনুকূল পরিবেশ সৃষ্টিতে নির্বাচন কমিশন সর্বদা কাজ করে যাচ্ছে। কোন ভোটারকে তাঁর স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করা যাবে না। নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠ করতে বর্তমান সরকার প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। কেসিসি নির্বাচন অবাধ, নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু করতে সংশ্লিষ্টদের নিদের্শনা দেন তিনি।

তিনি বলেন, নির্বাচনের মাধ্যমে সরকার গঠিত হয়, সেটা স্থানীয় সরকার হোক বা জাতীয় সরকার হোক। সংবিধানকে সমুন্নত রাখার জন্য স্থানীয় সরকার নির্বাচন করতে হয়। নির্বাচনে যদি জনগণের মতামতের প্রতিফলন হয় এবং ভোটাররা যদি অবাধ, নিরপেক্ষ ও স্বাধীনভাবে বিদ্যা-বুদ্ধি-প্রজ্ঞা খাটিয়ে ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারেন সেটাই হবে প্রকৃত নির্বাচন। মঙ্গলবার বিকেলে খুলনা জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত খুলনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন উপলক্ষ্যে নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা, এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট এবং আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের নিয়ে আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল(অব:) মোঃ আহসান হাবিব খান এবং নির্বাচন কমিশন সচিব মোঃ জাহাংগীর আলম। খুলনার বিভাগীয় কমিশনার মোঃ জিল্লুর রহমান চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোঃ মাসুদুর রহমান ভূঞা, ডিআইজি মঈনুল হক, জেলা প্রশাসক খন্দকার ইয়াসির আরেফীনসহ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট, নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা অংশগ্রহণ করেন।##

Tag :
লেখক তথ্য সম্পর্কে

Dainik adhumati

কেসিসি নির্বাচন উপলক্ষ্যে আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক মতবিনিময় সভা :

কেসিসি নির্বাচন উপলক্ষ্যে আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক মতবিনিময় সভা :

প্রকাশিত সময় : ০৮:৪০:৩০ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৩১ মে ২০২৩

###    প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী হাবিবুল আউয়াল বলেছেন, আমাদের উদ্দেশ্য হলো খুলনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন যেন অবাধ, নিরপেক্ষ, শান্তিপূর্ণ এবং উৎসবমুখরভাবে হয়। সেই লক্ষ্যে সকলকে সমন্বিতভাবে দায়িত্ব পালন করতে হবে। যেকোনো বড় নির্বাচনে প্রধানত দায়িত্ব পালন করতে হয় জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনসহ অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে। গণতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থার জন্য স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানগুলো নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের দ্বারা শাসিত হওয়া প্রয়োজন। তিনি আরও বলেন, নির্বাচনে আইনশৃঙ্খলা পরিপন্থি কোন ধরণের কার্যক্রম হলে সংশ্লিষ্ট কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। পেশি শক্তি না খাটিয়ে সাধারণ ভোটারের আস্থা অর্জন করতে হবে। তিনি আরও বলেন, নির্বাচনে অনুকূল পরিবেশ সৃষ্টিতে নির্বাচন কমিশন সর্বদা কাজ করে যাচ্ছে। কোন ভোটারকে তাঁর স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করা যাবে না। নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠ করতে বর্তমান সরকার প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। কেসিসি নির্বাচন অবাধ, নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু করতে সংশ্লিষ্টদের নিদের্শনা দেন তিনি।

তিনি বলেন, নির্বাচনের মাধ্যমে সরকার গঠিত হয়, সেটা স্থানীয় সরকার হোক বা জাতীয় সরকার হোক। সংবিধানকে সমুন্নত রাখার জন্য স্থানীয় সরকার নির্বাচন করতে হয়। নির্বাচনে যদি জনগণের মতামতের প্রতিফলন হয় এবং ভোটাররা যদি অবাধ, নিরপেক্ষ ও স্বাধীনভাবে বিদ্যা-বুদ্ধি-প্রজ্ঞা খাটিয়ে ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারেন সেটাই হবে প্রকৃত নির্বাচন। মঙ্গলবার বিকেলে খুলনা জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত খুলনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন উপলক্ষ্যে নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা, এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট এবং আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের নিয়ে আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল(অব:) মোঃ আহসান হাবিব খান এবং নির্বাচন কমিশন সচিব মোঃ জাহাংগীর আলম। খুলনার বিভাগীয় কমিশনার মোঃ জিল্লুর রহমান চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোঃ মাসুদুর রহমান ভূঞা, ডিআইজি মঈনুল হক, জেলা প্রশাসক খন্দকার ইয়াসির আরেফীনসহ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট, নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা অংশগ্রহণ করেন।##